আন্দোলনের নতুন ছক আঁকছে বিএনপি

১০ জুন,২০১৩

আরেফিন শাকিল
আরটিএনএন
ঢাকা: নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবি আদায়ে একের পর এক পরিকল্পনা ভেস্তে যাওয়া নতুন পরিকল্পনার নতুক ছক আঁকছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। গত ৫মে শাপলা অভিযানের পর রাজনীতিতে অনেকটা কোণঠাসা বিএনপি ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে।

আন্দোলনের মাঠে কিছুটা হতোদ্যম বিএনপি এই স্থবিরতা কাটিয়ে উঠতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিএনপি দ্রুত ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন এমন আত্মবিশ্বাস নেতাদের।

গত ১৯ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীর দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য একমাস সভা সমাবেশ বন্ধ থাকবে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানান। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত রাজধানীতে প্রকাশ্যে কোনো সভা-সমাবেশ করতে পারেনি প্রধান বিরোধী জোট।

তবে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার জারির প্রতিবাদে রাজধানীতে বেশ কয়েকদিন  ঝটিকা মিছিল করে ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা। এ ক্ষেত্রে এগিয়ে ছিল ছাত্রদল।

সভা-সমাবেশ নিষেজ্ঞার প্রতিবাদে গত ২৪ মে সারা দেশে হরতাল পালন করে ১৮ দল। এরপর থেকে কর্মসূচি শূন্য প্রধান বিরোধী জোট। জোটের শীর্ষ নেতারা অনানুষ্ঠানিকভাবে একাধিক বৈঠক  করলেও সরকার বিরোধী আন্দোলনের কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেননি।

আন্দোলনের পরবর্তী কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণে শনিবার রাতে গুলশানের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের জয় নিশ্চিত করতে বিএনপি প্রধান জ্যেষ্ঠ নেতাদের নির্দেশ দেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি আদায়ে চলমান আন্দোলনের চেয়ে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিকেই মূল ফোকাস বিএনপির। আর সিটি নির্বাচনকে ঘিরে আন্দোলনের পরবর্তী কৌশল নির্ধারণ করতে চায় তারা।

যে কোনো মূল্যেই দলীয় প্রার্থীদের জয় চান বিএনপির শীর্ষ মহল। কারণ এতে করে দলের তৃনমূলের কর্মীরা আন্দোলনে আরো উজ্জ্ববিত হবে আর সরকার চাপে পড়বে। নির্দলীয় সরকারের দাবি আদায়ে আন্দোলন চাঙা হবে।

বিএনপি নেতারা মনে করেন, আগামী দিনে বিএনপির আন্দোলন কেমন হবে, তার অনেকটাই নির্ভর করছে সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের ফলাফলের ওপর। নিজেদের পছন্দের প্রার্থীদের জয়-পরাজয় দুটোকেই কাজে লাগাতে চায় বিএনপি। তবে জয়ের জন্যই সর্বোচ্চ করবে।

নির্বাচনের ফলাফল নিজেদের অনুকূলে না আসলে নির্বাচন কমিশনের পক্ষপাতিত্ব ও কারচুরি অভিযোগে পরবর্তী সপ্তাহে টানা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডাকার প্রার্থমিক সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে বিএনপি। এ বিষয়ে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিস্তর আলোচনা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

আর আন্দোলন নতুন পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী রমজান মাস দলের তৃণমূল পর্যায় পুনর্গঠন করবে বিএনপি। কয়েকটি জেলা সফর করতে পারেন বিএনপি প্রধান বেগম খালেদা জিয়া। আর ঈদের পর তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবিতে এক দফা আন্দোলন শুরু করা হবে যার চূড়ান্ত রূপ দেয়া হবে চলমান সংসদের মেয়াদের শেষ দিকে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য আরটিএনএন-কে বলেন, ‘স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকার বাধ্য না করলে আগামী রমজানের আগে কঠোর আন্দোলনে যাচ্ছে না বিএনপি।’

তিনি জানান, ‘সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীদের জোর করে হারিয়ে দিলে সঙ্গে সঙ্গে সারা দেশে হরতাল ডাকবে বিএনপি। এর বাহিরে ঈদের আগে দলের সাংগঠনিক কাঠামো পুনর্গঠন করা হবে।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ বলেন, ‘সিটি নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন সরকারের আজ্ঞাবহ হিসেবে কাজ করলে এবং জোর করে বিএনপি প্রার্থীদের পরাজিত করলে ইসি পুনর্গঠনের ইস্যু নিয়ে বিএনপি আন্দোলন নামবে।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি আন্দোলনে রয়েছে, আন্দোলন চলছে এবং সামনে দিনে আন্দোলন আরো হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলতে থাকবে। ঈদের পর নিশ্চয়ই সেই আন্দোলন আরো জোরদার হবে।’

স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত
শনিবারের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে  জানা গেছে। তার মধ্যে আগামী রমজান মাস দেশের সব জেলা ও উপজেলায় দলের কেন্দ্রীয় নেতারা সফর করবেন।

তারা দলীয় কোন্দল থাকলে তা নিরসন করবে এবং আন্দোলন অংশ নিতে নেতা-কর্মীদের উজ্জ্বীবিত করবেন। আগামী রমজান মাসকে বিএনপি তাদের সাংগঠনিক মাস হিসাবে ঘোষণা করেছে।

এছাড়াও ঢাকার বাহিরে কয়েকটি জেলা খালেদা জিয়া সফর করতে পারেন। আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে দেশের সব স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ১৮ দল একক প্রার্থী দিবে।

জুন মাসের শেষ সপ্তাহ কিংবা জুলাই এর প্রথম দিকে ঢাকায় জনসভা করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত রয়েছে বিএনপির।

বৈঠকে সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে কেন্দ্রীয় মনিটরিং সেল গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত ও আন্দোলনের পরবর্তী কৌশল নির্ধারণে ১০ জুন গুলশানে জোটের শীর্ষ নেতাদের বৈঠক হবে। এছাড়া দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে ১১ জুন বুদ্ধিজীবিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন খালেদা জিয়া।

রাজনীতি পাতার আরো খবর

সিদ্দিক-ইলিয়াসের অপহরণকারীরা একই: রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর . . . বিস্তারিত

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ নয়, বিএনপি প্রকাশ্য শত্রু: কামরুল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ঢাকা মহানগর আওয়ামী লগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ব . . . বিস্তারিত

ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: ০১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: [email protected]