দিল্লিতেও ১০ দিন ধরে ধর্ষিত তরুণী

১৬ এপ্রিল,২০১৮

দিল্লিতেও ১০ দিন ধরে ধর্ষিত তরুণী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
দিল্লি: ফের ধর্ষণ। ফের রাজধানী। ১৯ বছরের এক তরুণীকে অপহরণ করে একটি বাড়িতে আটকে রেখে ১০ দিন ধরে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল দিল্লির আমন বিহারে।

কুলদীপ নামে বছর তিরিশের অভিযুক্ত পলাতক। তাকে ধরতে দুটি দল গড়েছে দিল্লি পুলিশ।

দিল্লির সুলতানপুরীতে এক সময়ে একই পাড়ায় থাকত নির্যাতিতা ও কুলদীপের পরিবার। এফআইআরে ওই তরুণী জানান, বছরখানেক আগে কুলদীপের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়েছিল।

ডেপুটি কমিশনার এম এন তিওয়ারি বলেন, গত ৩০ মার্চ কুলদীপের সঙ্গে বেরিয়েছিলেন তরুণীটি। কুলদীপের সঙ্গেই রাত প্রায় সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ছিলেন। নির্যাতিতার বয়ান অনুযায়ী, কুলদীপ তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে একটি ঘরে আটকে রাখে। হাত-পা-মুখ বেঁধে বার বার ধর্ষণ করে তাকে। গত ৯ এপ্রিল তিনি পালান। সেই দিনই বাবার সঙ্গে থানায় গিয়ে এফআইআর দায়ের করেন।

তবে পুলিশের ডিসি তিওয়ারির বক্তব্য, ‘তরুণীটি ১০ দিন ধরে নিখোঁজ থাকা সত্ত্বেও নিরুদ্দেশ হওয়া বা অপহরণের কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি তার পরিবার। এই বিষয়টিও আমরা খতিয়ে দেখছি।’

কুলদীপের পরিবার ও তাদের প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, ওই বাড়িতে কাউকে আটকে রাখার কথা তারা জানতেই পারেননি। তবে কুলদীপের খোঁজ পেতে তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে পুলিশ।

সূত্র: আনন্দ বাজার

আরো পড়ুন…
বাঁচতে চাইলে পালাও, আসিফার মহিলা আইনজীবীকে হুমকি
ধর্ষণ করে খুন। অপরাধীদের আড়াল করতে জাতীয় পতাকা হাতে মিছিলের আয়োজন। তাতেও অপরাধ লোকানো যায়নি। আসিফা বানুর গণধর্ষণ ও হত্যা সারা দেশকে নাড়িয়ে দিয়েছে। ঠিক তারপরই আসিফার হয়ে আদালতে লড়তে যাওয়া আইনজীবীকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ।

ছোট্ট আসিফার হয়ে আদালতে লড়ছেন মহিলা আইনজীবী দীপিকা সিং রাজাওয়াত। ভয়েস অফ রাইটস নামে একচি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা তিনি। দুঃস্থ মহিলাদের হয়ে কাজ করে এই সংগঠন। আসিফার হয়ে তিনিই আদালতে লড়াই করতে নেমেছেন। অভিযোগ, দর্ষকদের বাঁচাতে এরপরই সক্রিয় হয়ে উঠেছে জম্মুর বার অ্যাসোসিয়েশন।

দীপিকা নিজে এই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যা নন। কিন্তু বহু আইনজীবীই তাকে জানাচ্ছেন, এই মামলা না লড়াই ভাল। তাতে অবশ্য দমে যাননি দীপিকা। তবে ঘটনাও এখানে শেষ হয়নি। দীপিকা জানাচ্ছেন, জম্মু বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বিএস স্লাথিয়া তাকে রীতিমতো হুমকি দিচ্ছেন। আসিফা মামলা থেকে দীপিকা যাতে দূরে থাকেন, তা বারবার করে তাকে বলা হচ্ছে। সোজা আঙুলে ঘি না উঠলে আঙুল ব্যাঁকানোর উপায়ও যে জানা আছে এমনটাও বলা হয়েছে তাকে।

পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে নিজেকে আর নিরাপদ মনে করছেন না তিনি। তবে লড়াইয়ের ময়দানও ছাড়ছেন না। অকুতোভয় দীপিকা বলছেন, আমি ভয় পাচ্ছি না। তবে নিরাপদও নই। কিন্তু হাল ছাড়ছি না। ওরা চাপ সৃষ্টি করে মামলা তুলে দিতে চাইছে। কিন্তু আমি ন্যায়ের পক্ষে লড়াই চালিয়ে যাব।

ইতিমধ্যে জম্মু ও কাশ্মীরের হাই কোর্টে ও সুপ্রিম কোর্টে তিনি এ ব্যাপারে অভিযোগ দায়ের করেছেন। আদালত তার অভিযোগ গ্রহণ করেছে। তার নিরাপত্তার দিকটিও নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে বাখরওয়াল সম্প্রদায়ের প্রতি স্থানীয় মানুষের বিদ্বেষকে কাজে লাগিয়েই আড়াল করার চেষ্টা চলছে অভিযুক্তদের। আইনজীবীকে হুমকির ঘটনায় তা ফের প্রমাণিত হল।

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

ভারতের সিকিম কিভাবে অর্গানিক স্টেট রাজ্য হলো?

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনদিল্লি: ২০১৬ সালের ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য সিকিমকে সম্পূর্ণ অর্গানিক স্টেট বা কেমিক্যা . . . বিস্তারিত

রাফালেও কিন্তু বিজেপির বফর্স হয়ে উঠতে পারে: সোমা চৌধুরী

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনদিল্লি: ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য ফ্রান্সে নির্মিত ৩৬টি রাফালে যুদ্ধবিমান কিনতে গিয়ে ব্যাপক দুর . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com