ব্রেকিং সংবাদ: |
  • সিনহার ব্যাংক হিসাবে অস্বাভাবিক লেনদেন, নিরঞ্জন ও শাহজাহানকে দুদকে তলব
  • জিজ্ঞাসাবাদের পর ছাড়া পেলেন বিডিজবসের প্রধান নির্বাহী
  • টরেন্টোর হামলাকারী সম্পর্কে সর্বশেষ যা জানা যাচ্ছে
  • তাবিথ আউয়াল ও আব্দুল হাই বাচ্চুকে দুদকে তলব
  • হঠাৎ কেঁপে উঠলো সিলেট, ৫ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্প
  • টরোন্টোয় গাড়িচাপায় প্রাণ গেল ১০ পথচারীর, ট্রুডোর সান্ত্বনা
  • বিজেপির শীর্ষ নেতাদের বক্তব্যে ঢাকার রাজনীতিতে তোলপাড়
  • খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে গেছেন স্বজনরা
  • কাবুলে ভোটার নিবন্ধনকেন্দ্রে হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৩
  • ২৫ বছরের যুদ্ধে সোয়া কোটি মুসলিম নিহত, যা একটি বিশ্বযুদ্ধের সমান ক্ষয়ক্ষতি
  • খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সপ্তাহব্যাপী বিএনপির নতুন কর্মসূচি ঘোষণা
  • ত্রিভুবন বিমানবন্দরের গাফিলতিই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী: ইউএস-বাংলা
  • যে শর্তে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপিকে ছাড় দিল জামায়াত

নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধে পানামা পেপারস দুর্নীতি মামলার রায় আজ

২০ এপ্রিল,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের বিরুদ্ধেপানামা পেপার্স দুর্নীতি মামলার রায় দেবে আজ। রায়ে যে কোনো কিছুই ঘটতে পারে। রায়ে নওয়াজকে প্রধানমন্ত্রীর পদও হারাতে হতে পারে।

পানামা পেপার্স দুর্নীতির অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। তার মতে, তিনি কোনো অন্যায় করেননি। কিন্তু পানামা পেপার্স তার এবং তার পরিবারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছে।

এদিকে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের সম্ভাব্য রায় নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করছে নওয়াজ শরিফের দল পিএলএম-এন। শরিফকে খালাস অথবা পুনরায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ, প্রধানমন্ত্রীর পদে অযোগ্যসহ আদালতের যেকোনো ধরনের রায় নিয়ে ভাবছেন নেতা কর্মীরা।

ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দল উভয়েই নিজেদের পক্ষে রায় পাবার বিষয়ে আশাবাদী। নওয়াজ শরিফের দলের প্রভাবশালী নেতা তালাল চৌধুরী বুধবার জিও টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, ‘এই রায় আমাদের বিরুদ্ধে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। সরকার ও আমাদের পুরো দল নিয়মানুযায়ী দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।’

তবে আদালতের রায় প্রতিকূলে গেলে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে কী করা যেতে পারে তা নিয়ে অবশ্য চিন্তিত ক্ষমতাসীন দল।

নওয়াজ শরীফ প্রধানমন্ত্রীর পদ হারালে কী হবে তা নিয়ে দলে দুই ধরনের মত পাওয়া গেছে। একদল মনে করছেন, প্রধানমন্ত্রীর পদ হারালে আগাম নির্বাচন দেয়া যেতে পারে। কারণ আগাম নির্বাচন না দিলে এই ইস্যু কাজে লাগিয়ে পরিস্থিতি ঘোলা করে সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করতে পারে বিরোধী দল। অপরদিকে, অন্য নেতাকর্মীরা মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতাচ্যুত হলেও আগাম নির্বাচন দেয়ার কোনো কারণ নেই। ২০১৮ সালে নির্ধারিত সময়েই নির্বাচনের পক্ষে তারা।

নওয়াজের ভাগ্যে কি আছে তা আদালতের রায়ের ওপরই নির্ভর করছে। প্রধানমন্ত্রীর পদে নওয়াজ বহাল তবিয়তে থাকবেন নাকি দুর্নীতির দায়ে পদ থেকে সরে দাঁড়াতে হবে তাই এখন দেখার অপেক্ষা।

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

প্রথমবারের মতো দ.কোরিয়ায় কিম, শুরু হচ্ছে ঐতিহাসিক বৈঠক

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনসিউল: এক দশকের বেশি সময় পর উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যকার ঐতিহাসিক বৈঠকে অংশ নিতে মিলিত হয়েছেন . . . বিস্তারিত

জাপানে স্কুলছাত্রীকে জোর করে চুমু!

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনটোকিও: স্কুলছাত্রীকে জোর করে চুমু খেয়ে ক্ষমা চেয়েছেন বিখ্যাত ব্যান্ডদলের এক সদস্য। ওই স্কুলছাত্র . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com