‘ইসলামি সুন্দরী প্রতিযোগিতা’য় মিস আরব জয়ী হলেন মরক্কোর নাসরিন

০৯ মার্চ,২০১৮

‘ইসলামি সুন্দরী প্রতিযোগিতা’য় মিস আরব জয়ী হলেন মরক্কোর নাসরিন

বিনোদন ডেস্ক
আরটিএনএন
কায়রো: মিসরের কায়রোতে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রথমবারের মতো ইসলামি সুন্দরী প্রতিযোগিতা ২০১৮। ১৫টি দেশের অংশ গ্রহণে মিস আরব বিজয়ী হয়েছেন মরক্কোর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থী নাসরিন আল খেতানি। হিজাব পরে এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন ১৫টি আরব দেশের সুন্দরীরা।

মধ্যপ্রাচ্যের আরবি গণমাধ্যম আল ইয়াউম এ খবর জানিয়েছে। গণমাধ্যমে একটি বিশেষ সাক্ষাৎকার নাসরিক আল খেতানি ইসলামি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় তাকে মিস আরব নির্বাচিত করায় ভক্ত ও সমর্থকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনায়ও তিনি তার এ অবস্থানও ধরে রাখবেন। ভবিষ্যতে নারী নির্যাতন ও নারীদের যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে কাজ করে যাবেন।

গত সপ্তাহের ৩ ও ৪ মার্চ অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় হয়েছেন মিসরের মিয়াদা মুহাম্মদ ও মরক্কোর ইলহাম বুয়াদাস। সবগুলো আরব দেশ এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।

মিস আরব ২০১৮ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ইসলামি সুন্দরীদের অভিনন্দন ও স্বাগত জানান সোশ্যাল মিডিয়ার ইউজাররা। তবে কেউ কেউ সমালোচনার দৃষ্টিতেও দেখছেন। সুন্দরী প্রতিযোগিতায় হিজাব ব্যবহারের বিষয়টি অনুচিত বলে তারা সমালোচনা করেছেন।

মিশরে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান
তিন দিনের সফরে মিশর পৌঁছেছেন সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

রবিবার রাজধানী কায়রোতে পৌঁছলে দেশটির প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি তাকে অভ্যর্থনা জানান।

তিনি দেশটিতে তিনদিন অবস্থানের পর ৭ মার্চ ব্রিটেনে এবং ৯ মার্চ আমেরিকা সফরে যাবেন।

মিশরীয় রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের একটি বিবৃতিতে বলা হয়, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, বিশেষ করে বিনিয়োগ এবং অর্থনীতির ক্ষেত্রগুলো বৃদ্ধি করা নিয়ে দুই নেতা আলোচনা করেন।

তারা রাজনৈতিক উপায়ে আঞ্চলিক সঙ্কট সমাধানেও সম্মত হয়েছেন বলে বিবৃতিতে বলা হয়।

বৈঠকে সিসি বলেন, উপসাগরীয় দেশগুলির নিরাপত্তা মিশরের জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে অত্যন্ত ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে মিশরীয় নিরাপত্তা বাহিনীর একজন কর্মকর্তা জানান, বিন সালমানের সফরের প্রস্তুতির জন্য মঙ্গলবার একটি বড় সৌদি প্রতিনিধি দল কায়রোতে পৌঁছান।

গত বছর জুন মাসে ক্রাউন প্রিন্স হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর এটিই বিন সালমানের প্রথম বিদেশ সফর।

যাইহোক, এর আগে তিনি চারবার মিশর সফরে গিয়েছেন। ২০১৪ সালের মাঝামাঝিতে সিসি ক্ষমতা গ্রহণের পর ২০১৫ সালে তিনবার এবং ২০১৬ সালে একবার মিশর সফর করেন।

মিশরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত মুরসি সরকারকে ২০১৩ সালে উৎখাত করে জেনারেল সিসিকে ক্ষমতায় আনে সৌদি আরব। সেই থেকে সৌদি আরব ও মিশরের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার হয়েছে।

২০১৫ সালের ২৬ মার্চ থেকে সৌদি আরব প্রতিবেশী ইয়েমেনে যে সামরিক আগ্রাসন চালাচ্ছে মিশর সে আগ্রাসনের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। এছাড়া, আরেক প্রতিবেশী কাতারের ওপর সৌদি আরব যে সর্বাত্মক অবরোধ আরোপ করেছে তাতেও রিয়াদের সঙ্গে রয়েছে কায়রো। বিনিময়ে সৌদি আরব মিশরের শাসককে নানা আর্থিক সুবিধা দিচ্ছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

বিনোদন পাতার আরো খবর

সাতক্ষীরার ‘হিন্দু চোর’ নিয়ে নাটক, কট্টরপন্থীদের হুমকির মুখে নাম বদল

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএনকলকাতা: ভারতের কলকাতার নাট্যকার প্রবীর মণ্ডল বেশ কবছর আগে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী সাতক্ষীরার একটি গ্ . . . বিস্তারিত

আগে একটু খেয়ে নিই, অনেক ক্ষুধা পেয়েছে…

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) আইনে করা মামলায় গত ১১ জুন জামিন পেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর। গ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com