‘ফিলিস্তিন মুক্ত হবে, বিজয় মুসলমানদের’

০৬ ডিসেম্বর,২০১৭

‘ফিলিস্তিন মুক্ত হবে, বিজয় মুসলমানদের’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
তেহরান: ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি বলেছেন, ফিলিস্তিন মুক্ত হবে এবং বায়তুল মোকাদ্দাসকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণার তৎপরতা থেকে তাদের অক্ষমতাই ফুটে উঠেছে। তিনি বলেন, চূড়ান্তভাবে মুসলমানরাই বিজয়ী হবে।

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নাবী উপলক্ষে বুধবার তেহরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক ইসলামি ঐক্য সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী শত শত বিদেশি অতিথি, মুসলিম দেশগুলোর রাষ্ট্রদূত ও ইরানের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদেরকে দেয়া এক সাক্ষাতে তিনি এসব কথা বলেন।

সর্বোচ্চ নেতা আরো বলেন, ইসলামের শত্রুরা বায়তুল মোকাদ্দাস (জেরুজালেম)-কে দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করবে বলে দাবি করছে। এ তৎপরতা থেকে তাদের দুরবস্থা ও অক্ষমতাই ফুটে উঠেছে। মুসলিম বিশ্ব শত্রুদের ষড়যন্ত্র রুখে দেবে। ফিলিস্তিন ইস্যুতে শত্রুদের লক্ষ্য পূরণ হবে না বলেও তিনি ঘোষণা করেন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি বলেন, বর্তমানে মহানবী (সা.)’র নির্দেশিত পথ ও মুসলিম উম্মাহ’র বিরুদ্ধে যারা ঐক্যবদ্ধ হয়েছে তাদের মধ্যে সাম্রাজ্যবাদী যুক্তরাষ্ট্র ও বর্ণবাদী ইসরাইলের পাশাপাশি মুসলিম দেশগুলোর কিছু লম্পট ও চরিত্রহীনও রয়েছে।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, ইসরাইল এবং তাদের অনুসারীরাই হচ্ছে বর্তমান যুগের ফেরাউন। তিনি আরো বলেন, মার্কিন শাসক গোষ্ঠী এখন মধ্যপ্রাচ্যে নতুন যুদ্ধ বাধানোর চেষ্টা করছে। তারা নতুন যুদ্ধের মাধ্যমে ইসরাইলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায়। দুঃখজনকভাবে মধ্যপ্রাচ্যের কোনো কোনো দেশের শাসক ও নেতারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাল মেলাচ্ছে।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, যারা যুদ্ধ চায় এবং যুদ্ধই যাদের নীতি, তাদেরকে আমরা পরামর্শ দিচ্ছি। আমরা বলছি, জালিমদেরকে সহযোগিতা করার মাধ্যমে তারা নিজেরাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। মধ্যপ্রাচ্যের কোনো কোনো সরকার যেসব কাজ করছে কুরআনের বক্তব্য অনুযায়ী তাদের ধ্বংস অনিবার্য।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি আরো বলেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান ঐক্যের পক্ষে এবং কোনো মুসলিম জাতির সঙ্গে ইরানের কোনো ধরণের বিরোধ নেই।

ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্রকে না হটানো পর্যন্ত প্রতিরোধ চলবে: ইরান

ইহুদিবাদী ইসরাইল ধ্বংস এবং মধ্যপ্রাচ্য থেকে সর্বশেষ মার্কিন সেনাকে হটিয়ে না দেয়া পর্যন্ত প্রতিরোধ সংগ্রাম চলবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর সিনিয়র মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাসুদ জাযায়েরি। ইরাক ও সিরিয়ায় উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের পতন উপলক্ষে তেহরানে এক বক্তব্যে তিনি এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেন।

আইএসের পতনে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে অভিনন্দন জানান জেনারেল জাযায়েরি। তিনি বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্র ইসলামের ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ন করার লক্ষ্যে এই জঙ্গি গোষ্ঠীকে সব রকম পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে লেলিয়ে দিয়েছিল।

জেনারেল জাযায়েরি বলেন, আইএসকে দিয়ে নৃশংস উপায়ে মানুষ হত্যা করে সেই ঘটনার ভিডিও চিত্র বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত প্রতিরোধ সংগ্রামের মাধ্যমে আইএসকে নির্মুল করা সম্ভব হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র বলেন, ইসলামি বিপ্লবের বিজয় থেকে আজ পর্যন্ত ইহুদিবাদী ইসরাইল ও সাম্রাজ্যবাদী যুক্তরাষ্ট্র ইরানের বিরুদ্ধে বহু ষড়ন্ত্র করলেও তার কোনোটিই সফল হয়নি।

জেনারেল জাযায়েরি বলেন, মধ্যপ্রাচ্য থেকে মার্কিন সেনাদের বহিস্কারের ওপর এই অঞ্চলে শান্তি, স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার বিষয়টি নির্ভর করছে। মধ্যপ্রাচ্যের জননির্বাচিত ও বৈধ সরকারগুলোর মধ্যে ঐক্য ও সংহতি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এ অঞ্চল থেকে বিদেশি সেনাদের হটিয়ে দেয়া সম্ভব বলে তিনি মন্তব্য করেন।

ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের সব যুদ্ধের পরিকল্পনাকারী হচ্ছে মার্কিন সরকার, কাজেই এ অঞ্চলে সংঘটিত গণহত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞের জন্য ওয়াশিংটনই দায়ী। তিনি বলেন, এসব অপরাধের জন্য মার্কিন শাসকদের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া প্রয়োজন।

মন্তব্য

মতামত দিন

মধ্যপ্রাচ্য পাতার আরো খবর

ছবিতে হামাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী, জেরুজালেম রক্ষার অঙ্গীকার

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনগাজা: বৃহস্পতিবার গাজা উপত্যকায় পালিত হয়েছে ফিলিস্তিনের মুক্তি আন্দোলনের সশস্ত্র সংগঠন হামাসের . . . বিস্তারিত

সৌদি ও মার্কিন অস্ত্রে  আইএসের যুদ্ধ!

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনলন্ডন: মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সৌদি ও মার্কিন অস্ত্র দিয়ে যুদ্ধ ক . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com