ভেনিজুয়েলা সরকার ও বিরোধী দলের মধ্যে নতুন করে আলোচনা

১২ জানুয়ারি,২০১৮

সংকট সমাধানে ভেনিজুয়েলা সরকার ও বিরোধী দলের মধ্যে নতুন করে আলোচনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
সান্টো দোমিংগে: ভেনিজুয়েলার এ বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাক্কালে দেশটির দীর্ঘদিনের সংকট সমাধানের লক্ষ্যে সরকারি ও বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা বৃহস্পতিবার তৃতীয় দফা বৈঠক করেছেন। ডোমিনিকান রিপাবলিকে তারা এ বৈঠকে বসেন। খবর এএফপি’র।

প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো সরকার দেশটির নির্বাচন থেকে প্রধান বিরোধী দলগুলোকে নিষিদ্ধ করার হুমকি দেয়ার পর উভয় পক্ষের কাছে নিরপেক্ষ দেশ ডোমিনিকান রিপাবলিকে তারা দু’দিন ব্যাপী এ বৈঠকে বসেন।

সরকারের এমন হুমকির প্রেক্ষাপটে বিরোধী দল রাজপথে আবারো বিক্ষোভ প্রদর্শনের হুমকি দিয়েছে। গত বছর রাজপথে এমন বিক্ষোভে ১২৫ জনকে প্রাণ দিতে হয়।

সরকার ও বিরোধী দল আলোচনায় বসলেও দেশটিতে বর্তমানে উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

সরকারি প্রতিনিধি দলের প্রধান যোগাযোগমন্ত্রী জর্জ রদ্রিগুয়েজ আলোচনায় কেবলমাত্র তাল মিলানোয় জন্য বিরোধী দলকে অভিযুক্ত করেন। অবস্থা দৃষ্টি মনে হচ্ছে তারা আবারো রাজপথে সহিংসতাপূর্ণ কার্যক্রম চালানোর পরিকল্পনা করছে।

আলোচনার প্রাক্কালে তিনি বলেন, ‘বিরোধী দল আলোচনায় বসতে না চাইলে আমাদের ডোমিনিকান রিপাবলিকে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। আপনারা রাজপথে যান। আমরা রাজপথে আপনাদের জন্য অপেক্ষা করবো।’ সূত্র : বাসস

এর আগে ২০১৭ সালের ৩০ জুলাই ভেনেজুয়েলার সরকার সংবিধান সংশোধনের জন্য গণভোট করেছিল। কিন্তু এই গণভোট বাতিলের জন্য দেশটির বিরোধী দল চার মাস ধরে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করে আসছিল। গণভোটকে কেন্দ্র করে সারাদেশে সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছিল দেশটির সরকার।

কিন্তু বিরোধী দল বলেছে, সরকারকে আগামী শনিবারের মধ্যে এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে।

গত চার মাস ধরে চলা এই বিক্ষোভে দেশটির ১০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ভেনেজুয়েলা সরকার জানিয়েছে, গণভোটের দাবিতে করা সমাবেশ ভোটকে প্রভাবিত করতে পারে। এই কারণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলো।

এদিকে বৃহস্পতিবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী নেস্টোর রিভিরোল এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, যে কোন ধরনের জাতীয় মিটিং, বিক্ষোভ ও সেমিনারসহ এমন ধরনের কাজ নির্বাচনে বিরুপ প্রভাব ফেলতে পারে। এ কারণেই মূলত সারাদেশে সভা ও সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এসময় তিনি বলেন, এই নিষেধাজ্ঞা শুক্রবার মধ্যরাত থেকে শুরু হয়ে ১ আগস্ট পর্যন্ত জারি থাকবে। নিষেধাজ্ঞা কেহ অমান্য করলে তার ৫ থেকে ১০ বছরের সাজা হতে পারে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

গভা ও সমাবেশের এমন নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর বিরোধী দল বলছে, বিরোধী সমাবেশকে ঠেকাতে মাদুরো সরকারের ডাকা শুক্রবারের মিছিলকে সফল করতেই এমনটি করা হলো। এছাড়াও সরকার দেশে স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্যই সংবিধান সংশোধন করতে গণভোট করতে যাচ্ছে।

দেশটির বিরোধী দলের একজন সংসদ সদস্য বলেছেন, সরকার এমন নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরও এই সপ্তাহে রাস্তায় মানুষের বিক্ষোভকে ঠেকাতে পারবে না।

দেশটিতে চার মাস ধরে চলা বিক্ষোভ সমাবেশ ও ধর্মঘটের কারণে নিত্যপণ্যের বাজারে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে ও বাজারদর দ্বিগুন থেকে কয়েকগুন হয়েছে।

বর্তমানে দেশটিতে আতঙ্কে অনেক নাগরিক পাশের দেশ কম্বোডিয়ায় পাড়ি জমাচ্ছেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার দেশটির প্রধান মন্ত্রী নিকোলাস মাদুরো চলমান রাজনৈতিক সংকট সমাধানে আলোচনার জন্য বিরোধী দলকে ডেকেছিল। কিন্তু বিরোধী দল তার ডাকে কোন সাড়াই দেয়নি।

মাদুরো বলেন, দেশের শান্তি ও চলমান সংকট সমাধানে বিরোধী দলকে আলোচনার টেবিলে ডেকেছিলাম। শনিবারের মধ্যে তাদের আলোচনার জন্য বসাতে চাই। মাদুরো একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে বলেছেন, তিনি সংকট সমাধানে মাসব্যাপী আলোচনা করতে চান। বিরোধী দল কি বলতে চায় তা শুনতে চাই। কিন্তু তারা তো জেদি কোন কথাই শুনতে চায় না।

সাংবিধানিক পরিষদের মতে, দেশটিতে ৭০ ভাগ লোক সংবিধান পরিবর্তনের দাবিতে গণভোটের বিরোধীতা করে আসছিল। মাদুরো সরকার কতক্ষণ এভাবে ক্ষমতায় থাকবেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জাতিসংঘ এবং বিভিন্ন প্রভাবশালী দেশ মাদুরো সরকারকে সমস্যা সমাধানে নির্বাচন থেকে সরে আসার অনুরোধ জানিয়েছেন।

ইতোমধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দেশটির প্রতি ১৩ টি অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ কওে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। ভেনেজুয়েলার সাবেক কর্মকর্তারা জানিয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এমন নিষেধাজ্ঞার কারণে ব্যবসা বাণিজ্যে প্রভাব পড়েছে এবং অর্থনৈতিক অবস্থা বড়ই নাজুক হয়ে পড়েছে।

কিন্তু মাদুরো সরকার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞাকে অবৈধ, নিষ্ঠুর ও অভূতপূর্ব বলে উল্লেখ করেছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার রাষ্ট্রদূতকে শনিবারের মধ্যেই দেশে চলে আসার জন্য আদেশ দিয়েছে। পাশাপাশি ভেনেজুয়েলার সঙ্গে সকল ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করারও আদেশ এসেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে।

মন্তব্য

মতামত দিন

আমেরিকা পাতার আরো খবর

বান্ধবীকে হত্যার আগে সেলফি

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনঅটোয়া: বান্ধবীকে হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন কানাডীয় এক নারীকে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসব . . . বিস্তারিত

মেক্সিকোর দেয়াল নির্মাণ প্রশ্নে মত বদল হয়নি: মার্কিন প্রেসিডেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনওয়াশিংটন: মেক্সিকোর সীমান্ত বরাবর দেয়াল নির্মাণ নিয়ে দৃষ্টিভঙ্গি বদলে গেছে বলে যে খবর প্রচারি . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com