সর্বশেষ সংবাদ: |
  • বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর প্রার্থিতা বৈধ করবে বলে জানিয়েছেন আদালত, অ্যাটর্নি জেনারেলের মতামত নেওয়ার পর আদেশ
  • তিন আসনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে দায়ের করা রিটের শুনানি চলছে
  • সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সংবিধান, ভোটার ও রাজনৈতিক নেতাদের কাছে দায়বদ্ধ নির্বাচন কমিশন : সিইসি

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রের যোগান দিচ্ছে উত্তর কোরিয়া!

১৬ এপ্রিল,২০১৮

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রের যোগান দিচ্ছে উত্তর কোরিয়া!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
নিউইয়র্ক: সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির উপাদান সরবরাহ করছে উত্তর কোরিয়া৷ এমনটাই আশঙ্কা করছে জাতিসংঘ। উত্তর কোরিয়া জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা পালন করছে কি না সে বিষয়ে তদারকিতে থাকা কমিটি বিশেষ রিপোর্ট তৈরি করেছে।

সম্প্রতি মার্কিন সংবাদমাধ্যমে সেই রিপোর্ট ফাঁস হয়েছে।

মার্কিন গণমাধ্যমের প্রতিবেদনগুলো বলছে, উত্তর কোরিয়া বেআইনিভাবে সিরিয়ায় অ্যাসিড প্রতিরোধক টাইলস, ক্ষয়প্রতিরোধক ভালভ ও থার্মোমিটার পাঠিয়েছে। সিরিয়ার সরকারি বাহিনী ক্লোরিন গ্যাস ব্যবহার করেছে এমন অভিযোগও উঠেছে।

জাতিসংঘের রিপোর্ট অনুযায়ী, পিয়ংইয়ংয়ের ক্ষেপণাস্ত্র বিশেষজ্ঞদের সিরিয়ার অস্ত্র তৈরির কারখানাগুলিতে নিয়োগ করা হয়েছে৷ অ্যাসিড প্রতিরোধক টাইলস রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির কারখানা নির্মাণে ব্যবহৃত হচ্ছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল বলছে, ২০১৬ সালের শেষ দিক থেকে ২০১৭ সালের প্রথমদিক পর্যন্ত একটি চীনা ট্রেডিং ফার্মের মাধ্যমে পাঁচটি চালান সিরিয়ায় পাঠানো হয়েছে।

সিরিয়ার সরকারি সংস্থা দ্য সায়েন্টিফিক স্টাডিজ এন্ড রিসার্চ সেন্টার (এসএসআরসি) কয়েকটি ফ্রন্ট কোম্পানির মাধ্যমে এসব চালানের মূল্য দিয়েছে বলে দাবি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের। ওয়াশিংটন পোস্টও রাষ্ট্রসংঘের ওই রিপোর্টের সত্যতা দাবি করেছে।

আরও পড়ুন......
পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে উত্তর কোরিয়া
পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে উত্তর কোরিয়া, এপ্রিলে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে শীর্ষ বৈঠকে বসবে কিম জং উন।

মঙ্গলবার (৬ মার্চ) উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানানো হয়।

উত্তর কোরিয়ার ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ যুক্তরাষ্ট্রের
উত্তর কোরিয়ার ওপর আরো কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুক্রবার নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন। এরপরই দেশটির অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে নিষেধাজ্ঞার কথা জানানো হয়।

এই নিষেধাজ্ঞায় উত্তর কোরিয়া যাতে চোরাই পথে ব্যবসা-বাণিজ্য না করতে পারে সেই উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) মেরিল্যান্ডে দেওয়া এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দেন। খবর রয়টার্সের

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়াকে পরমাণু প্রকল্প ত্যাগ করতে হবে। তাই এই যাবৎকালের সবচেয়ে বড় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন অর্থমন্ত্রণালয় এই নিষেধাজ্ঞার তথ্য ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে।

ওয়েবসাইটে দেখা গেছে, এক ব্যক্তি, ২৭ কোম্পানি এবং ২৮টি জাহাজের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে ওইসব কোম্পানির সম্পদ জব্দ করা হবে এবং মার্কিনীরা এগুলোর সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারবে না। যুক্তরাষ্ট্র এমন সময়ে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলো যখন দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার আলোচনার কথা চলছে।

উল্লেখ্য, উত্তর কোরিয়া ২০০৬ সালের ৯ অক্টোবর সর্বপ্রথম পারমানবিক বোমার সফল পরীক্ষা চালায়। পরে ২০০৮ সালে দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র। তখন থেকেই বিরতিহীন ভাবে দেশটির ওপর আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে আসছে।

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে নিঃশর্ত আলোচনা চায় যুক্তরাষ্ট্র
ওয়াশিংটন: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন বলেছেন, উত্তর কোরিয়াকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করার লক্ষ্যে পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে কোনো পূর্বশর্ত ছাড়াই আলোচনায় বসতে প্রস্তুত রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার ওয়াশিংটনের আটলান্টিক কাউন্সিলের এক বৈঠকে মার্কিন সরকারের এ প্রস্তুতির কথা ঘোষণা করেন তিনি।

উত্তর কোরিয়াকে যুক্তরাষ্ট্রসহ গোটা বিশ্বের এক নম্বর হুমকি হিসেবে উল্লেখ করে টিলারসন দাবি করেন, উত্তর কোরিয়ার হুমকি এতটাই শক্তিশালী যে ওই হুমকিকে এখন আর উপেক্ষা করার সুযোগ নেই।

মার্কিন সরকার তার কৌশলগত ধৈর্যের সমাপ্তি ঘটাতে চায় বলেও মন্তব্য করেন টিলারসন। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, উত্তর কোরিয়ার ব্যাপারে ওয়াশিংটনের দৃষ্টভঙ্গি অত্যন্ত স্পষ্ট এবং যুক্তরাষ্ট্র কোরিয় উপদ্বীপকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত দেখতে চায়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর কোরিয় উপদ্বীপে উত্তেজনা তুঙ্গে ওঠে। ট্রাম্প বহুবার উত্তর কোরিয়াকে ধ্বংস করে ফেলার হুমকি দিয়েছেন।

ওয়াশিংটন চায় উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু অস্ত্রগুলো ধ্বংস করা হোক। কিন্তু পিয়ংইয়ং বলছে, যতদিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের উত্তর কোরিয়া বিরোধী বিদ্বেষী নীতি চলবে ততদিন নিজের অস্ত্র কর্মসূচি শক্তিশালী করে যাবে দেশটি।

মন্তব্য

মতামত দিন

মধ্যপ্রাচ্য পাতার আরো খবর

প্রতিরক্ষা শক্তি নিয়ে কারো সঙ্গে আলোচনা করে না ইরান: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনতেহরান: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, আমাদের প্রতির . . . বিস্তারিত

মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম দেশ হিসেবে ‘ওপেক’ ত্যাগের ঘোষণা দিল কাতার

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনদোহা: ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে তেল রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংস্থা ওপেক থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দি . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com