তথ্য উন্মুক্ত থাকলে জবাবদিহিতা বাড়ে: ড. আতিউর

০৮ জুন,২০১৩

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: অবাধ তথ্যপ্রবাহ সামাজিক অবকাঠামোগত উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান।

শনিবার মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘সোসাল একাউন্টেবিলিটি ইন প্রাক্টিস: লেসনস, চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড ওয়ে ফোরওয়ার্ড’ শির্ষক দুই দিনব্যাপী এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

ব্রাক সেন্টার ইন এ অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে ড. আতিউর বলেন, তথ্য উন্মুক্ত থাকলে জবাবদিহিতা বাড়ে। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে দুর্নীতি হ্রাস পায়। আর দুর্নীতি কমলে সামাজিক উন্নয়ন তরান্বিত হয়।

তিনি বলেন, সার্বিক অথনৈতিক উন্নয়নে সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ে জবাবদিহিতার পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতাও বাড়ানো দরকার।

বাজেট প্রসঙ্গে গভর্নর বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে সাধারণ জনগণের চাহিদা অনেকাংশে প্রতিফলিত হয়েছে। তবে বাস্তবায়নে তদারকি জোরদার করার আহ্বান করেন তিনি।

ব্যাংক মালিকদের উদ্দেশ্যে ড. আতিউর বলেন, একটি ব্যাংকের মালিক শুধু ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও পরিচালকরা নয়। এখানে বিনিয়োগকারীদের অবদান অনেক বেশি। তাই বিনিয়োগকারিদের স্বার্থ সংরক্ষন না করলে ব্যাংক ব্যবস্থায় ধস নামতে পারে।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জান বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে কালো টাকা সাদা করার অবাধ সুযোগে দুর্নীতিকে আরো উৎসাহিত করবে এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠা ব্যাহত করবে। ফলে সামাজিক অবকাঠামো উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে।

এছাড়া তিনি বলেন, চলমান রাজনৈতিক সহিংসতা সামাজিক উন্নয়নে বাধা হয়ে দাড়াচ্ছে। তাই এর সমাধান জাতীয় সংসদে হওয়া উচিত।

ব্যারিস্টার মনজুর হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ডিএফআইডি বাংলাদেশ’র প্রধান রিচার্ড বুথার ওর্থ, শাহিন আনাম প্রমুখ।

অর্থনীতি পাতার আরো খবর

ঢাকার পানি সমস্যা সমাধানে ২৫ কোটি ডলার দেবে এডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ঢাকা মহানগরীর পানি সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ সরকার ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)একটি ঋণ চুক্ত . . . বিস্তারিত

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গ্রাহক দেড় কোটি ছাড়াল

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: দেশে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গ্রাহক সংখ্যা দেড় কোটির মাইল ফলক অতিক্রম করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্য . . . বিস্তারিত

ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: ০১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: [email protected]