দঃ আফ্রিকার ক্ষমতাসীন এএনসি প্রেসিডেন্ট জুমার পদত্যাগ চায়

১৩ ফেব্রুয়ারি,২০১৮

এবার দঃ আফ্রিকার ক্ষমতাসীন এএনসি প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার পদত্যাগ চায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
জোহানেসবার্গ: বিরোধীদল ও বিক্ষোভকারীদের দাবির পরও ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে অস্বীকৃতি জানানোর পর নিজ দল দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষমতাসীন দল এএনসি মঙ্গলবার তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগের আহ্বান জানাবে। আজই দেশটির প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমাকে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে আনুষ্ঠানিকভাবে বলবেন এএনসি নেতারা।

জুমার সঙ্গে দলের জৈষ্ঠ্য নেতাদের ম্যারাথন আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার পর আজ এক বিবৃতিতে এএনসি বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। এদিকে এএনসির আহ্বানের পরও জুমা ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে অস্বীকৃতি জানালে, সংসদে তার ওপর আস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে এএনসি। শুধু তাই নয়, ওই আস্থা ভোটে জুমা হেরে যাবেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার সকালে এএনসির নির্বাহী কমিটির বৈঠক হয়েছে। বৈঠক চলাকালে দেশটির উপ-রাষ্ট্রপতি রামাফোসা প্রেসিডেন্ট জুমার আবাসিক ভবনের যাওয়ার জন্য বৈঠক ত্যাগ করেন। এ সময় তিনি বলেন, যদি জুমা পদত্যাগ না করেন, তবে তাকে আবার আহ্বান জানানো হবে। পরে অবশ্য রামাফোসা বৈঠকে যোগ দেন।

দুর্নীতির নানা অভিযোগ প্রেসিডেন্ট হিসেবে জ্যাকবের সব অর্জনকে ম্লান করে দিয়েছে, যদিও তিনি বরাবরই এসব অভিযোগ তীব্রভাবে অস্বীকারে করে আসছেন। এর আগে ২০১৬ সালে ব্যক্তিগত বাড়ির ওপর সরকারি অর্থ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় দেশটির উচ্চ আদালত প্রেসিডেন্ট জ্যাকবের বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে রুল জারি করেছিলেন।

এ ছাড়া গত বছর দেশটির সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ প্রতারণা, কালোবাজারি, মানি লন্ডারিং, অস্ত্র চুক্তিসহ ১৮টি দুর্নীতির অভিযোগে জ্যাকবের বিরুদ্ধে রুল জারি করা করে।

সম্প্রতি ভারতীয় বংশোদ্ভুত ধণাঢ্য গুপ্তা পরিবারের সঙ্গেও যোগসূত্র পাওয়া যায় প্রেসিডেন্ট জ্যাকবের। ওই পরিবারের বিরুদ্ধে সরকারকে প্রভাবিত করার অভিযোগ রয়েছে। এটাও জ্যাকবের জনপ্রিয়তা কমে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও জুমা ও গুপ্তা পরিবার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

২০০৯ সাল থেকে জ্যাকব জুমা দেশটিতে ক্ষমতায় রয়েছেন। তবে ক্ষমতা গ্রহণের পরই তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠতে থাকে। এএনসি আজ প্রাতিষ্ঠানিকভাবে তাদের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে। তবে সাইরিল রামফোসা এএনসির সর্বোচ্চ পদে বসার পর জ্যাকব জুমাকে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন। এদিকে গতকাল এএনসির বৈঠকের পর জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রধান রামফোসা প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে তিনি প্রেসিডেন্টকে বলেন, যদি ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে আপনি অস্বীকৃতি জানান, তাহলে আপনাকে এএনসির বৈঠকে ডাকা হবে।

এদিকে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি সংসদে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে অনাস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হলে দল ও তার নিজের জন্য সেটি মারাত্মক অপমানজনক বলে মত দেন এএনসির নেতারা। এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্টের সরে দাঁড়ানোর ঘটনাকে জেক্সিট হিসেবে আখ্যা দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার গণমাধ্যম।

মন্তব্য

মতামত দিন

আফ্রিকা পাতার আরো খবর

ক্ষমতায় টিকে থাকতে অভিনব ফন্দি স্বৈরশাসক সিসির

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনকায়রো: মিশরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং সরকার সমর্থিত ব্যক্তিদের পিটিশনের উপর ভিত্তি করে মিশরের বর . . . বিস্তারিত

জিম্বাবুয়েতে চলছে নির্বাচন, নিজ দলকেই ভোট দেবেন না মুগাবে

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনহারারে: দীর্ঘ চার দশক পর জিম্বাবুয়েতে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ। জিম্বাবুয়ের সাবেক প্রে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com