তিব্বতে লাইভ-ফায়ার এক্সারসাইজ, চীন কী ভারতের সাথে যুদ্ধে জড়িয়ে যাচ্ছে?

১৭ জুলাই,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আরটিএনএন

বেইজিং: ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনার মধ্যেই যুদ্ধের ইঙ্গিত দিয়ে তিব্বতে সেনা তৎপরতা বাড়িয়েছে চীন। প্রচুর যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে তিব্বতে লাইভ-ফায়ার এক্সারসাইজ করেছে চীনা সেনারা। এতে আন্তর্জাতিক মহল যুদ্ধের আশঙ্কা করলেও ভারত তা নাকচ দিয়েছে।


তবে চীনের সংবাদমাধ্যমে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম চীনের তিব্বতে লাইভ-ফায়ার এক্সারসাইজ হয়েছে। তবে ঠিক কবে বা কখন এই মহড়া হয়েছে, তা জানা যায়নি। শুধু একটি ফুটেজ দেখিয়ে বলা হয়েছে, চীনা আর্মির তিব্বত মিলিটারি কমান্ড এই মহড়া চালিয়েছে। এটি চীনের অন্যতম মাউন্টেন ব্রিগেড। এই তিব্বত কমান্ডই ভারত-চীন সীমান্ত বা লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের (LAC) দায়িত্বে রয়েছে।


জানা যায়, চীনের সেনা মহড়ায় ছিল দেশটির তৈরি লাইট ব্যাটল ট্যাংকসহ অনেক অত্যাধুনিক অস্ত্র। সম্প্রতি ভারতের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে ভারতের সঙ্গে অশান্তি চলছে চীনের। বারবার ভারতকে যুদ্ধের হুমকি দিয়েও আসছে বেইজিং। চীনা আর্মি ভারতে ঢুকে রাস্তা তৈরির কাজে বাধা দিয়েছে বলেও একাধিক বার অভিযোগ উঠেছে।


এতে ভারত-চীন সম্পর্ক এখন ডোকলাম সীমান্ত ইস্যুতে ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছে দেশ দুটির সেনাবাহিনী। এমন অবস্থায় অনেকেই সংঘাতের আশঙ্কা করলেও তা নাকচ করে কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চালিয়ে যাবে বলে জানিয়েছে ভারত।


সম্প্রতি এ ব্যাপারে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গোপাল বাগলে জানান, আমাদের কূটনৈতিক মাধ্যম খোলা রয়েছে। দু’দেশেই একে অপরের দূতাবাস রয়েছে। ওই মাধ্যমগুলোকে ব্যবহার করা হচ্ছে।


বাগলে মনে করিয়ে দেন, সীমান্ত সমস্যার সমাধানের জন্য ভারত ও চীনের সংগঠিত ও পারস্পরিক সম্মত পন্থা রয়েছে। এছাড়া ভারতের পক্ষ থেকে আরো জানানো হয়েছে, হামবুর্গে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং এর মধ্যে একাধিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।


জার্মানিতে অনুষ্ঠিত ঐ বৈঠকের উল্লেখ করে বাগলে বলেন, হামবুর্গে দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে কথা হয়েছে। সেখানে বিভিন্ন ইস্যু উঠে এসেছে। যদিও, ডোকালাম প্রসঙ্গে দু'জনের মধ্যে কথা হয়েছে কি না সেই নিয়ে খোলসা করেননি বাগলে। যদিও দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের কথা অস্বীকার করেছে চীন।


এনডিটিভি, টাইমস অফ ইন্ডিয়া ও ইন্ডিয়া টুডে অবলম্বনে

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

কে হচ্ছেন পাকিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী?

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনইসলামাবাদ: আদালতে অযোগ্য ঘোষিত হওয়ার পরই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন নওয়া . . . বিস্তারিত

যে কারণে প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়তে হলো নওয়াজ শরীফকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক আরটিএনএনইসলামাবাদ: পাকিস্তানের সর্বোচ্চ আদালত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে সরকারি কোনো দপ্তর পরিচালনার . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com