ইন্টারনেটে জিহাদি উপকরণ শনাক্ত ও মুছে দেয়ার নতুন সফটওয়্যার

১৩ ফেব্রুয়ারি,২০১৮

ইন্টারনেটে জিহাদি উপকরণ শনাক্ত ও মুছে দেয়ার নতুন সফটওয়্যার

প্রযুক্তি ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: অনলাইনে জিহাদ সংক্রান্ত বিষয়বস্তু শনাক্ত এবং তাৎক্ষণিক-ভাবে মুছে দেয়ার এক নতুন ধরণের সফটওয়্যার তৈরিতে সাহায্য করেছে ব্রিটেন।

যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আম্বার রাড বলেছেন, এই সফটওয়্যার টুলের মাধ্যমে ৯৪ শতাংশ আইএস এর কর্মকাণ্ড শনাক্ত করা সম্ভব।

লন্ডনের একটি ফার্ম নতুন এই বিশেষ টুলটি তৈরি করেছে। খবর বিবিসির

ইন্টারনেটে আইএসের বড় ডাটাবেস আছে, যা দিয়ে নানারকম প্রচারণা চালিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মানুষকে জিহাদে উদ্বুদ্ধ করা হয়।

মধ্যপ্রাচ্যে আইএস যোদ্ধাদের সঙ্গে যোগ দেয়ার উদ্দেশে পাশ্চাত্য দেশগুলোর বহু তরুণ-তরুণী তাদের বাড়িঘর ছেড়েছে।

পাশ্চাত্যের উন্নত বহু দেশেই সন্ত্রাস দমন বিভাগের তদন্তকারীরা বিষয়টি নিয়ে ক্রমেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ছেন।

পশ্চিমা দেশের এসব অল্পবয়সী ছেলেমেয়েরা হঠাৎ তাদের বাড়িঘর থেকে উধাও হয়ে যায়।

পরে ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে অনেকের।

এদের বড় অংশটিকে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে ইন্টারনেটের প্রচারণাও মাধ্যমে।

ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, হয়ত এই জায়গাটিতে কাজ করবে নতুন সফটওয়্যারটি।

তিনি বলেন, হয়ত একদিন সব প্রতিষ্ঠানের জন্য এই প্রযুক্তি ব্যবহার ভবিষ্যতে আইন দ্বারা বাধ্যতামূলক করা হতে পারে।

সম্প্রতি সন্ত্রাস-দমন সংক্রান্ত আলাপ আলোচনায় যখন যুক্তরাষ্ট্র সফরে গিয়েছিলেন, সেসময় মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর সাথে নতুন সফটওয়্যার নিয়েও আলাপ করেন।

ফেসবুকে আসছে আপত্তিকর মন্তব্য লুকিয়ে রাখার ‘ডাউনভোট’ বাটন
ফেসবুকে আপত্তিকর বা অপছন্দের মন্তব্য যারা মুছে ফেলতে বা লুকিয়ে রাখতে চান, তাদের জন্য আসছে ‘ডাউনভোট’ বাটন।

এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ইতোমধ্যে সীমিত আকারে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেছে ফেসবুক। তবে এটিকে ‘ডিসলাইক’ বাটন বলতে নারাজ তারা।

ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বহুদিন ধরেই একটি ‘ডিসলাইক’ বা অপছন্দ করার বাটন যোগ করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের অল্পসংখ্যাক ফেসবুক ব্যবহারকারী পরীক্ষামূলকভাবে ‘ডাউনভোট’ বাটন ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছেন।

ফেসবুক সম্প্রতি এরকম আরও কিছু উদ্যোগ নিয়েছে নানা ধরণের সমালোচনার জবাবে।

‘কেট ক্রাঞ্চ’ নামের একটি সাইটের কাছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ‘ডাউনভোট’ বাটন নিয়ে তাদের নিরীক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

অন্য কিছু সোশ্যাল মিডিয়া সাইটে এরকম ‘ডাউনভোট’ বাটন আগে থেকে আছে। এর মাধ্যমে অজনপ্রিয় পোস্টগুলো যাতে কম দেখা যায়, সেই ব্যবস্থা করা যায়।

ফেসবুক যে ‘ডাউনভোট’ বাটন নিয়ে পরীক্ষা চালাচ্ছে, সেটিতে ক্লিক করলে সংশ্লিষ্ট মন্তব্যটি আর দেখা যাবে না। ফেসবুক ব্যবহারকারীরা এভাবে আপত্তিকর, বিভ্রান্তিকর বা অপ্রাসঙ্গিক পোস্ট বা মন্তব্য লুকিয়ে রাখবে পারবেন।

তবে এই ডাউনভোট দিয়ে পুরো পোস্টটিকে আড়াল করা যাবে না বা নিউজ ফিডের র‌্যাংকিং এ এটির অবস্থান পরিবর্তন করা যাবে না।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ফেসবুক এখন চেষ্টা করছে নিজেদের একটি দায়িত্বশীল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান হিসেবে তুলে ধরতে। তাদের এই সর্বশেষ উদ্যোগকে সেই লক্ষ্যেই আরেকটি পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

শুক্রবার ফেসবুক আরও ঘোষণা করেছে যে তারা লন্ডনে তাদের প্রকৌশলীর সংখ্যা বাড়িয়ে দ্বিগুন করছে। এদের কাজ হবে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা যেসব সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন তার সমাধান করা।

প্রতারণা, হয়রানি, মিথ্যে খবর থেকে শুরু করে নানা ধরণের সমস্যার সমাধান খুঁজে বের করা হবে তাদের দায়িত্ব।

ফেসবুক একই সঙ্গে ‘রাজনৈতিক রেষারেষি’ ঠেকাতে এক কোটি ডলারের একটি তহবিল গঠনেরও ঘোষণা দিয়েছে।

এই তহবিলের অর্থ দেয়া হবে চার্চ গ্রুপ, স্পোর্টস ক্লাব বা এ ধরণের অরাজনৈতিক গোষ্ঠীগুলোকে।

ফেসবুক মনে করছে এ ধরণের অরাজনৈতিক গোষ্ঠীগুলোকে পৃষ্ঠপোষকতার মাধ্যমে রাজনৈতিক বিভেদ ঘোচানো যাবে।

ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বলেন,‘ আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে লোকজনকে তাদের চেয়ে ভিন্ন এমন লোকের সঙ্গে মিশতে উৎসাহিত করা।’

ফেসবুক গ্রুপগুলো এই তহবিলের অর্থের জন্য আবেদন করতে পারবে। ব্রিটেনের পাঁচটি কমিউনিটি গ্রুপকে তাদের কাজের জন্য এক মিলিয়ন ডলার করে দেয়া হবে।

আরও প্রায় একশো গ্রুপকে দেয়া হবে ৫০ হাজার ডলার করে।

মন্তব্য

মতামত দিন

প্রযুক্তি পাতার আরো খবর

হোয়াটস অ্যাপে টাকা লেনদেন করা যাবে

প্রযুক্তি ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপ বেশ কিছু বৈচিত্র্য এনেছে। যোগ হয়েছে নতুন বেশ কিছু ফিচার। . . . বিস্তারিত

‘ফেসবুক পুলিশ’ যেভাবে আপনার ওপর নজর রাখে

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনবার্লিন: ফেসবুকে সারা দুনিয়ার নানা অংশ থেকে কে কি পোস্ট করছে - তার ওপর নজরদারি করছে কারা? ফেসবুকে পোস . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com