হায়দ্রাবাদে ভিক্ষুক ধরিয়ে দিলে ৫০০ রুপি পুরস্কার

১৪ নভেম্বর,২০১৭

রাজ্য সরকার বলছে, এপর্যন্ত ৩৬৬ জন ভিক্ষুককে ধরা হয়েছে। তাদের মধ্যে ১২৮ জনকে পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে আর ২৩৮ জন আর ভিক্ষা করবেন না এই প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর তাদেরকে বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
নয়া দিল্লি: ভারতে হায়দ্রাবাদের কর্মকর্তারা তাদের শহরকে ভিক্ষুক-মুক্ত করার একটি পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছে যেখানে একজন ভিক্ষুককে ধরিয়ে দিতে পারলে নাগরিকদেরকে ৫০০ রুপি দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে।

আগামী ১৫ই ডিসেম্বর থেকে তারা ভিক্ষুক-মুক্ত শহর হিসেবে ঘোষণা করেছেন। খবর বিবিসির।

শহরের পুলিশ কমিশনার এই লক্ষ্যে আগামী দু’মাস ভিক্ষাবৃত্তিকে নিষিদ্ধ করেছেন। সমালোচকরা বলছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পের সফরকে কেন্দ্র করে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে কর্মকর্তারা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

গত সপ্তাহে পুলিশকে বাস ও রেল স্টেশন থেকে ভিক্ষুকদের ধরে নিয়ে যেতে দেখা গেছে। তারপর তাদেরকে পাঠয়ে দেওয়া হয়েছে হায়দ্রাবাদের কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশে একটি পুনর্বাসন কেন্দ্রে।

ইভাঙ্কা ট্রাম্প একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিতে নভেম্বর মাসের শেষের দিকে হায়দ্রাবাদে যাবেন বলে কথা রয়েছে। এর আগে ২০০০ সালে প্রেসিডেন্ট ক্লিনটন যখন গিয়েছিলেন তখনো হায়দ্রাবাদে একই ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিলো। তবে সেটা ছিলো সাময়িক।

‘কারা কর্তৃপক্ষ থেকে ৫০০ রুপি উপহার দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। তাদেরই একটি বিভাগ শহরটিকে ভিক্ষুক-মুক্ত করার জন্যে কাজ করছে, ‘বলেন পুনর্বাসন কেন্দ্রের একজন কর্মকর্তা এম সাম্পাত।

তিনি জানান, এই ভিক্ষুকদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে যাতে তাদের পেট্রোল স্টেশনগুলোতে কাজ করতে পারে। রাজ্য সরকার বলছে, এপর্যন্ত ৩৬৬ জন ভিক্ষুককে ধরা হয়েছে। তাদের মধ্যে ১২৮ জনকে পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে আর ২৩৮ জন আর ভিক্ষা করবেন না এই প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর তাদেরকে বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

এর আগে তাদের কাছ থেকে বায়োমেট্রিক তথ্য সংগ্রহ করে রাখা হয়। কর্মকর্তারা বলছেন, এই অভিযান শুরু হওয়ার পর প্রায় ৫,০০০ ভিক্ষুক পাশের অন্যান্য শহরে চলে গেছেন।

এখন তাদের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে এই ভিক্ষুকরা যাতে হায়দ্রাবাদ শহরে ফিরে আসতে না পারেন তার ব্যবস্থা করা।

৫০ লাখ রুপি পাল্টাতে ব্যাংকের লাইনে ভিক্ষুক!
এর আগে ভারতে ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিলের পর থেকে নোটগুলো পাল্টানোর জন্য দেশটির ব্যাংকগুলোতে দীর্ঘ সারি কয়েকদিন থেকেই।

তবে এবার ৫০ লাখ রুপির নোট পাল্টানোর জন্য ব্যংকের লাইনে দাড়িয়েছিলেন এক ভিক্ষুক ব্যতিক্রমী একটি ঘটনা ঘটেছে দেশটির হায়দ্রাবাদ প্রদেশে।

প্রদেশের ভিখারাবাদ এলাকার একটি ব্যাংকে নোট পালাটানোর জন্য ব্যাংকে গিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। সব কিছুই স্বাভাবিক ছিল। ওই টাকা পাল্টানোর জন্য ব্যাংকের কর্মকর্তার দ্বারস্থ হন তিনি। এক কর্মকর্তা অর্থের উৎস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন তাকে। এর জবাবে হতভম্ব হয়ে যান ব্যাংকের ওই কর্মকর্তা।

ওই ব্যক্তি জানান, তিনিসহ পরিবারের সবাই ভিক্ষাবৃত্তিতে জড়িত এবং তারা এই অর্থ সঞ্চয় করেছেন। শুধু তাই নয়, ওই ভিক্ষুক আরো জানান, সম্প্রতি তিনি দুই একর জমি বিক্রি করেছেন। পরে জমির কাগজপত্র দেখা না পারায় ব্যাংকের কর্মকর্তারা তাকে ফিরিয়ে দেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

পাক সামরিক বাহিনীর সঙ্গে গভীর সম্পর্ক সৌদিকে যেভাবে সাহায্য করছে

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনইসলামাবাদ: পাকিস্তানি সামরিক কর্মকর্তারা প্রায়ই সৌদি আরবে দায়িত্ব পালন করে বলে দক্ষিণ এশিয়াভিত্ . . . বিস্তারিত

বালিতে কোথা থেকে এল এই বোয়িং বিমান?

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: এভাবেই পড়ে আছে একটি বোয়িং বিমান! ভিডিও থেকে সংগৃহীত।খোলা জানালা দিয়ে মাঝে মাঝেই ঢুকে পড়ে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com