এবার আমেরিকার পক্ষ নিয়ে ইউনেসকো থেকে প্রত্যাহারের ঘোষণা দিল ইসরাইল

১৩ অক্টোবর,২০১৭

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
তেল আবিব: এবার জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেসকোর বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে ওই সংস্থা থেকে নিজেদের প্রত্যাহারের ঘোষণা দিলেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। ইউনেসকো থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সদস্য প্রত্যাহারের কয়েক ঘন্টা পর ইসরাইলের পক্ষ থেকে এই ঘোষণা এল। খবর বিবিসির।

এর আগে বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেসকো-তে ইসরাইল-বিরোধী পক্ষপাত আছে, এই অভিযোগ তুলে ওই সংস্থা থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণা দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

সিরিয়াতে পালমিরা বা আমেরিকায় গ্র্যান্ড ক্যানিয়নের মতো বহু স্থানকে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের স্বীকৃতি দেওয়ার জন্যই ইউনেসকো সারা বিশ্বে পরিচিত।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, ইউনেসকোতে আর্থিক ঘাটতি যেভাবে বাড়ছে তা নিয়েও তারা চিন্তিত এবং ওই সংস্থায় আমূল সংস্কার প্রয়োজন।

ইউনেসকোর প্রধান ইরিনা বোকোভা বলেছেন, মার্কিন প্রত্যাহারের এই সিদ্ধান্ত ‘গভীর আক্ষেপের’।

বোকোভা আরও মন্তব্য করেছেন আমেরিকার বিদায় ‘জাতিসংঘ পরিবার’ তথা বহুপাক্ষিকতার জন্যই বিরাট এক ক্ষতি।
মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, প্যারিস-ভিত্তিক ইউনেসকো থেকে তাদের প্রতিনিধিদের প্রত্যাহার করে নিয়ে সেই জায়গায় তারা একটি ‘পর্যবেক্ষণ মিশন’ স্থাপন করবে।

এর আগে ইউনেসকোর নেওয়া একের পর এক সিদ্ধান্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিল।
২০১১তে ইউনেসকো ফিলিস্তিনিদের পূর্ণ সদস্যপদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর প্রতিবাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সে বছর ওই সংস্থায় তাদের যে আর্থিক সহায়তা করার কথা ছিল, তা করেনি।

গত বছর ইউনেসকো জেরুসালেমের একটি ধর্মীয় স্থান সম্পর্কে একটি বিতর্কিত প্রস্তাব গ্রহণ করে, যাতে ওই পবিত্র স্থানের সঙ্গে ইহুদীদের সম্পর্কের কথা একেবারেই উল্লেখ করা হয়নি।

তার প্রতিবাদে ইসরাইল ইউনেসকোর সঙ্গে তাদের সব ধরনের সহযোগিতা বন্ধ করে দেয়।

এ বছরের গোড়ায় ইউনেসকো পশ্চিম তীরের প্রাচীন শহর হেবরনকে যেভাবে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট ঘোষণা করেছিল, ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু তারও কড়া সমালোচনা করেছিলেন।

তবে ‘ফরেন পলিসি’ সাময়িকী বলছে, ইউনেসকো থেকে আমেরিকার প্রত্যাহারের পেছনে শুধু ইসরাইলকে সমর্থন জানানোই নয়, অর্থ সাশ্রয় করার উদ্দেশ্যও আছে।

ইউনেসকো এই মুহুর্তে সংস্থার নতুন প্রধান নির্বাচনের প্রক্রিয়া নিয়ে ব্যস্ত।

ইরিনা বোকোভার জায়গায় সংস্থার প্রধান হিসেবে কে আসবেন, তা নিয়ে কাতার ও ফ্রান্সের দুই সাবেক মন্ত্রী - যথাক্রমে হামাদ বিন আব্দুল আজিজ আল-কাওয়ারি ও অড্রে অজুলে-র মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি প্রতিযোগিতা চলছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

মধ্যপ্রাচ্য পাতার আরো খবর

সৌদি আরবের তেল শোধনাগারে ইয়েমেনের ড্রোন হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনরিয়াদ: সৌদি আরবের আরামকো তেল শোধনাগারে ইয়েমেন নতুন করে ড্রোন হামলা চালিয়েছে। ইয়েমেনের জনপ্রিয় হ . . . বিস্তারিত

গাজা সিটি দখলে নেয়ার হুমকি দখলদার ইসরাইলের

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনতেল আবিব: ইসরাইলি ভূখণ্ডে জ্বলন্ত ঘুড়ি হামলা চালানো বন্ধ করতে গাজার নিয়ন্ত্রণকারী হামাসকে শুক্র . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com