সর্বশেষ সংবাদ: |
  • ধানের শীষের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার আজ রোববার সকাল থেকে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুরু হয়েছে
  • গাজীপুরের টঙ্গীর আরিচপুরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত, আশঙ্কাজনক অবস্থায় একজন হাসপাতালে
  • নির্বাচনের মাঠ এখনও লেভেল প্লেয়িং হয়নি: ড. কামাল
  • প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন চায় না নির্বাচন কমিশন, প্রার্থীদের সমান সুযোগ নিশ্চিতে নিরপেক্ষতার প্রশ্নে ছাড় নয় : কমিশনার শাহাদাত
  • বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার শুরু হবে ১৮ নভেম্বর, প্রথম দিন রাজশাহী ও রংপুর বিভাগ

পাক নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ অস্বীকার সেনাবাহিনীর

১২ জুলাই,২০১৮

আগামী ২৫ জুলাই পাকিস্তানে অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচনে সেনাবাহিনী বাহিনী ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টিকে বিজয়ী করার চেষ্টা করছে বলে যে অভিযোগ বের হয়েছে, তা অস্বীকার করেছে সেনাবাহিনী।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
ইসলামাবাদ: আগামী ২৫ জুলাই পাকিস্তানে অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচনে সেনাবাহিনী বাহিনী ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টিকে বিজয়ী করার চেষ্টা করছে বলে যে অভিযোগ বের হয়েছে, তা অস্বীকার করেছে সেনাবাহিনী।

আসন্ন এ নির্বাচন ‘স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষভাবে’ অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ভোটের দিন সারাদেশে প্রায় তিন লাখ ৭১ হাজার সেনা মোতায়েন করা হবে বলেও পাক সেনাবাহিনী জানিয়েছে।

পাকিস্তানের আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে সেদেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকে এই অভিযোগ উঠেছে যে, সেনাবাহিনী পাকিস্তানের রাজনীতিতে হস্তক্ষেপ করছে এবং তারা এ কাজে গণমাধ্যমকে এমনভাবে ব্যবহার করছে যাতে তেহরিক-ই ইনসাফ পার্টি ভোটে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করতে পারে।

বিশেষ করে নির্বাচনের আগে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ ও তার কন্যাকে কারাদণ্ড দেয়ার বিষয়টিকে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে দেখছেন পাকিস্তানের রাজনীতিবিদরা।

এ সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে পাক সেনা মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর রাজধানী ইসলামাবাদের অদূরে রাওয়ালপিন্ডিতে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, আসন্ন নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রগুলোর ভেতরে ও বাইরে তিন লাখ ৭১ হাজার ৩৮৮ জন সৈন্য মোতায়েন থাকবে যা ২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত ভোটে মোতায়েন সেনার চেয়ে তিনগুণ বেশি। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের অনুরোধে সাড়া দিয়ে সেনাবাহিনী আসন্ন ভোটের সময় সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সেনাবাহিনী ইমরান খানের দলকে জিতিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে নেতিবাচক জবাব দিয়ে জেনারেল গফুর বলেন, আমাদের কোনো রাজনৈতিক দল নেই। আমরা কারো আনুগত্য করি না।

ইমরান খান এরইমধ্যে সেনাবাহিনীর সঙ্গে তার দলের আঁতাতের অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন। পাকিস্তানের সেনাবাহিনী দেশটির ইতিহাসের প্রায় অর্ধেক সময় সরাসরি শাসনক্ষমতা হাতে রেখেছে। বাকি সময়েও জননির্বাচিত সরকারের ওপর মারাত্মক প্রভাব বজায় রেখেছে এই বাহিনী।

সূত্র: পার্স টুডে

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

একদিন ভারতের লালকেল্লায় ইসলামের পতাকা উড়াব: পাক মন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনইসলামাবাদ: ভারতীয় রাজনীতিতে দীর্ঘদিন দিন দাপট দেখালেও লালকেল্লায় লাল পতাকা উড়াতে পারেনি বামেরা। . . . বিস্তারিত

মায়ানমারে শতাধিক রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনইয়াঙ্গুন: মায়ানমার অভিবাসী কর্তৃপক্ষ ইয়াঙ্গুন শহরের উপকূলে একটি নৌকা থেকে শতাধিক রোহিঙ্গাকে গ্র . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com