মুসলিম নারী খেলোয়াড়দের অনুপ্রেরণা হিজাবি জাহরা

১০ অক্টোবর,২০১৭

জাহরা লারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
দুবাই: সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্কেটিং ফিগার জাহরা লারি ২০১৮ সালের শীতকালীন অলিম্পিকের জন্য চূড়ান্ত সুযোগ থেকে শনিবার বাদ পড়েছেন। তিনি ‘নিবেলর্হন’ ট্রফি প্রতিযোগিতায় ৩৩ জন স্কেটারের মধ্য সবার শেষে অবস্থান করেন। কিন্তু মুসলিম নারীদের জন্য এই পদক্ষেপকে লারি পশ্চাদপদ নয়, বরং সামনে যাওয়ার উপায় হিসেবে দেখছেন।

মধ্যপ্রাচ্যের মরুর দেশ আমিরাতের এই নারী শীতকালীন অলিম্পিকে মুসলিম নারীদের জন্য সাংস্কৃতিক বাধাগুলো দূর করতে সচেষ্ট হয়েছেন।

লারি (২২) একমাত্র ক্রীড়াবিদ যিনি আন্তর্জাতিক স্কেটিং সার্কিটে হিজাব পরিধান করে খেলায় অংশ নেন। পাঁচ বছর আগে ইতালিতে প্রথম আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় হিজাব পরে অংশ নেন। সে সময় বিচারকেরা হিজাবের কারণে তার স্কোর থেকে কিছু পয়েন্ট কেড়ে নিয়েছিল।

পরে তিনি আন্তর্জাতিক স্কেটিং ইউনিয়নের (আইএসইউ) কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। 

আইএসইউ’র নিয়মানুযায়ী, স্কেটিং প্রতিযোগিতার জন্য পোশাক অবশ্যই ‘শালীন, মর্যাদাসম্পন্ন এবং উপযুক্ত’ হওয়া উচিত – চটকদার পোশাক নয়।

যদিও সেখানে হিজাবের বিরুদ্ধে কোনো স্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা নেই। লারি জানান, বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক স্কেটিং ইউনিয়নের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে কিন্তু এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো অবস্থান গ্রহণ করা হয়নি।

স্কাইটিং ইউনিয়নের সহ-সভাপতি আলেকজান্ডার ল্যাখারিক বলেন, ‘বিষয়টি আমাদের জন্য অধিক সমস্যা তৈরি করছে কিনা সে ব্যাপারে আমি নিশ্চিত নই।’

স্কেটিং ফেডারেশন সম্ভবত ফুটবলের ইন্টারন্যাশনাল গভর্নিং বডি ফিফা থেকে শিক্ষা নিয়েছে। ২০১৪ সালের আগ পর্যন্ত সংস্থাটি খেলোয়াড়দের মাথায় হিজাবকে নিষিদ্ধ করেছিল।

এই নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে ২০১২ সালের অলিম্পিক কোয়ালিফাইং টুর্নামেন্ট থেকে ইরানের মহিলা দল একটি ম্যাচ থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়। এর পরই ফিফা বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করতে শুরু করে।

বাস্কেটবলের আন্তর্জাতিক ফেডারেশনও গত মে মাসে হিজাবের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে।

২০০৬ সালে ইতালিতে অনুষ্ঠিত শীতকালীন অলিম্পিকে প্রথমবারের মতো হিজাব পরে স্কেটিংয়ে অংশ নেন তুরস্কের টুঘবা কারাদেমির।

২০০৪ সালে গ্রীসে অনুষ্ঠিত গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে বাহরাইনের স্পিন্টার রকিয়া আল ঘসারা হিজাব পরে অংশ নেন। ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকে সৌদি আরব প্রথমবারের মতো অলিম্পিকে মহিলাদের পাঠায়।

২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম হিজাবি অলিম্পিয়ান হিসাবে নিউইয়র্কের ইফতিহাজ মুহম্মদ হিজাব পরিধান করে প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। ‘স্যাবার’ প্রতিযোগিতায় তিনি ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিলেন।

লারি’র মা রোকাইয়া কোহেরান বলেন, ‘বিশ্বে প্রত্যেকেরই একটি স্থান রয়েছে এবং তাদের সেই স্থান খুঁজে পাওয়ার সক্ষমতা ও অধিকার থাকা উচিত।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে এখনো নামে-বেনামে বিভিন্নজন সমালোচনা করে থাকেন বলে লারি জানান। ‘এটি আপনার সংস্কৃতির বিরুদ্ধে। এটি আপনার ধর্মের অংশ নয়’ এসব মন্তব্য তাকে প্রতিনিয়তই শুনতে হয় বলে তিনি জানান।

তার ফেসবুক ফ্যান পেজে আরেকটি হাস্যকর প্রতিক্রিয়াও রয়েছে। অনেকেই তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে থাকেন।

তার মাকে হাস্যজ্জ্বল মুখে বলেন, ‘এটা তাত্ক্ষণিক মুছে দেয়া হয় এবং ব্লক করে দেয়া হয়।’

সূত্র: মায় এজেসি ডটকম

মন্তব্য

মতামত দিন

অন্যান্য পাতার আরো খবর

প্রথম দিনে বৃষ্টির বদৌলতে ইতিহাসে স্থান করে নিলো আয়ারল্যান্ড

খেলা ডেস্কআরটিএনএনডাবলিন: আয়ানল্যান্ডের জন্য ১১ মে, ২০১৮ দিনটি ঐতিহাসিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ১১তম টেস্ট খেলুড়ে দে . . . বিস্তারিত

ফুটসালে বাংলাদেশের নারীরা কিভাবে খেলে?

খেলা ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: ফুটসাল টুর্নামেন্টে অংশ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশের নারী ফুটবল দল । আগামী ২রা থেকে ১২ই মে ব্যাংককে অন . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com