ব্রেকিং সংবাদ: |
  • ওসির গুলিতে বিএনপি নেতা মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুরুতর আহত

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ৪৯ জনের মধ্যে বাংলাদেশির সংখ্যা ২৫

১৩ মার্চ,২০১৮

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় ২৫ বাংলাদেশিসহ নিহত ৪৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
কাঠমান্ডু: এভারেস্টের দেশ নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে ৪৯ জন নিহত হয়েছেন, যার মধ্যে ২৫ জন বাংলাদেশি রয়েছেন। খবর এএফপি’র

এদিকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে নিহতদের মধ্যে ২৫ জন বাংলাদেশি। সর্বশেষ প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী আহত ২২ আরোহীকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আহতদের মধ্যে ১১ জন বাংলাদেশি।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার ফেইসবুক পেইজে বাংলাদেশি যাত্রীদের তালিকা দিয়ে লিখেছেন, ‘সবুজ কালিতে নাম লিখা ব্যক্তিরা আহত, আমাদের এ্যাম্বাসী কর্মকর্তারা দেখা করেছেন। বাকীরা জীবিত নেই। পাইলট নরভিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। একজন ক্রু সম্ভবত জীবিত আছেন, তবে তাকে এখনও পৌছানো যায়নি।’

আহতদের মধ্যে আট জনই ভর্তি আছেন কাঠমান্ডু মেডিক্যাল কলেজে (কেএমসি)। তারা হলেন- শাহরিন আহমেদ, আলমুন নাহার এ্যানি, শাহীন ব্যাপারী, মেহেদি হাসান, এমরানা কবীর, কবীর হোসেন, শেখ রাশেদ রোবায়েত ও সৈয়দা কামরুন্নার স্বর্ণা। আর রেজওয়ানুল হক ভর্তি আছেন ওম হাসপাতালে।

এর বাইরে দু’জন ত্রু আহত থাকার কথা জানা গেলেও তাদের ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যায়নি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ৭৮ জন ধারণ সক্ষম বিমানটিতে ক্রু ছিলেন চার জন। তারা সবাই বাংলাদেশি। যাত্রীদের মধ্যে ৩২ জন বাংলাদেশি, ৩৩ জন নেপালি এবং মালদ্বীপ ও চীনের একজন করে নাগরিক ছিলেন।

বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের জনসংযোগ কর্মকর্তা রেজাউল করিম গণমাধ্যমকে জানান, ৭১ জন আরোহীর মধ্যে ৬৭ জন যাত্রী ছিলেন।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার দুপুর ১২টা ৫১ মিনিটে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড়োজাহাজটি ছেড়ে যায়। নেপালে পৌঁছানোর পর স্থানীয় সময় ২টা ২০ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় ৩টা ৫ মিনিট) এটি বিধ্বস্ত হয়।

নেপালে বাংলাদেশি বিমান বিধ্বস্ত, সর্বশেষ কী জানা যাচ্ছে
কাঠমন্ডু: বেসরকারি মালিকানাধীন বাংলাদেশী বিমান সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট নম্বর ২১১ নেপালের রাজধানী কাঠমুন্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রানওয়েতে নামার সাথে সাথে কানাডীয় বিমান প্রস্তুতকারী সংস্থা বমবার্ডিয়ার অ্যারোস্পেসের তৈরি ড্যাশ-৮ বিমানটিতে আগুন ধরে যায়। খবর বিবিসির।

এখন পর্যন্ত যা জানা গেছে, অন্তত ৪৯জন আরোহী মারা গেছেন।

বিমানে মোট ৬৭জন যাত্রী ছিলেন, যাদের মধ্যে ৩২জন বাংলাদেশি এবং ৩৩জন নেপালি ছিলেন।

বাংলাদেশি যাত্রীদের মধ্যে ১৪ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। বাকি ১৮জন নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিমান পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন চারজন ক্রু সদস্য।

নেপালি কর্তৃপক্ষ বলছে, ফ্লাইট ২১১কে রানওয়ের দক্ষিণ দিক থেকে অবতরণ করতে বলা হলেও পাইলট উত্তর দিক থেকে অবতরণ করে।

তবে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স নেপালি কর্তৃপক্ষের দাবী অস্বীকার করে বলেছে, কন্ট্রোল টাওয়ার থেকে পাইলটকে ভুল নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল।

বিমানের ‘ব্ল্যাক বক্স’ উদ্ধার করা হয়েছে - এটি এমন একটি যন্ত্র যাতে ককপিটের যাবতীয় কথাবার্তা এবং বিমানের কারিগরি তথ্য রেকর্ড করা হয়।

কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে এ পর্যন্ত ৭০টি দুর্ঘটনা হয়েছে, যাতে ৬৫০ জনের বেশি লোক নিহত হয়েছে।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিঙ্গাপুর থেকে একটি ভিডিও বার্তায় বিমান দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার বাংলাদেশি যাত্রীদের আত্মীয়-স্বজনদের কাঠমান্ডু নিয়ে যাবে।

বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ তদন্তে সহায়তা করার জন্য তিন-সদস্যর একটি দল গঠন করেছে, যারা শীঘ্রই কাঠমুন্ডু পৌঁছাবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া প্রতিদিন পাতার আরো খবর

বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশের তালিকায় বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশগুলির একটি তালিকা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ বিশ্ . . . বিস্তারিত

খালেদা জিয়া ক্ষমতায় ফিরলে সমৃদ্ধি থমকে যাবে: অর্থমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনজাকার্তা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ক্ষমতায় ফিরলে দেশের সমৃদ্ধি থমকে যাবে বলে মন্তব্য করেছে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com