ব্রিটেনের ক্ষমতাসীন পার্টির উগ্রপন্থায় দল ছাড়লেন লন্ডনের ডেপুটি প্রধান

১১ জুন,২০১৮

ব্রিটেনের ক্ষমতাসীন পার্টির উগ্রপন্থায় দল ছাড়লেন লন্ডনের ডেপুটি প্রধান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
লন্ডন: ব্রিটেনের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির নেতাদের উগ্র ডানপন্থার দিকে ঝুঁকে পড়া এবং কৃষ্ণাঙ্গ ও সংখ্যালঘু জাতিগত সম্প্রদায়ের ওপর দলটির নোংরা আচরণের কারণে লন্ডনে পার্টির ডেপুটি চেয়ারম্যান কিশান দেবানি দল ছেড়েছেন।

পার্টির এই আচরণের কারণে উদ্বাস্তু দম্পতির সন্তান হিসাবে আয়নায় তার নিজেকে দেখতে ‘অক্ষম’ ছিলেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

সাবেক টরি পার্টির নেতাদের উগ্র ডানপন্থায় ঝুঁকে পড়া এবং ইসলামোফোবিয়া মোকাবেলায় ব্যর্থতার অভিযোগ করেন কিশান দেবানি।

বর্তমানে তিনি লিবারেল ডেমোক্রেটদের সঙ্গে যুক্ত আছেন। তিনি বলেন, দলের মনোভাব তাকে ‘খুব অস্বস্তিকর’ অবস্থায় ফেলে দিয়েছিল।

ব্রিটিশ প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইন্ডিপেন্ডন্ট’কে তিনি বলেন, ‘পার্টির অনেক সমস্যার একটি ছিল ইসলামোফোবিয়া। আমি মনে করি ব্রেক্সিট ভোটের পর পার্টির বৃহত্তর ইস্যুটি হচ্ছে- ডানপন্থার দিকে ঝুঁকে পড়া- যা পরিষ্কারভাবে পার্টির সাধারণ দৃষ্টিভঙ্গি উপর একটি উল্লেখযোগ্য প্রভাব রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এটি বিভিন্ন সমস্যার একটি অংশ মাত্র। বর্তমানে এটি মুসলিম সম্প্রদায়ের সঙ্গে শুরু হয়েছে, কিন্তু এর শেষ কোথায়?’

কিশান বলেন, ‘সমাজের গভীরতা থেকে এটা উপলদ্ধি করা প্রয়োজন। আমাদের এসব সহ্য করা মোটেই উচিৎ হবে না। আমাদের রাজনৈতিক আনুগত্য বা রাজনৈতিক পটভূমি যাই হোক না কেন, কারো কাছ থেকে আমরা এই ধরনের আচরণ সহ্য করতে পারি না।’

তিনি বলেন, ‘তাদের পিছনে থাকতে, তাদের সমর্থন করতে, তাদের পক্ষে প্রচার করতে, তাদের জন্য ভোট চাইতে এবং তাদের জন্য কাজ করতে আমি আরাম বোধ করিনি এবং আমি যদি এরকম অনুভব করি, তবে আমার ধারণা- আমার মতো অন্যরাও এইরকম অনুভব করছে।’

গত বছরের শেষের দিকে কনজারভেটিভ পার্টির পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন কিশান দেবানি। তারপর থেকেই তিনি লিবারেল ডেমোক্রেটসের ট্রেজারি দূত হিসেবে নিযুক্ত হন।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে, কনজারভেটিভ পার্টির নেতাদের বিরুদ্ধে বর্ণবাদ ও ইসলামোফোবিয়ার বিভিন্ন অভিযোগ ওঠেছে।

এসব অভিযোগ তদন্তের জন্য যুক্তরাজ্যের মুসলিম কাউন্সিল ও ১১টি অন্যান্য কাউন্সিলের আহ্বানের পর কিশান দেবানির পক্ষ থেকে এসব মন্তব্য এলো।

কনজারভেটিভ পার্টির কাউন্সিলর ও দলের সদস্যরা সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টিংয়েও ইসলামফোবিক এবং বর্ণবাদী কন্টেন্ট শেয়ার করছেন। গত দুই মাসে এই ধরনের অন্তত ১২টি পোস্টের ব্যাপারে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

ইউরোপ পাতার আরো খবর

‘একজন তো আমার জীবন নরক করে তুলেছিল’

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনপ্যারিস: প্রধানত যুদ্ধ-বিগ্রহ থেকে পালানো লোকজনের স্বাস্থ্য সেবা দেওয়ার জন্য ফরাসী এই দাতব্য প . . . বিস্তারিত

তুর্কি প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও এরদোগানের ভবিষ্যৎ, কী বলছেন বিশ্লেষকরা

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনআঙ্কারা: চলতি মাসে রাশিয়ায় শুরু হওয়া বিশ্বকাপ ফুটবলই একমাত্র বিশ্বব্যাপী গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট নয . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com