অপুর জন্য মর্মাহত বর্ষা

০৬ ডিসেম্বর,২০১৭

অপুর জন্য মর্মাহত বর্ষা

বিনোদন ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: ঢাকাই সিনেমার আলোচিত জুটি শাকিব-অপুর সংসার ভেঙ্গে যাওয়ার খবরটি ৪ ডিসেম্বর চাউড় হওয়ার পর থেকেই রীতিমত ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’-তে পরিণত হয়েছে। ঢাকাই সিনেমার আরেক আলোচিত জুটি অনন্ত-বর্ষা ওদের (শাকিব-অপুর) ডিভোর্সের ঘটনায় অপুর জন্য মর্মাহত । বর্ষা নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে অপুর জন্য সহমর্মিতার কথা তুলে ধরেন। স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে ধরা হল-

‘আমি একটু মর্মাহত হলাম শাকিব-অপুর সংসার ভেঙ্গে যাওয়ায়। কারণ এতগুলো সফল সিনেমার জুটি তারা। ভেবেছিলাম তাদের নিজেদের মাঝে যেটুকুই মনমালিন্য হয়েছিলো, তা নিজেরাই মিটিয়ে নিয়ে সুখের সংসার করবে। কিন্তু না, তার বিপরীত হলো। শাকিব খান হঠাৎ অপু বিশ্বাসের নিকট ডির্ভোস লেটার পাঠিয়ে তাদের ৯ বছরের সংসারকে ভেঙ্গে দিলো।

এতদিনের ভালোবাসার সম্পর্ককে এত সহজেই ছিন্ন করে দিলো, যা আসলেই মেনে নেয়া কষ্টকর। বিশেষ করে খারাপ লাগছে অপু বিশ্বাসের জন্য, কারণ অপু নিজের পরিবার ও ধর্মকে দূরে ঠেলে শাকিবের কাছে এসেছিলো। শাকিবের উপর ভরসা রেখেই সব ছেড়ে সংসার করেছিলো। কিন্তু সব কিছুই সে নিমেষেই শেষ করে দিলো তালাকনামা পাঠিয়ে।

আমাদের একটা কথা মাথায় রাখা উচিত, আমরা যারা সেলিব্রেটি আছি, সাধারণ মানুষ তাদেরকে আর্দশ মানেন। আর সেই আর্দশের আমরা যদি কিছু দিন পর পর এ রকম অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্ম দেই, তাহলে ভক্তরা কি শিখবে? কি ফলো করবে?

আমাদের মত সেলিব্রেটিদের উচিত একটু শাবানা ম্যাম, শাবনাজ-নাঈম, রাজ্জাক আঙ্কেলের দাম্পত্য জীবন অনুসরণ করা। কারণ তারা একেকজন কিংবদন্তি হয়েও তাদের সংসার, স্বামী, সন্তান নিয়ে সুখের সংসার করে গিয়েছেন। আমি আশা করি শাকিব-অপু তাদের পুরনো দিনের স্মৃতিগুলো স্মরণ করে সব কিছু ভুলে গিয়ে ছোট্ট সন্তানের কথা চিন্তা করে, তার উজ্জ্বল ভবিষ্যতের কথা ভেবে, নতুন করে সুখের সংসার শুরু করবে।’

জয় এখন কোথায় যাবে?
ঢালিউডের আলোচিত জুটি শাকিব খান-অপু বিশ্বাসের সংসার ভাঙনের খবর গতকাল বিকেল থেকে টক অব দ্য কান্ট্রিতে পরিণত হয়েছে। সবার এখন একটাই প্রশ্ন শাকিব-অপুর একমাত্র ছেলে আব্রাম খান জয় এখন কার কাছে থাকবে?

জানা গেছে, চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন দেশের শীর্ষ চিত্রনায়ক শাকিব খান।

সোমবার অপু বিশ্বাসের বাসায় এই তালাকনামা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শাকিব খানের ঘনিষ্ঠ বন্ধু প্রযোজক ও চলচ্চিত্র পরিচালক মোহাম্মদ ইকবাল। দুদিন আগেই অপু বিশ্বাসের বাসার ঠিকানায় এই তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন শাকিব খানের আইনজীবী। তবে এই তালাক কার্যকর হবে তিন মাস পর।

শাকিব খানের গণমাধ্যম বিষয়ক মুখপাত্র মোহাম্মদ ইকবাল জানান, অপু বিশ্বাসকে ব্যারিস্টার রোকনউদ্দিন মাহমুদের মাধ্যমে তালাকনামা পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে শাকিব খানকে এসএমএস পাঠালে তিনি ফিরতি এসএমএসে বলেন, বর্তমানে নোলক ছবির শুটিং এ হায়দ্রাবাদে শুটিংয়ে আছি, পরে কথা বলছি। তারপর একটু পরেই তালাকনামার তথ্য নিশ্চিত করে তিনি জানান, ‘অপুর কাছে ডিভোর্সের চিঠি পাঠিয়েছি। ৩০ নভেম্বর হায়দ্রাবাদ আসার আগে ডিভোর্স পেপারে স্বাক্ষর করেছি।’

অপরদিকে চিত্র নায়িকা অপু বিশ্বাস জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘গণমাধ্যমের খবরে জেনেছি শাকিব আমাকে ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছে। কিন্তু আমি তা হাতে পাইনি। কারণ আমি বাসায় ছিলাম না।’

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিয়ে হয়। বিয়ের ব্যাপারটি কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে রেখে তারা দুজন সমানতালে সিনেমার শুটিং অব্যাহত রাখেন। গত এপ্রিলে ঢাকাই ছবির নতুন নায়িকা শবনম বুবলীর সঙ্গে শাকিব ঘরোয়া পরিবেশে একটি ছবি তোলেন। ছবিটিতে ‘ফ্যামিলি টাইম’ ক্যাপশন লিখে নিজের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রকাশ করেন বুবলী। এর পরই অপু বিশ্বাসের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে শাকিব খানের। এ বছর ১০ এপ্রিল বিকেলে একটি টেলিভিশন চ্যানেলে ছয় মাস বয়সের ছেলে আব্রামকে সঙ্গে নিয়ে উপস্থিত হন অপু। সেদিন অপু বলেন, আমি শাকিবের স্ত্রী, আমাদের ছেলে আছে।

আট বছর আগের সে বিয়ের খবর জনসমক্ষে আসার পর দুজনের সম্পর্কের টানাপোড়েন তৈরি হয়। পরিস্থিতি এমন অবস্থায় পৌঁছায় যে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস নিজেদের মধ্যে মুখ দেখাদেখি বন্ধ করে দেন। শুধু ছেলে আব্রামের কারণে মাঝেমধ্যে দেখা হলেও কথা হয়নি দুজনের। এবার তাদের সেই টানাপোড়েনের চূড়ান্ত পরিণতি ঘটেছে। শাকিব খান আর অপু বিশ্বাসের আনুষ্ঠানিকভাবে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটছে।

এই দুই জনপ্রিয় চিত্রতারকার ঘনিষ্ঠজনদের মতে, শাকিব খান আর অপু বিশ্বাসের বিবাহবিচ্ছেদের অনেকগুলো কারণ রয়েছে। যেমন শাকিবকে কোনো কিছু না জানিয়ে হুট করে টেলিভিশনে শিশুসন্তানকে নিয়ে অপুর হাজির হওয়া, নানা সময়ে সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শাকিব খান আর তার পরিবার নিয়ে অপুর কটূক্তি করা, অন্য নায়িকাদের সঙ্গে শাকিব খানকে জড়িয়ে মুখরোচক কথা বলা, একমাত্র সন্তানের জন্মদিন বাবা শাকিব খানের অর্থে উদ্যাপন করা হলেও দাওয়াতপত্রে শুধু মা অপুর স্থিরচিত্র ব্যবহার করা, আর গত কয়েক মাসে দেশের সিনেমায় যারা প্রকাশ্যে শাকিব খানের বিরোধিতা করছিলেন, তাদের সঙ্গে অপুর সুসম্পর্ক বজায় রাখা এবং কাজ করা।

এর আগে বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে অপু বলেন, আমি ডিভোর্স নিয়ে এখনই কিছু বলব না। আর বিবাহবিচ্ছেদ হলে আপনারা তখন জানতেই পারবেন। বিষয়টি একান্তই ব্যক্তিগত। যদি এমন কিছু ঘটে, তা আমি নিজেই আপনাদের ডেকে জানাব।

মন্তব্য

মতামত দিন

বিনোদন পাতার আরো খবর

বিজয় দিবসে সিনেমা হলে মুক্তিযুদ্ধের ছবি বিনা টিকেটে

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: বিজয় দিবসে শনিবার সকালে বিনা টিকেটে দেশের ১৫৭টি সিনেমা হলে চারটি মুক্তিযুদ্ধের ছবি প্রদর্শনীর . . . বিস্তারিত

কী সম্পর্ক সিনেমার পদ্মাবতী আর গুজরাট ভোটের?

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএননয়াদিল্লি: ভারতের বলিউডে চলতি বছরের সম্ভবত সবচেয়ে প্রতীক্ষিত ছবির নাম ছিল পদ্মাবতী - যা প্রায় সাতশ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com