মায়ানমারে ১ হাজারের বেশী রোহিঙ্গা নিহতের আশংকা জাতিসংঘের

০৯ ফেব্রুয়ারি,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আরটিএনএন

নিউইয়র্ক: মায়ানমারে সেনা অভিযানে এক হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান নিহত হয়েছেন বলে আশংকা করছে জাতিসংঘ। আগের বিভিন্ন প্রতিবেদনে প্রকাশিত সংখ্যার চেয়ে বাস্তবে নিহত রোহিঙ্গার সংখ্যা অনেক বেশি, এমন আশংকা জানিয়ে এ কথা বলেন রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সঙ্গে সম্পৃক্ত জাতিসংঘের দুজন সিনিয়র কর্মকর্তা।


বাংলাদেশে সক্রিয় জাতিসংঘের দুটি পৃথক সংস্থায় কর্মরত এ দুজন মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যের অপ্রকাশিত সঙ্কট কতটা ভয়াবহ তা বাইরের দুনিয়া পুরোপুরি উপলব্ধি করতে পারছে না জানিয়েও উদ্বেগ জানান।


রাখাইন রাজ্যে গত অক্টোবর ৮ অক্টোবর থেকে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের নাম করে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর গণহত্যা-গণধর্ষণ-গণগ্রেপ্তার চালাচ্ছে মায়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীগুলো। এ পরিস্থিতিতে নিপীড়ন থেকে বাঁচতে প্রায় ৭০ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।


জাতিসংঘের দুই কর্মকর্তা পৃথক সাক্ষাৎকারে জানান, তাদের সংস্থা দুটি গত চারমাসে শরণার্থীদের যে জবানবন্দী নিয়েছে তাতে তারা এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে নিহত রোহিঙ্গার সংখ্যা এক হাজার পেরিয়ে গেছে।


এদিকে মায়ানমারের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জাউ হতাই বলেছেন, গত অক্টোবরে সীমান্ত রক্ষী পুলিশের ফাঁড়িতে হামলাকারী ‘সশস্ত্র রোহিঙ্গাদের’ বিরুদ্ধে অভিযানকালে একশ জনেরও কম মানুষ নিহত হয়েছে বলে সেনা কমান্ডারদের সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


নিহতের সংখ্যা এক হাজারেরও বেশি বলে জাতিসংঘের দুই কর্মকর্তা যে দাবি করেছেন তার বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, এই সংখ্যা আমাদের সংখ্যার চেয়ে অনেক অনেক বেশি। আমরা সরেজমিনে এটি খতিয়ে দেখব।


উল্লেখ্য, মায়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন প্রদেশে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা মুসলমান মানবেতর জীবনযাপন করছে।


বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটিতে সংখ্যালঘু এ মুসলিম জনগোষ্ঠীকে বাংলাদেশ থেকে আগত ‘অবৈধ অভিবাসী’ অপবাদ দিয়ে তাদের নাগরিকত্বের স্বীকৃতি দিতে অস্বীকার করে আসছে মায়ানমার সরকার।


গত শুক্রবার প্রকাশিত জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনারের কার্যালয়ের এক (ওএইচসিএইচআর) প্রতিবেদনে রোহিঙ্গাদের ওপর পরিচালিত সরকারি বর্বরতার কথা তুলে ধরা হয়।


প্রতিবেদনে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা শরণার্থীদের বরাতে বলা হয়েছে, রাখাইনে মায়ানমারের বিভিন্ন বাহিনী কয়েক শত রোহিঙ্গাকে হত্যা করেছে। এখনো সেখানে নির্বিচারে নারী-পুরুষ ও শিশুদের হত্যা করা হচ্ছে। চলছে ধর্ষণ ও বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগের ঘটনা।


মায়ানমারের পরিকিল্পত সন্ত্রাসী নীতির কারণে রোহিঙ্গারা নিহত হয়েছে জানিয়ে এ ঘটনায় জাতিগত নিধনের অভিযোগ উঠতে পারে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


সূত্র: রয়টার্স

মন্তব্য

মতামত দিন

আমেরিকা পাতার আরো খবর

পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনিদের বাড়িঘর উচ্ছেদ বন্ধের আহ্বান জাতিসংঘ ও ইইউর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক আরটিএনএন ঢাকা: পশ্চিমতীরের মধ্য অংশে আন্তর্জাতিক অর্থায়নে তৈরি একটি অস্থায়ী হাসপাতাল এবং ফিলিস্তিনিদের . . . বিস্তারিত

তিন লাখ ভারতীয়কে বিতাড়িত করবেন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক আরটিএনএন ঢাকা: মার্কিন মুলুকে ‘অবৈধ বসবাসকারী’ প্রায় তিন লাখ ভারতীয়কে বিতাড়িত করতে পারেন প . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com