এখন কী করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প?

১০ ফেব্রুয়ারি,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আরটিএনএন

ঢাকা: সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা নিষেধাজ্ঞার ওপর ৩ জানুয়ারি স্থগিতাদেশ দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান বিচারপতি জেমস রবার্ট।


সিয়াটলের আদালতে দেয়া তার ওই স্থগিতাদেশের পর সান ফ্রান্সিসকো-ভিত্তিক নাইনথ ইউএস সার্কিট কোর্ট অব আপিলস-এর শরণাপন্ন হয় ট্রাম্প প্রশাসন। সেখানেও ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করার আপিল খারিজ করে দেয়া হয়।


আপিল খারিজ হওয়ার পর ট্রাম্প তার টুইটারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লিখেছেন, আদালতে দেখে নেব। আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা এখন ঝুঁকির মুখে।


ট্রাম্প প্রশাসনের আপিলে তাৎক্ষণিকভাবে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করার আবেদন জানানো হলেও তা অগ্রাহ্য করে বিষয়টি নিয়ে হোয়াইট হাউস ও বিচার বিভাগকে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করার কথা বলেছিল আপিল আদালত। যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রায় দিলো ফেডারেল আপিল কোর্ট। এখন কি করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প?


সাংবাদিকরা জানাচ্ছেন, সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে পরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবেন।


তবে সেখানেও রায়কে নিষেধাজ্ঞার পক্ষে নেয়া কঠিন হবে ট্রাম্প প্রশাসনের পক্ষে। নিষেধাজ্ঞার যুক্তির পক্ষে যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ না থাকা, বিচারপতিদের মধ্যে রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকা, নিষেধাজ্ঞার সঙ্গে জড়িয়ে থাকা সাংবিধানিক অবমাননার প্রশ্নগুলো ট্রাম্পের জয়ে বাধা হয়ে দাঁড়াবে।


সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞায় নিম্ন আদালতের দেয়া স্থগিতাদেশটি আপিল কোর্টও বহাল রেখেছে।


এখন সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চে ৮ বিচারপতি। ৯ম বিচারপতির নিয়োগ নিয়ে ডেমোক্র্যাট রিপাবলিকান দ্বন্দ্ব চলছে। বেঞ্চে থাকা আট বিচারপতির মধ্যে ৪ জন ডেমোক্র্যাটপন্থী। আর বাকী চারজন রিপাবলিকান।


এখন প্রথমত, আদালতের রায়কে মুসলিম নিষেধাজ্ঞার পক্ষে নিতে ট্রাম্প প্রশাসনকে ডেমাক্র্যাটপন্থী অন্তত একজন আইনজীবীর সর্মথন নিশ্চিত করতে হবে।


বিকল্প একটি পথও নিতে পারে সুপ্রিম কোর্ট। তারা বিতর্ক এড়িয়ে খোদ মুসলিম নিষেধাজ্ঞায় স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে করা ট্রাম্পের আপিল আবেদন খারিজ করে দিতে পারে। তারা বলতে পারে, অন্যান্য আদালতে যেভাবে এই মামলা চলছে সেভাবেই তা চলতে থাকবে। সেক্ষেত্রে ডিস্ট্রিক্ট কোর্টেই মামলার নিস্পত্তি হতে পারে। তবে ট্রাম্প ‘আদালতে দেখা হবে’ বলেছেন। তাই ধারণা করা হচ্ছে, সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে ভূমিকা নেবে।


নবম সার্কিট আপিল আদালত শুধু একটি ব্যাপারেই সিদ্ধান্ত নেবে। ওই কোর্ট রুলিংয়ে কেবল একটি প্রশ্ন নিস্পত্তি করার আবেদন রয়েছে। সেটি হলো, নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে দেয়া বিচারপতি জেমস রবার্টস-এর স্থগিতাদেশ যথাযথ কিনা। এ সংক্রান্ত অন্যান্য আইনি প্রশ্ন আলাদা আলাদা বিচারিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই নিস্পত্তি করতে হবে। এই নিষেধাজ্ঞা অসাংবিধানিক কিনা, সেটাও নিস্পত্তি করতে হবে ভিন্ন বিচারিক প্রক্রিয়ায়।


কিন্তু ওই সাময়িক আদেশের বিরুদ্ধে আদালতে যে লড়াই চলছে তা থেকে আভাস পাওয়া যায়, এই আপিল সুপ্রিম কোর্ট খারিজ করে দিতে পারে। ফেডারেল সরকার এ মামলায় জয়ের ক্ষেত্রে যথাযথ তথ্যপ্রমাণ আদালতে উপস্থাপন করতে পারবে কিনা কিংবা স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না হলে তাৎক্ষণিক এবং অপূরণীয় ক্ষতি কতটুকু হবে; তা নির্ধারণের সুযোগ ছিল আপিল আদালতের। নবম সার্কিট আদালতের রুলে বলা হয়, সরকার কোনো কিছুই দেখাতে পারেনি।


নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা দেশগুলোর সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের সংশ্লিষ্টতা থাকার ব্যাপারে সরকার প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেনি উল্লেখ করে এ রায় দেয়া হয়। আর এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে সাত মুসলিম প্রধান দেশের নাগরিক ও শরণার্থীদের প্রবেশে বাধা থাকছে না।


তিন বিচারপতি তাদের বৃহস্পতিবারের রায়ে বলেন, এই নিষেধাজ্ঞা অসাংবিধানিক কিনা, তা নিস্পত্তির আগে কোনোভাবেই এর বিরুদ্ধের স্থগিতাদেশ স্থগিত করা যায় না।

মন্তব্য

মতামত দিন

আমেরিকা পাতার আরো খবর

জাতিসংঘে মায়ানমারের মিথ্যাচারিতা, ‘৫ সেপ্টেম্বর থেকে কোনো সহিংসতা হয়নি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক আরটিএনএননিউইয়র্ক: এবার জাতিসংঘে অং সান সু চির বক্তব্যেরই পুনরাবৃত্তি করলেন মায়ানমারের প্রতিনিধি। জাতিস . . . বিস্তারিত

মেক্সিকোতে ভূমিকম্প: ধ্বংসস্তুপের ওপরও টিকে আছে উঁচু ভবন, এর কারণ কী?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক আরটিএনএনমেক্সিকো সিটি: ৭ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্প যখন মেক্সিকো সিটিতে আঘাত হানে তখন সেখানকার উঁচু ভবনগ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com