উত্তর কোরিয়ার ওপর জাতিসংঘের নতুন নিষেধাজ্ঞায় যোগ দিল চীন-রাশিয়া

১২ সেপ্টেম্বর,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
নিউ ইয়র্ক: উত্তর কোরিয়ার ষষ্ঠতম এবং বড় ধরনের পরমাণু পরীক্ষার পর দেশটির ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপে জাতিসংঘের সর্বসম্মত ভোটে যোগ দিয়েছে চীন ও রাশিয়া।

কয়লা, সিসা এবং সামুদ্রিক খাবারের আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের খসড়া প্রস্তাব সমর্থনে জাতিসংঘে ১৫-০ তে ভোটাভুটি হয়। এই অবরোধের মধ্যে উত্তর কোরিয়ার তেল সম্পদের ওপর নিষেধাজ্ঞা এবং দেশটির নেতা কিম জং উনের সম্পদ জব্দ করার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

পরমাণু কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার কারণে উত্তর কোরিয়ার ওপর এমনিতেই জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

গত সপ্তাহে ঘোষিত কঠোর কয়েকটি প্রস্তাব থেকে যুক্তরাষ্ট্র সরে আসার পর সোমবার উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন অবরোধ আরোপে সম্মত হলো জাতিসংঘ।

পিয়ংইয়ং হাইড্রোজেন বোমা বানাচ্ছে বলে দাবি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ওপর হামলার ব্যাপারে দেশটি হুমকি দেওয়া বজায় রেখেছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, সর্বসম্মতিক্রমে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে আবারো অবরোধ আরোপ করলো জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। রাশিয়া এবং উত্তর কোরিয়ার মিত্র দেশ চীনও এই অবরোধে সম্মতি জানিয়েছে।

২০০৬-এর পর এ নিয়ে দেশটির ওপর অষ্টমবারের মতো অবরোধের প্রস্তাব আনা হলো।

যদিও পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি থেকে পিয়ং ইয়ং-কে বিরত রাখা সম্ভব হয়নি। কয়লা, সীসা, তৈরি পোষাকের মতো গুরুত্বপূর্ণ সামগ্রী এবারের অবরোধের তালিকায় রয়েছে।

সোমবার নিরাপত্তা পরিষদে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে আনা অবরোধের প্রস্তাবের পক্ষে পড়েছে ১৫ ভোট, আর বিপক্ষে একটিও না।
যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে অবরোধ জারির জন্যে এই বৈঠকের আহ্বান জানায় আর তাতে রাশিয়া এবং উত্তর কোরিয়ার মিত্র দেশ চীনও সম্মতি জানালো।

পিয়ং ইয়ং সম্প্রতি যে পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে তা ছিল অত্যন্ত শক্তিশালী হাইড্রোজেন বোমার পরীক্ষা। আর ক্রমাগতই তারা যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানার বিষয়ে হুমকি দিয়ে আসছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রাথমিক প্রস্তাবে অপরিশোধিত তেল রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞাসহ কিম জান উন-এর সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের প্রসঙ্গও ছিল।
তবে জ্বালানী রপ্তানিতে সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা না দিয়ে, বর্তমান রপ্তানীর পরিমাণ আর না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সবশেষ এই অবরোধ ঘোষণায় উত্তর কোরিয়ায় কয়লা, সীসা এবং সামুদ্রিক খাবার রপ্তানিও ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা বলা হয়েছে।

গত আগস্টে আরোপ করা অবরোধের তালিকাতেও ছিল কয়লার নাম এবং সেই অবরোধের ফলে সব মিলিয়ে প্রায় এক বিলিয়ন মার্কিন ডলার পরিমাণ ক্ষতির মুখে পরার কথা উত্তর কোরিয়ার অর্থনীতির।

আগস্টের শেষ দিকে উত্তর কোরিয়ার ছোঁড়া একটি ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের আকাশসীমা অতিক্রম করে, আর তারপর থেকেই তোড়জোড় শুরু হয় নতুন করে ব্যবস্থা নেবার।

নিরাপত্তা পরিষদে সোমবারের বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবিত আরো কঠোর ব্যবস্থা থেকে সরে আসা হয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এমনও বলেছিলেন যে, যেসব দেশ উত্তর কোরিয়ার সাথে বাণিজ্য করবে তাদের সাথেও সম্পর্ক ত্যাগ করা হবে।

তবে এবারের নিষেধাজ্ঞার তালিকায় দেশটির অন্যতম আয়ের উৎস পোষাক শিল্পও থাকছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

আমেরিকা পাতার আরো খবর

জোট নিয়ে আলোচনা ব্যর্থ হলে জার্মানিতে আবার নির্বাচন

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনবার্লিন: জার্মানিতে তথাকথিত জামাইকা কোয়ালিশন আগামী জোট সরকার গঠনের আলোচনা শুরু করতে পারবে কিনা, . . . বিস্তারিত

ইয়েমেন থেকে সৌদি অবরোধ প্রত্যাহারের আহ্বান জাতিসংঘের

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএননিউইয়র্ক: দারিদ্রপীড়িত ইয়েমেনের ওপর থেকে সৌদি অবরোধ প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com