ফিলিস্তিনের সঙ্গে সংযুক্ত প্রধান সড়ক বন্ধ করে দিয়েছে ইসরাইল

১১ জানুয়ারি,২০১৮

ফিলিস্তিনের সঙ্গে সংযুক্ত প্রধান সড়ক বন্ধ করে দিয়েছে ইসরাইল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
পূর্ব জেরুজালেম: জেরুজালেম নিয়ে ট্রাম্পের ঘোষণার পর থেকে ফিলিস্তিনিদের ওপর দমনপীড়ন অব্যাহত রেখেছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। এরই অংশ হিসেবে বুধবার পশ্চিম তীরের নাবলুসের সঙ্গে সংযুক্ত প্রধান একটি সড়ক বন্ধ করে দিয়েছে ইসরাইল।

ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ‘ওয়াফা নিউজ এজেন্সি’ জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে গুলিতে একজন ইসরাইলি সেটেলার নিহত হওয়ার পর ‘হুয়ারা চেকপয়েন্ট’ বন্ধ করে দিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী।

গুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক বন্ধ করে দেয়ায় পশ্চিম এবং রামাল্লার বিভিন্ন স্থানে পৌঁছানোর জন্য যাত্রীরা দীর্ঘ ও বিকল্প পথ বেছে নিতে বাধ্য হচ্ছে।

এছাড়াও, ক্রিসমাসের প্রাক্কালেও পশ্চিম তীরের শহর রামাল্লা ও আল-বিরেহের প্রবেশপথ অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেয় ইসরাইল।

এদিকে, মঙ্গলবার রাতের ওই হত্যার প্রতিশোধ নিতে নাবলুস ও এর পাশ্ববর্তী কয়েকটি গ্রামে অভিযান চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী।

গত বছরের ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানীর স্বীকৃতির পাশাপাশি তেল আবিব থেকে তার দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তরের ঘোষণা দেন। তার এই ঘোষণার পর থেকে পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম ও গাজা স্ট্রিপে বিক্ষোভ ও সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে।

তারপর থেকে এপর্যন্ত ইসরাইলি বাহিনী অন্তত ১৩জন ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। তবে, আনঅফিসিয়াল পরিসংখ্যানে নিহতদের সংখ্যা ৩০ থেকে ৪০ এর মধ্যে হতে পারে। এছাড়াও, অন্তত ২,৯০০ জন আহত হয়েছে এবং ৪০০ জনেরও বেশি লোককে আটক করা হয়েছে।

সূত্র: সিয়াসাত ডটকম

জেরুজালেম ‘বিক্রির জন্য নয়’: ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র
অর্থ সহায়তা বন্ধ করে দেয়ার হুমকি পাওয়ার পর ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের কার্যালয় বলেছে, জেরুজালেম ‘বিক্রির জন্য নয়'। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই সহায়তা বন্ধের হুমকি দেন।

এট টুইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমরা ফিলিস্তিনিদের বছরে শত শত মিলিয়ন ডলার দেই। কিন্তু বিনিময়ে কোনো সম্মান পাই না। ফিলিস্তিনিরা যেহেতু আর আলোচনায় বসতে আগ্রহী নয়, তাহলে কেন আমরা ভবিষ্যতে তাদের এত সহায়তা দেবো?'

এর আগে গতমাসে জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এর প্রতিক্রিয়ায় ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস তখন বলেছিলেন, মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র আর কোনো ভূমিকা রাখতে পারবে না।

ট্রাম্পের হুমকির প্রতিক্রিয়ায় ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র নাবিল আবু রুদাইনা এএফপিকে বলেন, ‘ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের চিরন্তন রাজধানী হলো জেরুজালেম এবং এটা সোনা কিংবা অর্থের বিনিময়ে বিক্রয়যোগ্য নয়।'

তিনি বলেন, ‘আমরা আলোচনার টেবিলে ফিরে যাবার বিরোধী নই। কিন্তু তা হতে হবে আন্তর্জাতিক আইন ও নীতির ভিত্তিতে, যেখানে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র ও পূর্ব জেরুসালেমকে ঐ রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।'

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র সরকারের হিসেব অনুযায়ী, ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্র ফিলিস্তিনকে ৩১৯ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিয়েছিল।

মন্তব্য

মতামত দিন

মধ্যপ্রাচ্য পাতার আরো খবর

ইসরাইলের মদদদাতা ট্রাম্প প্রশাসন যেভাবে ফিলিস্তিন সমস্যাকে দীর্ঘায়িত করছে

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনপশ্চিম তীর: সাম্প্রিতক সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্প প্রশাসনের নেয়া প্রত্যেকটি পদক্ষেপে কথায় এবং . . . বিস্তারিত

হোসনি মুবারকের ২ ছেলে আটক

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনকায়রো: মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মুবারকের দুই ছেলেকে আটক করা হয়েছে। দুর্নীতির অভিযোগে তাদে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com