যেভাবে বায়ু দূষণের মাত্রা জানাবে কবুতর!

১৯ মার্চ,২০১৭

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: বায়ু দূষণের জন্য দায়ী কিছু গ্যাস ও কণা। কণাগুলো এতোই ছোট যে খালি চোখে দেখা যায় না। একটি বালুকণাও এর চেয়ে বিশগুণ বড়।

এই বায়ু দূষণ নিয়ে গবেষণায় কবুতরকে বেছে নিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। বিশেষ সেন্সর ও ক্যামেরা কবুতরের গায়ে বসিয়ে দৃষ্টিসীমার বাইরে বায়ু দূষণের মাত্রা সম্পর্কে ধারণা নিচ্ছেন তারা।

বায়ু দূষণের এই কণা বড় হলে সেটি নাকে আটকে যায়। তবে সূক্ষ্ম কণাগুলো ঢুকে যায় মস্তিষ্কে। এরা মস্তিষ্কের বিভিন্ন কোষের মধ্যকার সংযোগ নষ্ট করে ডিমেনশিয়া বা স্মৃতিভ্রম ঘটাতে পারে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, দূষিত বায়ুর ঝুঁকি এইডস বা ইবোলার ঝুঁকির চেয়েও ভয়াবহ। তারা চেষ্টা চালাচ্ছেন, কিভাবে ঠেকানো যায় এ দূষণ। আর এ জন্য প্রয়োজন দূষণের পরিমাণ জানা।

একটি গাড়ি থেকে বায়ু দূষণের যে ঘটনা ঘটে, সেটা বাড়ির ছাদ পর্যন্ত উঁচুতে আমরা দেখতে পাই। তবে তারপর কি হয় তা আমরা জানেত পারিনি।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের একদল বিজ্ঞানী এ কাজে কবুতরের সাহায্য নিচ্ছেন। এসব পাখির গায়ে সেন্সর বেঁধে, আকাশে দূষণের মাত্রা জানার চেষ্টা করছেন তারা।

এ বিষয়ে গবেষক রিক টমাস বলেন, সেন্সর আকারে এবং ওজনে খুবই ছোট। এর ভেতরে আছে ছোট্ট একটি ক্যামেরা। একটা কবুতরের পক্ষে এটা বহন করা কোনো সমস্যা নয়। এর মাধ্যমে আমরা যেসব তথ্য সংগ্রহ করতে পারবো সেখান থেকে বোঝা সম্ভব হবে কোনো শহরে বায়ু দূষণ কিভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

পরীক্ষায় সফল হয়েছেন বিজ্ঞানীরা। পরীক্ষায় ব্যবহৃত কবুতরের সেন্সর থেকে তারা দেখতে পান কবুতরটি যে পথে উড়েছিল, ওই পথে বায়ুর তাপমাত্রা। বিজ্ঞানীদের দাবি, এখন থেকে এ পরীক্ষার মাধ্যমে পৃথিবীর বিভিন্ন শহরে বায়ু দূষণ কিভাবে ছড়ায় তা জানতে পারবেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

প্রযুক্তি পাতার আরো খবর

ইউটিউবে খেলনা দেখিয়ে কোটিপতি শিশু রায়ান

প্রযুক্তি ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: ইউটিউবে চ্যানেল বানিয়ে, খেলনা দেখিয়ে কোটি টাকা আয় করেছে ছয় বছরের রায়ান। সে ইউটিউবে খেলনা দ . . . বিস্তারিত

ভারত-বাংলাদেশকে পেছনে ফেলে এগিয়ে পাকিস্তান

প্রযুক্তি ডেস্কআর্টিএনএনঢাকা: মোবাইল ইন্টারনেটের গতিতে ভারত এবং বাংলাদেশকে পেছনে ফেলে বেশ কয়েক ধাপ এগিয়ে গেছে পাকিস্তান। . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com