কর্মক্ষেত্রে মুসলিম নারীর প্রতি বৈষম্যের ঘটনায় সুইডিশ আদালতের যুগান্তকারী রায়

০৬ ফেব্রুয়ারি,২০১৯

কর্মক্ষেত্রে মুসলিম নারীর প্রতি বৈষম্যের ঘটনায় সুইডিশ আদালতের যুগান্তকারী রায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
স্টকহোম: সুইডেনের মুসলিম নাগরিক ২৪ বছর বয়সী ফারাহ আলহাজিহ একজন অনুবাদকের চাকরির জন্য আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তাকে চাকিরিটি দেয়া হয় নি কারণ তিনি তারা ধর্মীয় কারণে ভাইবা বোর্ডের পুরুষ সদস্যের সাথে হাত মেলাতে রাজি হননি।

তিনি সেসময় তার হাত তার বুকের কাছে ধরে রাখেন।

এদিকে সুইডিশ শ্রম আদালত চাকরিদাতা কোম্পানিটির বিরুদ্ধে ফারাহ আলহাজিহর প্রতি বৈষম্য করার কারণে কোম্পানিটির বিরুদ্ধে ৪০,০০০ হাজার সুইডিশ ক্রোনা জরিমানার দণ্ড প্রদান করে।

কিছু মুসলিম তার পরিবারে সদস্যদের ছাড়া ভিন্ন লিঙ্গের কারো সাথে হাত মেলানো বা শারীরিকভাবে ঘনিষ্ঠ হওয়া থেকে বিরত থাকেন।

বিচারক কিসের উপর ভিত্তি করে রায় দিয়েছেন?
ফারাহ আলহাজিহর শহর আপসালার অনুবাদক কোম্পানিটি আদালতে যুক্তি দিয়েছে যে, তাদের কর্মচারীদেরকে অবশ্যই নারী ও পুরুষদের সমান চোখে দেখতে হয় এবং শুধুমাত্র ভিন্ন লিঙ্গের কারণে হাত মেলানো থেকে বিরত হওয়াকে তারা অনুমতি দেন না।

কিন্তু ফারাহ বলেন, তিনি নারী বা পুরুষ যে কাউকে সম্মান দেখানোর জন্য তার হাত তার নিজের বুকের উপর জড়ো করে রাখেন।

সুইডেনের শ্রম আদালত কোম্পানিটির লিঙ্গ সমতাকে ন্যায় হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন, কিন্তু একে শুধুমাত্র হাত মেলানোর সাথে এক করার মত যৌক্তিকতা খুঁজে পাননি।

আদালত বলেন, ধর্মীয় কারণে ফারাহ তার হাত মেলানো থেকে বিরত থাকতে পারেন এবং তা ‘European Convention on Human Rights’ অনুযায়ী স্বীকৃত, একই সাথে কোম্পানিটির সুনির্দিষ্ট আচার আচরণ মুসলিমদের প্রতি বৈষম্যমূলক।

তথাপি আদালতের বিচারকদের মধ্যে এ বিষয়ে দ্বিমত দেখা দেয়। তাদের মধ্যে তিনজন ফারাহ আলহাজিহর দাবীর প্রতি সমর্থন দেন এবং দুজন বিচারক তার বিপক্ষে মত দেন।

ফারাহ আলহাজিহ কি বলেছেন?
রায় প্রকাশের পরে ফারাহা আলহাজিহ বিবিসিকে বলেন, যখন আপনি বিশ্বাস করবেন যে, আপনি সঠিক এবং যদি আপনি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের হন তার পরেও তখন আপনি ‘কখনো হাল ছেড়ে দিবেন না।’

তিনি বলেন ‘আমি সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস করি, যা সুইডেনে খুব কমই দেখা যায়। আর আমি যতক্ষণ না অবধি কাউকে আঘাত করছি ততক্ষণ আমাকে আমার ধর্ম পালন করতে দেয়া উচিত।’

প্রসঙ্গত, ফারাহ আলহাজিহ তার বিরুদ্ধে অনুবাদ কোম্পানির বৈষম্য সম্পর্কে সুইডেনের ন্যায়পালের দপ্তরে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। আর তার অভিযোগ পেয়ে ন্যায়পাল মন্তব্য করে বলেন যে, এ বিষয়টি একটি ‘জটিল ইস্যু’ এবং এতটাই গুরুত্ব পূর্ণ যে, যার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য আদালতে যাওয়া প্রয়োজন।

সূত্র: বিবিসি।

মন্তব্য

মতামত দিন

ইউরোপ পাতার আরো খবর

খেলাধুলায় মুসলিম শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে ব্রুনেল বিশ্ববিদ্যালয়ে স্পোর্টস হিজাব চালু

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনলন্ডন: চলতি মাসের ১১ তারিখ সোমবার বার্তা সংস্থা বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে যে, লন্ডন ভিত্তিক . . . বিস্তারিত

মানুষের স্মৃতি চুরি করবে হ্যাকাররা

ডেস্ক নিউজআরটিএনএনলন্ডন: কল্পনা করুন যে, আপনি ইন্সটাগ্রামের ফিডের মতো আপনার স্মৃতিগুলো স্ক্রল করে দেখছেন। বিশদভাবে দেখছে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com