অস্ট্রেলিয়ার দুর্ধর্ষ ডাকাত আববার্টন কারাগারে

১৫ ফেব্রুয়ারি,২০১৮

অস্ট্রেলিয়ার দুর্ধর্ষ ডাকাত আববার্টন কারাগারে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
সিডনি: সশস্ত্র ডাকাতির অভিযোগ গ্রেপ্তার সিডনি সার্ফ গ্যাং ‘দ্য ব্রা বয়েজেস’ এর প্রতিষ্ঠাতা জেই আববার্টনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

একটি আক্রমণাত্মক অস্ত্র দিয়ে সশস্ত্র ডাকাতির অভিযোগ ওঠা ৪৩ বছর বয়সী সাবেক এই পেশাদার সার্ফারের জামিন আবেদন আদালত নাকচ করে দেয়।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে চুরি করার অভিপ্রায়ে একটি আবাসিক এলাকায় প্রবেশেরও অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গত বছরের ডিসেম্বরে সাউথ কোগি ইউনিটে ৪৩ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে ছুরি দিয়ে মারাত্মক জখম ও মারধর করেছিলেন। পরে ওই ব্যক্তিতে হাসপাতালে নিয়ে চিকিত্সা দেয়া হয়েছিল।

গত বছরের ১২ ডিসেম্বরের ওই ঘটনা তদন্তের পর বুধবার পুলিশ আববার্টনকে গ্রেপ্তার করে। বৃহস্পতিবার তাকে ওয়েভলি স্থানীয় আদালতে নেয়া হলে তার জামিন আবেদন প্রত্যাখ্যান করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়।

আদালতের শুনানিতে বলা হয়, গত বছরের ১২ ডিসেম্বর তারিখে আববার্টন অন্য আরো দুজন ব্যক্তিকে নিয়ে সাউথ কোগি’তে তার পরিচিত এক ব্যক্তির বাড়ি যান। পরে তারা ওই ব্যক্তিকে মারধর করেন।

পুলিশ অভিযোগ করেন যে, আববার্টনের এক সহকর্মী ওই বাড়ির রান্নাঘর থেকে ধারালো ছুড়ি এনে লোকটির বাম পায়ের পিছনটা কেটে ফেলেন। এর আগে অ্যাববারটন ওই লোকের কুকুরটিকে তার বেডরুমে আটকে রাখেন যাতে কুকুরটি লোকটিকে রক্ষা করতে না পারে।

অভিযোগে আরো বলা হয়, পরে তিনি লোকটির মানিব্যাগ, বিপুল পরিমান গাঁজা এবং ভ্যালিয়াম চুরি করেন।

শুনানি শেষে ম্যাজিস্ট্রেট লিসা স্ট্যাপল্টন তার জামিনের আবেদন প্রত্যাখ্যান করেন এবং ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত সেন্ট্রাল লোকাল আদালতে মামলাটি মুলতবি রাখেন।

দুই বছর আগে তার ভাই কোবি আববার্টন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন যে জেই আববার্টন ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন।

ওই সময় কোবি বলেছিলেন, ‘জেই মসজিদে যাচ্ছেন এবং রমজানের মাধ্যমেই সে ইসলামে এসেছে।’

সূত্র: দ্য মেইল অনলাইন

তৃতীয় লিঙ্গের জন্য ক্রীড়াঙ্গনের দুয়ার খুলছে অস্ট্রেলিয়া
তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য ক্রীড়াঙ্গনের দুয়ার খুলতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে তাদের ফুটবল মাঠে নামার অনুমতি দিতে একমত হয়েছে দেশটির ফুটবল ফেডারেশন।

সকারুজ ফুটবল ফেডারেশন দেশের দ্বিতীয় বিভাগের নারী ফুটবল লিগে তৃতীয় লিঙ্গের খেলোয়াড়দের অংশগ্রহণের অনুমোদন দিয়েছে। সেই সঙ্গে প্রথম বিভাগেও সুযোগ দেয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে।

গত বছর হান্না মাউনসি নামে তৃতীয় লিঙ্গের একজন খেলোয়াড়কে দলে ভেড়াতে মরিয়া ছিল কয়েকটি ক্লাব। কিন্তু শারীরিকভাবে শক্তিতে নারীদের চেয়ে বেশি এগিয়ে থাকবে, এই কারণে ৬ ফুট ২ ইঞ্চির ওই খেলোয়াড়কে আটকে দেয় লিগ কমিটি।

তবে এবার সেই আপত্তি তুলে দিয়ে তৃতীয় লিঙ্গের জন্য পর্দা ওঠানো হল। মঙ্গলবারই এএফএল মাউনসিকে দ্বিতীয় বিভাগে খেলা অনুমতি দেয়। এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরা। সঙ্গে এটি নিয়ে সম্প্রতিচলা তর্ক-বিতর্ককে ‘সার্কাস’ বলে উলে¬খ করেছে তারা।

অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় লিগ কর্তৃপক্ষ বলছে, লিঙ্গ বৈচিত্র্য নীতি চূড়ান্ত করা হচ্ছে। আর আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি এই চুক্তির পর্যালোচনা করছে। অস্ট্রেলিয়ান স্পোর্টস কমিশন এবং মানবাধিকার কমিশনও সেদেশের খেলাধুলায় তৃতীয় লিঙ্গের অংশগ্রহণ কাঠামোর উপর কাজ করে যাচ্ছিল। ওয়েবসাইট।

মন্তব্য

মতামত দিন

অন্যান্য পাতার আরো খবর

‘জাতীয় লজ্জা’র জন্য ক্ষমা চাইলেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনক্যানবেরা: রাষ্ট্রের দিক থেকে গাফিলতি রয়েছে স্বীকার করে যৌন হেনস্থার শিকার শিশু এবং তাদের অভিভা . . . বিস্তারিত

প্রশান্ত মহাসাগরীয় তিন দ্বীপে সুনামি সতর্কতা জারি

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনসিডনি: প্রশান্ত মহাসাগরে ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর তিনটি দ্বীপ নিউ ক্যালিডনিয়া, ফিজি ও ভানুয়াতুতে সুন . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com