গণহত্যায় আরাকানে বিভীষিকাময়, নদীর হাটুজলে ভাসছে লাশ আর লাশ!

১২ সেপ্টেম্বর,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
আরাকান: মায়ানমারের বৌদ্ধরা যে কতটা সহিংস্র তার প্রমাণ ক্রমেই বেরিয়ে আসছে। আরকানের একটি নদীতে হাটুজলে লাশের পর লাশ ভাসছে। এ দৃশ্য যেন বৌদ্ধদের অসভ্যতারই সাক্ষ্য দিচ্ছে। 

আরকান টিভি খবর দিয়েছে, বার্মা-বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকা মংডুর শাহাব বাজারে একটি লাশের নদীর সন্ধান পেয়েছে রোহিঙ্গারা ।

বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের একটি দল গোপনীয়ভাবে তাদের গ্রামে খাদ্যদ্রব্য নিতে আসলে পথ হারিয়ে ফেলে। দূর্গম পাহাড়ি পথ মাড়িয়ে সম্মুখে যেতে যেতে একটি নদীর পাড়ে গিয়ে থামে তারা। বাতাসে দূর্গন্ধ ভেসে আসায় নদীর পাড় ধরে এগিয়ে যায় রোহিঙ্গারা। এসময় নদীর হাটুজলে লাশের পর লাশ ভাসতে দেখে ভড়কে যায় দলটি।

প্রত্যক্ষদর্শী রোহিঙ্গা দলটির ভাষ্য, নারী, শিশু ও পুরুষের অগণিত লাশ পড়ে আছে ওই নদীতে। লাশের বিদ্ঘুটে পঁচা গন্ধ বাতাসে ছড়িয়ে পড়েছে। শেয়াল-কুকুরের খাওয়া লাশের হাড়গোড় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে বিলের ধারে ও নদীর পাড়ে। সব লাশই রোহিঙ্গার বলে জানান তারা। তাদের ধারণা পাঁচশো’র চেয়ে কম হবে না লাশের সংখ্যা।

প্রত্যক্ষদর্শী দলটি আরো জানান, নদীটি টেকনাফের নাফ নদীর কোন শাখা নদী হতে পারে। শাহাব বাজারের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া নদিটির সাতকাইন্না পাড়া এলাকায় লাশগুলো ফেলা হয়েছে বলে আন্দাজ করছে তারা।

উল্লেখ্য, ২৪ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া চলমান সেনাবাহিনীর গণহত্যায় হাজার হাজার রোহিঙ্গা হত্যার শিকার হয়েছে। এদের অনেকের লাশ গণকবর দিয়েছে সৈন্যরা। আবার অনেক লাশ জঙ্গলে ও লোকালয় থেকে বিচ্ছিন্ন নদীতে ফেলে দেয়। এ লাশগুলোও সৈন্যরা হত্যা পরবর্তী ফেলে দিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। রোহিঙ্গরা এসবের আন্তর্জাতিক তদন্ত দাবি করছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

ব্যাংক কেলেংকারি নিয়ে ‘নরেন্দ্র মোদি চুপ কেন?’

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ব্যাঙ্কিং কেলেঙ্কারি বলা হচ্ছে যাকে সেই হীরে-ব্যবসায়ী নীরব মোদ . . . বিস্তারিত

গর্ভ-ভাড়া করে জাপানী ধনকুবেরের ১৬ সন্তান

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বিভিন্ন নারীর গর্ভ ভাড়া করে কমপক্ষে ১৬টি সন্তানের জন্ম দিয়েছেন যে জাপানি পুরুষ - তাকে পি . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com