বিতর্কের জেরে তৈমুরের নাম বদলাতে চেয়েছিলেন সাইফ!

১১ মার্চ,২০১৮

বিতর্কের জেরে তৈমুরের নাম বদলাতে চেয়েছিলেন সাইফ!

বিনোদন ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: তৈমুরের নাম বিতর্ক মনে পড়ে? হ্যাঁ, তৈমুর আলি খানের কথাই বলা হচ্ছে। জন্মের পর কেন সাইফ আলি খান এবং কারিনা কাপুরের ছেলের নাম তৈমুর রাখা হল, তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের ঝড় ওঠে। তবুও ছেলের নাম বদলাননি এই দম্পতি।

এনডিটিভির খবর অনুযায়ী, সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে করিনা জানিয়েছেন, সাইফ আলী নাকি বিতর্কের জেরেই তৈমুরের নাম পরিবর্তন করে ‘ফাইজ’ রাখতে চেয়েছিলেন।

কিন্তু কারিনা তাতে আপত্তি করেন। কোনও চাপের কাছে তিনি নতি স্বীকার করতে রাজি ছিলেন না। কারিনার মতে, তৈমুর নামের অর্থ লোহা। তিনি চান, তার ছেলেও নামের অর্থ অনুযায়ী একজন লৌহ মানব হয়ে উঠুক।

তৈমুর আলি খানের জন্মের পর প্রায় সকলেরই মুখে একটাই প্রশ্ন ছিল- কোন আক্কেলে তুর্কি-মোঙ্গল শাসক কুখ্যাত তৈমুর লঙ্গের নামে ছেলের নামকরণ করলেন সাইফ-কারিনা?

এ প্রসঙ্গে সাইফ বলেছিলেন, ‘গোটা বিশ্বের ইসলাম ফোবিয়া সম্বন্ধে আমি সচেতন। কিন্তু আমি তো ছেলের নাম রাম বা আলেকজান্ডার রাখব না। তা হলে ছেলের একটা ভাল মুসলিম নামও রাখতে পারব না? তাকে ধর্মীয় মূল্যবোধ শিখিয়ে বড় করব। যাতে যে কোনও লোক যখন তাকে দেখবে যেন বলে, বাহ্! ছেলেটাতো খুব সুন্দর।’

কিন্তু তুর্কি শাসক তৈমুর লঙ্গের কথা কি তারা জানতেন না? ছেলের নাম রাখার আগে একবারও কি তার কথা মনে হয়নি? সাইফ জবাব দিয়েছিলেন, ‘আমি ওই তুর্কি শাসকের কথা জানি। কিছুটা স্বৈরাচারীও ছিলেন। কিন্তু তিনি ছিলেন তিমুর। আর আমার চেলে তৈমুর। দু’টো শুনতে এক মনে হলেও আসলে আলাদা। নামে সত্যিই কিছু যায় আসে না। আর সে দিক দিয়ে দেখতে গেলে রাজা অশোক বা আলেকজান্ডারও তো স্বৈরাচারী ছিলেন।’

মুখে এ কথা বললেও ছেলের নাম নাকি বদলে ফেলতে চেয়েছিলেন সাইফ। অন্তত সাম্প্রতিক সাক্ষাত্কারে তেমনটাই দাবি করেছেন কারিনা।

মৌমিতার আর বড় অভিনেত্রী হওয়া হল না, হতাশায় সুইসাইড!
উঠতি বয়সী মৌমিতা সাহার স্বপ্ন ছিল অনেক বড় অভিনেত্রী হওয়ার। আর সে লক্ষ্য পূরণে অনেক দূর এগিয়েছিলও। কিন্তু মাঝ পথে কী যেন ঘটলা। আর সে কারণে অকালেই ঝরে গেল একটি সম্ভাবনাময় প্রাণ।

এই যুবতীর বাড়ি হুগলির ব্যান্ডেলে। বাংলা সিরিয়ালে কাজের সুবাদে রিজেন্ট পার্ক থানা এলাকার অশোকনগরে বছর দু’য়েক আগে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিলেন বছর তেইশের মৌমিতা। তবে এই মুহূর্তে হাতে কাজ কম ছিল।

শুক্রবার দীর্ঘক্ষণ দরজা না খোলায় সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। খবর দেওয়া হয় রিজেন্ট পার্ক থানায়। পুলিশ এসে দরজা ভেঙে তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। লাশ পাঠানো হয় ময়নাতদন্তে। খবর দেওয়া হয় অভিনেত্রীর ব্যান্ডেলের বাড়িতে।

তার অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য। শুক্রবার লাশ উদ্ধারের সময় ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোট পাওয়া গেছে।

পুলিশ জানায়, টালিউডে মডেলিং ও অভিনয়ের সূত্রে তিনি রিজেন্ট পার্ক এলাকার অশোকনগরের ভাড়া বাড়িতে একাই থাকতেন মৌমিতা । শুক্রবার দুপুর থেকে তার ফোন বন্ধ পায় বাড়ির লোক। পরে তারা বাড়িওয়ালাকে বিষয়টি জানান। বাড়িওয়ালা গিয়ে দেখেন মৌমিতার ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। কোনো সাড়া না পেয়ে প্রতিবেশীদের সাহায্যে ঘরের দরজা ভাঙেন তিনি। ঘরের মধ্যে মৌমিতাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। এরপর রিজেন্ট পার্ক থানায় খবর দেয়া হয়।

পুলিশ গিয়ে মৌমিতার ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করে। সেখানে লেখা ছিল, ‘আমার আর অভিনেত্রী হওয়া হল না’। পুলিশের অনুমান হতাশা থেকেই আত্মঘাতী হয়েছেন ওই তরুণী।

মন্তব্য

মতামত দিন

বিনোদন পাতার আরো খবর

সাতক্ষীরায় ‘মুসল্লিদের আপত্তিতে’ আটকে গেল জান্নাত

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সাতক্ষীরা জেলায় পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় মুসল্লি এবং মসজিদের ইমা . . . বিস্তারিত

কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সির বিরুদ্ধে মামলা

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: ন্যান্সি আর তার ছোট ভাই শাহরিয়ার আমান সানির বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করা . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com