জেরুজালেম ইস্যুতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিনবিরোধী বিক্ষোভ

০৭ ডিসেম্বর,২০১৭

জেরুজালেম ইস্যুতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিনবিরোধী বিক্ষোভ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
জেরুসালেম: ডোনাল্ড ট্রাম্প অধিকৃত ফিলিস্তিনের জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে একতরফাভাবে স্বীকৃতি দেয়ার পর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিনবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়েছে।

বিশ্বের বেশ কয়েকটি ধর্মের জন্যই পবিত্র ভূমি হিসেবে পরিচিত জেরুজালেম।

বুধবার ট্রাম্প আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি ঘোষণার পর পরই গাজার রাজপথে নেমে আসেন ফিলিস্তিনিরা। তাৎক্ষণিক বিক্ষোভে যোগ দেন হামাস নেতারাও।

বিক্ষোভকারীরা এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে পুরো মুসলিম সম্প্রদায়কে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান। এছাড়া তিন দিনের শোক দিবস পালনের ঘোষণাও দেয়া হয় গাজায়।

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বলেছেন, সহিংসতাকে আরো উসকে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। বিক্ষোভ হয়েছে তুরস্কেও। এর আগে ট্রাম্পের একতরফা এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তিনি জানান, মুসলিমরা তাদের দাবি আদায়ে লড়বেন।

রাতেই বিক্ষোভ হয় লেবাননে। হাজার হাজার মানুষ ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসে।

১৯৪৮ সালে ইহুদি রাষ্ট্র হিসেবে ইসরাইল প্রতিষ্ঠার পর যুক্তরাষ্ট্রই প্রথম জেরুজালেমকে তাদের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিল। স্থানীয় সময় বুধবার দুপুরে হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর থেকেই জেরুজালেমকে নিজেদের রাজধানী হিসেবে দাবি করে আসছেন ইহুদিরা। যদিও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কখনোই এ দাবিকে মেনে নেয়নি। ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ৭০ বছর পর বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানীর স্বীকৃতি দিল যুক্তরাষ্ট্র।

ট্রাম্পের ঘোষণার পর ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘর্ষ শুরু

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার পর অধিকৃত ভূখণ্ডে ফিলিস্তিন ও ইহুদিবাদী ইসরাইলিদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়ে গেছে।

ট্রাম্প সারা বিশ্বের বিরোধিতা ও প্রতিবাদ উপেক্ষা করে এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ফিলিস্তিনের জেরুজালেম বা বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বুধবার রাতে এ সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ল। তবে এখনো ক্ষয়ক্ষতির বিস্তারিত খবর পাওয়া যায় নি।

ট্রাম্পের এই ঘোষণার আগে সারা বিশ্ব থেকে সতর্ক করা হয় যে, এ ধরনের ঘটনা মধ্যপ্রাচ্যে নতুন করে সহিংসতা ছড়িয়ে দেবে। কিন্তু ট্রাম্প এসব সতর্ক বার্তা মোটেই আমলে নেন নি।

এরইমধ্যে গাজা উপত্যকা ও বেথলহাম শহরে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছবি এবং গাজা উপত্যকায় ট্রাম্পের কুশপুত্তলিক পোড়ানো হয়েছে। এছাড়া, ট্রাম্পের ঘোষণার প্রতিবাদে বেথেলহাম শহরে খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের লোকজন বড়দিন উপলক্ষে সাজানো ক্রিসমাস ট্রি’র আলোকসজ্জার সুইচ বন্ধ করে দেন। বড়দিনে আলোকসজ্জা চালু করা হবে কিনা তা নিশ্চিত নয়। ফিলিস্তিনি স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস মার্কিন সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

মধ্যপ্রাচ্য পাতার আরো খবর

হামাসের যুদ্ধবিরতির ঘোষণায় ইসরাইলের ‘না’

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনগাজা: ইসরাইলের সঙ্গে একটি যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিয়েছে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার নিয়ন্ত্রণকারী হামাস। গ . . . বিস্তারিত

আফগান যুদ্ধ অবসানে সমন্বিত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান ইসলামি নেতাদের

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনরিয়াদ: সৌদিতে অনুষ্ঠেয় বিশ্বের নেতৃস্থানীয় ইসলামি পণ্ডিতদের একটি সম্মেলন থেকে আফগানিস্তানে চলম . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com