মুক্তি পেল বিপাশার ‘খাস জমিন’

১১ নভেম্বর,২০১৭

মুক্তি পেল বিপাশার ‘খাস জমিন’

বিনোদন ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: লাক্স সুপারস্টার এবং দেশীয় চলচ্চিত্রের শতাধিক আইটেম গানের জনপ্রিয় গ্ল্যামারগার্ল বিপাশা কবির অভিনীত ও গ্রামীণ প্রেক্ষাপটের কাহিনী নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘খাস জমিন’ শুক্রবার সারাদেশে চল্লিশটি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে।

‘খাস জমিন’ ছবিটি ঢাকাই চলচ্চিত্রের আইটেম গার্ল হিসেবে খ্যাতি পাওয়া অভিনেত্রী বিপাশা কবির অভিনীত তৃতীয় ছবি। আইটেমের নামে অশ্লীলতা ও বাজেট কম হওয়ায় আইটেম গার্ল হিসেবে আর অভিনয় করতে চান না বিপাশা কবির । ‘খাস জমিন’ দিয়ে নায়িকা হিসেবেই প্রতিষ্ঠিত হতে চাইছেন তিনি।

‘খাস জমিন’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন তরুণ নির্মাতা সরোয়ার হোসেন। মৌলিক গল্পের চলচ্চিত্রটিতে বিপাশার নায়ক হিসাবে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক সায়মন সাদিক। ছবিতে দুটি বিশেষ চরিত্রে দেখা যাবে খ্যাতিমান নির্মাতা ও অভিনেতা আমজাদ হোসেন ও কাজী হায়াৎকে।

এদিকে, ‘খাস জমিন’ ছবিটির প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করেছেন নায়িকা বিপাশা কবির। তিনি হলে হলে গিয়ে দর্শকদের সাথে বসে ছবি দেখছেন ও কথা বলছেন।

‘খাস জমিন’ ছবিটি নিয়ে বেশ আশাবাদী এই অভিনেত্রী জানান, দর্শকদের উচ্ছাস দেখে আমি আবিভূত। দর্শকরা আমার ছবিটি পজিটিভলী নিয়েছে। ‘খাস জমিন’ ছবিটি তাকে বাংলা ছবিতে প্রতিষ্ঠিত করবে বলে মনে করছেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ‘খাস জমিন’ ছবিতে প্রচুর অভিনয়ের সুযোগ ছিলো। হাসি, কান্না রোমান্সে নিজের সবটুকু দিয়ে সাধ্যমত অভিনয় করেছি। কিন্তু আমাদের দেশে সিনেমার জন্য আলাদা করে কোনো টিভি চ্যানেল নেই। ছবির গান ট্রেইলার নিয়মিত দেখানোর মত টিভি চ্যানেলর ব্যবস্থা থাকলে ছবি প্রচারণার জন্য খুব ভাল হতো। এতে আমাদের চলচ্চিত্রও বেশ উপকৃত হতে পারতো।

বিপাশার নায়িকা হিসেবে প্রথম অভিনীত ‘গুণ্ডামী’ চলচ্চিত্রটি ২০১৬ সালে মুক্তি পায়। একই বছরের ৫ অগাস্ট দ্বিতীয় ছবি ‘আড়াল’ মুক্তি পায় । নায়িকা হিসেবে পর্দা ভাগাভাগি করে আরও বেশকিছু ছবি করলেও একক নায়িকা হিসেবে সম্পূর্ণ গ্রামীন প্রেক্ষাপটের একটি মৌলিক কাহিনি অবলম্বনে নির্মিত ‘খাস জমিন’কে নিজের তৃতীয় ছবি ও সেরা সিনেমা হিসেবে উল্লেখ করেন বিপাশা কবির। আত্মবিশ্বাসের সাথে বলেন, স্বাভাবিকভাবে ছবিটি নিয়ে ভাল ফলাফল প্রত্যাশা করছি।

বিপাশা কবির ‘খাস জমিন’ কলা-কৌশলীদের অবদানকে কৃতজ্ঞ চিত্তে স্বরণ করে বলেন, সরোয়ার ভাই, সহ-অভিনেতা সায়মনসহ কলা-কৌশলীদের সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্বরণ করি। তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। সেই সাথে দর্শকদেরকে হলে এসে ছবিটি দেখার অনুরোধ করছি।

মিশা সওদাগরের বাড়িতে তারকাদের মিলনমেলা
মিশা সওদাগরের বাড়িতে চলচ্চিত্রের তারকাদের নিয়ে হয়ে গেল মিলনমেলা। চলচ্চিত্রের সিনিয়র শিল্পী, বন্ধু-সহকর্মীদের নিয়ে গেল বৃহস্পতিবার রাতে একটি গেট-টুগেদার পার্টির আয়োজন করেন বাংলাদেশের নাম্বর ওয়ান আভিনয় শিল্পি মিশা সওদাগর।

শিগগিরই ওমরা হজে যাবেন মিশা সওদাগর। গত কয়েক দিন আগে তিনি আর অভিনয় করবেনা বলে একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় সাক্ষাতকার দেন। যার কারনে তার এখন ব্যস্ততা কিছুটা কম আছে, তাই শিল্পীদের কাছে দোয়া-ভালোবাসা চাইতে এবং একসঙ্গে কিছুটা সময় কাটানোর উদ্যোগ নেন তিনি।

চলচ্চিত্রের বিভিন্ন শিল্পিদের আমন্ত্রন করেন তার উত্তরার বাসভবনে। মিশার ডাকে সাড়া দিয়েছিলেন অনেকেই। তাদের নিয়ে সে দিন রাতে মিশার উত্তরার বাসভবনে বসে তারার মেলা।

মিশা বলেন, যারা আমার নিমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে আমার বাসায় এসেছিলেন তাদের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। আমি আরো বেশি কৃতজ্ঞ সোহেল রানা ভাই, ফারুক ভাই ও ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইয়ের কাছে। কারন তারা চলচ্চিত্রে আমার অভিভাবক।

মিশা সওদাগর বলেন ‘সবচেয়ে বড় কথা শিল্পীর পাশে যেকোনো পরিস্থিতিতে শিল্পী থাকবেন- এই মূলমন্ত্রই আমাদের এগিয়ে যাবার বড় শক্তি।’

মিশা আমন্ত্রণ গ্রহণ করে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চলচিত্রের চিত্রনায়ক, প্রযোজক সোহেল রানা, ফারুক, চিত্রনায়িকা রোজিনা, চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, বাপ্পারাজ, আমিন খান, সম্রাট, সাইমন, চিত্রনায়িকা পপি, পূর্ণিমা, শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান, নিপুণ, সাইমন সাদিক, পরিচালক ছটকু আহমেদ, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু, শামসুল আলম, সুমন দে সহ আরো অনেকে।

আমন্ত্রিত শিল্পীদের সঙ্গে গল্প, আড্ডা শেষে মিশা সওদাগর নিজ দায়িত্বে তাদের রাতের খাবার পরিবেশন করতে। খাওয়া শেষে অনেকের বিভিন্ন কাজ থাকায় ছুটে যান যারযার গন্তব্যে আবার অনেকেই থেকে মেতে ওঠেন ছোট পরিসরে আয়োজিত গানে।

আমি হাজি, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি: মিশা সওদাগর

আমি কিছুটা বদমেজাজি উল্লেখ করে খল চরিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা মিশা সওদাগর বলেন, ‘আমি হাজী, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি, এটা হয়তো অনেকেই জানেন না।’

শনিবার নারায়ণগঞ্জের ভুলতায় চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির বনভোজনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেয়ার সময় মিশা এসব কথা বলেন তিনি।

রূপালী পর্দায় দর্শকরা মিশা সওদাগরকে খল চরিত্রে দেখতে পেলেও বাস্তব জীবনে ঠিক তার উল্টো।

চলচ্চিত্রের প্রসঙ্গ তুলে মিশা বলেন, চলচ্চিত্র আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে। অর্থবিত্ত, খ্যাতি, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার সবই। তাই এই চলচ্চিত্রের প্রতি আমি দায়বদ্ধ।

এদিকে আগামী এপ্রিলে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে মিশা এবার সভাপতি পদে লড়বেন। তার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী ওমর সানি।

মন্তব্য

মতামত দিন

বিনোদন পাতার আরো খবর

ইরাক ও ইসরাইলের সুন্দরী একসঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: মিস ইউনিভার্স ২০১৭ প্রতিযোগিতার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রতিযোগীরা জড়ো হচ্ছেন আমেরিকার . . . বিস্তারিত

পদ্মাবতী ছবির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, গলা মিলিয়েছে বিজেপি

বিনোদন ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: ভারতে ৭০০ বছর আগেকার চিতোরের রানী পদ্মিনীর জীবন নিয়ে তৈরি বলিউড ছবি ‘পদ্মাবতী’কে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com