রাসিকে ৩২ আ.লীগ নেতা-আমলার বাসায় গ্যাস, ক্ষুব্ধ নগরবাসী

০৯ জুন,২০১৩

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
রাজশাহী: রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মাত্র এক সপ্তাহ আগে বাসাবাড়িতে গ্যাস সংযোগ প্রদান নিয়ে মহাজোটের মেয়রপ্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও ১৮ দলের প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের মধ্যে চলছে ঠাণ্ডা লড়াই।

গ্যাস সংযোগের পুরো ক্রেডিটই ঘরে নিতে চান লিটন। আর বুলবুল বলছেন, বিএনপি সরকারের আমলে শুরু গ্যাস প্রকল্প হয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকার শুধু এরই ধারাবাহিকতা রক্ষা করেছে।

তবে চরম অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (পিজিসিএল) সংযোগ দিচ্ছে। এদিকে তড়িঘড়ি করে গ্যাস সংযোগ দেওয়ার জন্য বিনা টেন্ডারেই পুরাতন ঠিকাদারকে দিয়ে রাইজার উত্তোলনের কাজ শুরু করা হয়েছে।

রাজশাহীতে প্রথম দফা গ্যাস সংযোগ পাচ্ছেন ৩২ সৌভাগ্যবান। এদের মধ্যে শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তারাও রয়েছেন। এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে নগরবাসী।

অভিযোগ উঠেছে, সরকারি শীর্ষ কর্মকর্তাদের খুশি রাখতে তাদের বাসায় আগাম গ্যাস সংযোগ দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। গত শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে গ্যাস সংযোগের উদ্বোধন করা হয়েছে।

তবে, সাধারণ মানুষ না পাওয়ায় রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পষিদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান তার বাসায় সংযোগের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছেন। অবশ্য, লাইনে প্রেসার না থাকায় সদ্য সংযোগ পাওয়া চুলা ঠিকমতো জ্বলছে না বলে জানা গেছে।

পিজিসিএল সূত্রে জানা গেছে, প্রথম দফায় যাদের বাসায় গ্যাস সংযোগ দেওয়া হবে তাদের সামনে সারিতে রয়েছে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জন, দায়রা জজ, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান।

গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের টেন্ডারের মাধ্যমে তাদের বাসায় সরকারিভাবে গ্যাস সংযোগ দেওয়া কথা। এখনো পর্যন্ত গণপূর্ত বিভাগ এ ধরনের কোনো উদ্যোগই গ্রহণ করেনি।

গণপূর্ত বিভাগ রাজশাহীর নির্বাহী প্রকৌশলী ফজলুল হক বলেন, যেসব সরকারি বাসায় গ্যাস সংযোগ দেওয়ার জন্য তালিকা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানের বাসায় ফ্যাসিলিটিজ বিভাগ এবং অন্যদের বাসায় গণপূর্ত বিভাগের মাধ্যমে গ্যাস সংযোগ দেওয়ার কথা।

এখন পিজিসিএল থেকে আগেই দিয়ে দিচ্ছে। সেই সুযোগের তাদের একজন প্রকৌশলীও সংযোগ পেয়ে যাচ্ছেন। তবে পূর্ত মন্ত্রণালয় কবে নাগাদ গ্যাস সংযোগের প্রক্রিয়া শুর্ব করবে তা তিনি জানাতে পারেননি।

কথিত সেই ৩২ জনের মধ্যে আরো রয়েছেন, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের সচিব (ব্যক্তিগত বাসায়), রাজশাহী সিটি করপোরেশনে প্রথম মেয়র আবদুল হাদি, শিল্প প্রতিমন্ত্রীর ভাই মঞ্জুর ফারুক চৌধুরী, আওয়ামী লীগের নেতা মীর ইকবাল, সাবেক মেয়র লিটনের নাগরিক কমিটির সভাপতি ও ভাষা সৈনিক আবুল হোসেন।

ইতোমধ্যে গ্যাস সংযোগের জন্য ব্যাংক থেকে আবেদন পত্র সংগ্রহ চলছে। অগ্রণী ব্যাংকের সাহেব বাজার শাখার সহকারী মহাব্যবস্থাপক রেজাউল শরীফ জানান, এখন পর্যন্ত প্রায় ৮হাজার আবেদনপত্র বিক্রি হয়েছে। এই আবেদনকারীরা কবে নাগাদ গ্যাস সংযোগ পাবেন তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।

জানা গেছে, গত বছর ৩০ জানুয়ারি রাজশাহীতে পাইলাইনে গ্যাস সরবরাহ করা হয়। কিন্তু অনুমতি না থাকার কারণে বাসা বাড়িতে গ্যাস সংযোগ দেওয়া হয়নি। রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান গত ৯ মে পদত্যাগ করেন।

এর দুদিন আগেই সিটি করপোরেশন থেকে নগরবাসীকে তিনি জানান, রাজশাহীতে বাসাবাড়িতে গ্যাস দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়ে দিয়েছেন। এখন বাসাবাড়িতে গ্যাস সংযোগ দেওয়া যাবে। এই কারণে গ্যাসের অনুমতির সঙ্গে রাজশাহীর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে অনেকেই মিলিয়ে দেখছেন।

তবে নির্বাচনের আগে আর কতজন গ্যাস সংযোগ পাবেন তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না। পিজিসিএল এর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া এখন থেকে পর্যায়ক্রমে সংযোগ দেওয়ার কাজ চলতে থাকবে। তবে মালামালের সঙ্কট রয়েছে।

এদিকে, রাজশাহীতে বাসাবাড়িতে গ্যাস সংযোগের রাইজার উত্তোলনের জন্য নিয়ম অনুযায়ী টেন্ডার করে কোনো ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়নি। এর আগে সিরাজগঞ্জে নিযুক্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনিক্যাল সার্ভিসকে রাজশাহীতে চার হাজার রাইজার উত্তোলনের কাজ দেওয়া হয়েছে। তারা ইতিমধ্যে প্রথম দফায় ৩২টি বাড়িতে রাইজার উঠানোর জন্য রোড কাটিংয়ের অনুমতি পেয়েছে।

টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ না করে পুরাতন ঠিকাদারকে কাজ দেওয়ার ব্যাপারে পিজিসিএল এর মহাব্যবস্থাপক(পরিকল্পনা) কামর্বজ্জামান খান বলেন, তাড়াতাড়ি গ্যাস সংযোগ দেওয়ার জন্য সিরাজগঞ্জে নিযুক্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে আপাতত দুই হাজার রাইজার উত্তোলনের কাজ দেওয়া হয়েছে। আর বাকি কাজের জন্য ইতিমধ্যেই টেন্ডারের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এতে কোনো অনিয়ম করা হয়নি। পিজিসিএল তার এলাকার ভেতরে নিযুক্ত ঠিকাদারকে দিয়ে এই কাজ করাতে পারে। তারা রাজশাহীতে পাইপলাইন বসানোর কাজও করেছে। তারা নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান।

ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনিক্যালের পক্ষে রাজশাহী কাজ করছেন কামরুল ইসলাম লিটন নামের একজন ঠিকাদার। তিনি বলেন, প্রথম দফায় তাদের দুই হাজার রাইজার উত্তোলনের কাজ দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে আরো দুই হাজার দেওয়ার কথা রয়েছে।

তিনি সরকারি কর্মকর্তাদের বাসায় গ্যাস সংযোগ দেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকেই সরকারি কর্মকর্তাদের বাসায় গ্যাস সংযোগ দেওয়ার কথা থাকলেও পিজিসিএল তাদের দিয়েই করাচ্ছে।

নির্বাচনের আগে আর কত সংযোগ দেওয়া সম্ভব হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মালামালের সঙ্কট রয়েছে। মালামাল প্রাপ্তি ও গ্রহকদের প্রস্তুতির ওপরেই তা নির্ভর করছে। তবে পিজিসিএল ব্যবসা করার জন্যই এখানে ১৯০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। তারা কাজ করবে।

এদিকে, নির্বাচনী প্রচারণায় গ্যাস ইস্যু এখন বেশ আলোচিত। মেয়রপ্রার্থী বুলবুলের সম্মিলিত নাগরিক ফোরামের নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে বলেছেন, নির্বাচনে মাত্র এক সপ্তাহ আগে গ্যাসের সংযোগ দেয়া আচরণবিধি লঙ্ঘন। তাছাড়া, বিএনপি জোট সরকারের শুরু করা গ্যাস প্রকল্প আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় ষড়যন্ত্র করে বিলম্বিত করেছিল তত্ত্বাবধায়ক সরকার। সেই প্রকল্প নিয়ে লিটন এখন গলা উঁচু করে কথা বলছেন।

অন্যদিকে, লিটনের দাবি- তার গত নির্বাচনের প্রধান প্রতিশ্রুতি ছিল। তার প্রচেষ্টাতেই শেষ পর্যন্ত রাজশাহীতে গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়েছে। এনিয়ে বিএনপির রাজনীতি করার আর সুযোগ নেই।

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান বলেন, তিনি রাজশাহীতে গ্যাসের জন্য আন্দোলন করেছেন। এখন গ্যাস সংযোগের অনুমতি পাওয়া গেছে। তবে দেখা যাচ্ছে প্রথম দফায় মাত্র ৩২জন সৌভাগ্যবান ব্যক্তি এই তালিকায় রয়েছেন।

তিনি বলেন, তার নামও এই তালিকায় ছিল। কিন্তু সর্বস্তরের মানুষ যেহেতু এখনো গ্যাস সংযোগ সুবিধা পাচ্ছেন না, সেই জন্য তিনি তার বাড়িতে গ্যাস সংযোগের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছেন।

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

ঝিনাইদহে ছেলের হাতে বাবা খুন

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনঝিনাইদহ: জেলায় ছেলের ধারাল অস্ত্রের আঘাতে বাবা খুন হয়েছেন। বুধবার রাতে মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে . . . বিস্তারিত

বিএনপির মধ্যবর্তী নির্বাচন দাবি পাগলের প্রলাপ: মোশাররফ

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনমাদারীপুর: বিএনপির মধ্যবর্তী নির্বাচন দাবি পাগলের প্রলাপ ছাড়া কিছু নয়। আমরা যে নির্বাচনটা করেছি . . . বিস্তারিত

ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: ০১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: [email protected]