এবার পুলিশের হাতে ধর্ষিত তরুণী

11 February,2019

এবার পুলিশের হাতে ধর্ষিত তরুণী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
মানিকগঞ্জ: খালার সাথে পুলিশের এক এসআইয়ের কাছে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে পালাক্রম ধর্ষনের শিকার হয়েছে এক তরুণী। এ ঘটনা জেলা পুলিশ সুপারের কাছে দেওয়া এক অভিযোগে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে জেলা পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় ডাকবাংলোতে জোর করে অস্ত্রের মুখে ইয়াবা সেবনে বাধ্য করে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন ওই নারী।

রবিবার ধষিত ওই তরুণী মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপারের কাছে সাটুরিয়া থানার উপ-পরিদর্শ (এসআই) সেকেন্দার হোসেন ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মাজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্ত দুই কর্মকর্তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করার নির্দেশ দেন পুলিশ সুপার। তবে অভিযুক্ত এসআই সেকেন্দার হোসেন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেন।

অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামিম বলেন, রাতেই মৌখিকভাবে অভিযুক্ত দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে সাটুরিয়া থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। দোষী প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লিখিত অভিযোগে ওই তরুণী জানান, তার এক খালা সাটুরিয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেকেন্দার হোসেনের কাছে প্রায় তিন লাখ টাকা পান। ওই টাকা আনতে গত বুধবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৫টার দিকে খালার সঙ্গে সাটুরিয়া থানায় যান তিনি। সেখানে পুলিশ কর্মকর্তা সেকেন্দারের সঙ্গে দেখা হলে তিনি তাদের দুজনকে নিয়ে সাটুরিয়া ডাকবাংলোতে যান। কিছুক্ষণ পরে সেখানে উপস্থিত হন একই থানার আরেক এএসআই মাজহারুল ইসলাম।

এরপরে দুজনে মিলে অভিযুক্ত তরুণী ও তার খালাকে আলাদা ঘরে আটকে রাখেন। একপর্যায়ে ওই তরুণীকে অস্ত্রের মুখে ইয়াবা সেবনে বাধ্য করা হয়। পরে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়। শুক্রবার সকাল পর্যন্ত আটকে রেখে দুজনকে ডাকবাংলো থেকে বের করে দেওয়া হয়।

ওই তরুণীর অভিযোগ ডাকবাংলোর একটি রুমে ২ রাত ২ দিন আটকে রেখে দুই পুলিশ কর্মকর্তা তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। এ সময় পাশের আরেকটি রুমে তার খালাকে আটকে রাখা হয়। অভিযুক্তরা হলেন।

ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: ০১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: info@real-timenews.com

Copyright © 2008-2013 Real-time News Network