নিউজিল্যান্ডে মন্ত্রীর প্যান্ট খোলা ভাস্কর্য ফুটপাতে, ব্যাপক বিতর্ক

১৩ সেপ্টেম্বর,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
ওয়েলিংটন: প্যান্ট খুলে প্রকাশ্যে মলত্যাগ করছেন- এমন ভঙ্গীতে তৈরি করা নিউজিল্যান্ডের পরিবেশ মন্ত্রীর একটি ভাস্কর্য ক্রাইস্টচার্চের এক কাউন্সিল অফিসের স্থাপনের পর এ নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

পরিবেশ মন্ত্রী নিক স্মিথের এই ভাকর্যটি তৈরি করেছেন শিল্পী স্যাম মেহন। নিক স্মিথের প্যান্ট তার গোড়ালির কাছে, তার পুরুষাঙ্গ দেখা যাচ্ছে। তিনি এক গ্লাস পানির মধ্যে মলত্যাগ করছেন। খবর বিবিসির।

নিউজিল্যান্ডের সরকার নদী এবং হ্রদের পানির মান রক্ষার জন্য যে নতুন নীতি নিয়েছে, তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হিসেবে শিল্পী এই মূর্তিটি তৈরি করেছেন। সমালোচকরা বলছেন, সরকারের এই নীতি খুবই শিথিল। এতে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার মাধ্যমে পানি দূষিত হওয়ার আশংকা আছে।

পরিবেশবাদীদের এই প্রতিবাদ বন্ধ করার জন্য পরিবেশ দফতর বেশ কিছু ব্যবস্থা নিয়েছিল। আদালত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল যে এই ভাস্কর্যটি পরিবেশ দফতরের সামনে স্থাপন করা যাবে না।

কিন্তু পরিবেশবাদীরা এরপর এই ভাস্কর্যটি স্থাপন করে একটি ফুটপাথে।

এই প্রতিবাদকে খুবই ‘স্থূল’ বলে যে সমালোচনা হচ্ছে, তার উত্তরে শিল্পী স্যাম মেহন বলেন, যদি আপনি কোনো রাজনৈতিক বিষয় সম্পর্কে মন্তব্য করতে চান, সেটি চিনি মাখিয়ে বলবেন। আমি এই আইডিয়াটা আসলে পেয়েছি মন্ত্রী আমাদের সঙ্গে যা করছেন সেখান থেকে। যদি এটি দেশে দুপক্ষের লোকজনই হাসাহাসি করেন, তাহলেই আমি বুঝবো তারা ওষুধটা গিলেছেন।

মন্ত্রী অবশ্য এই ভাস্কর্যকে একেবারেই স্থূল ব্যাপার বলে বর্ণনা করেছেন। তবে তিনি বলেছেন, এটিকে তিনি খুব বেশি পাত্তা দিচ্ছেন না।

মন্তব্য

মতামত দিন

আমেরিকা পাতার আরো খবর

যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ড পেলেন মেলানিয়ার বাবা-মা, প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএওয়াশিংটন: মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের বাবা-মা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বা . . . বিস্তারিত

ইসলামবিদ্বেষী সেই কাউন্সিলরের প্রতি অনাস্থা, পদত্যাগে অস্বীকৃতি

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনটেক্সাস: ধারাবাহিকভাবে মুসলিম ও কৃষ্ণাঙ্গ বিরোধী ফেসবুক পোস্ট নিয়ে সৃষ্ট বিতর্কে পদত্যাগের আহ্ব . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com