রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল-২০১৮ এর ফাইনাল ম্যাচ রবিবার

১২ জুলাই,২০১৮

রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল-২০১৮ এর ফাইনাল ম্যাচ রবিবার

খেলা ডেস্ক
আরটিএনএন
মস্কো: নতুন সব সব রেকর্ডের জন্ম দিয়ে টানা এক মাসের ক্রীড়ার মেলা এখন প্রায় অন্তিম মুহূর্তে। শেষ হয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল দুটিও।

সামনে আছে দুটি ম্যাচ। একটি গৌণ, মানে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ। আর অন্যটি বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ ফাইনাল।

ফাইনাল ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামি রবিবার (১৫ জুলাই) বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায়। রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়ামে ফাইনালে এবার মুখোমুখি হচ্ছে ইউরোপের দুই দেশ ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া। ফ্রান্স এর আগে ১৯৯৮ সালে শিরোপা জিতেছে। আর ২০০৬ সালে হয়েছিল ইতালির সাথে রানার্সআপ।

আর ক্রোয়েশিয়া ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপে হয়েছিল তৃতীয়। অবশ্য ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপই ছিল দলটির জন্য প্রথম বিশ্বকাপ। পরে অবশ্য ২০০২, ২০০৬ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্যায় থেকেই বিদায় নিতে হয়। আর ২০১০ বিশ্বকাপে তো এবারের ইতালির মতো কোয়ালিফাইড-ই হতে পারেনি। সবশেষ ২০১৪ সালের বিশ্বকাপেও গ্রপ পর্যায় থেকে বিদায় নিতে হয় দলটিকে।

অতীত যা-ই হোক এবারের বিশ্বকাপে নবীন দল হিসেবে ক্রোয়েশিয়া যথেষ্ট জনপ্রিয় দল। বিশেষ করে গ্রুপ পর্যায়ের দ্বিতীয় ম্যাচে হট ফেভারিট দুই বারের বিশ্ব চ্যাইম্পয়ন ও বর্তমান রানার্সআপ আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে হারিয়ে রীতিমত সবার নজরে চলে আসে। ব্রাজিলের বিদায়ের পর ব্রাজিলিয়ান সাপোর্টাররা তো রীতিমত ফ্যান হয়ে যায় ক্রোয়েশিয়ার।

রাশিয়া বিশ্বকাপের শুরু থেকেই নতুন নতুন রেকর্ড বলে দিচ্ছিল এ বিশ্বকাপ ২০১০ এর মতো নতুন কিছুর জন্ম দেবে। ফুটবল বোদ্ধাদের সে ধারণা সত্যি প্রমাণিত হয়েছে। গ্রুপ পর্যায়ে জার্মানি তাদের প্রথম ম্যাচে মেক্সিকোর বিরুদ্ধে ০-১ গোলে হারে।
গ্রুপ পর্যায়ে এই জার্মানিকে নিয়েই আরেক ইতিহাস রচনা করে দক্ষিণ কোরিয়া। বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে ২-০ গোলে হারায় দক্ষিণ কোরিয়া। ফলে গ্রুপ পর্যায় থেকেই বিদায় নিতে হয় জার্মানিকে।

দক্ষিণ কোরিয়া অবশ্য ঐ ম্যাচের আগের দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার স্বপ্ন থেকে ছিটকে পড়েছিল সুইডেন ও মিক্সকোর কাছে হেরে। যাওয়ার আগে তাই মরণ কামড় দিয়ে যায় জার্মানিকে। অবশ্য এ ম্যাচটা দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য প্রতিশোধ ছিল। কারণ ২০০২ বিশ্বকাপে নিজেদের মাটিতে জার্মানির কাছে হেরেছিল এই দক্ষিণ কোরিয়া। সিউলে অনুষ্ঠিত ঐ সেমি ফাইনাল ম্যাচটিতে জার্মানি ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনাল বঞ্চিত করেছিল দক্ষিণ কোরিয়াকে।

স্বপ্নের ফাইনালে উঠেছে ক্রোয়েশিয়া। বহু অপেক্ষার পর বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে উঠার স্বপ্ন পুরণ করেছে ক্রোয়েটরা। বিশ্বকাপের সেরা মঞ্চে জায়গা পেয়েছে। রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলে এই লুজনিকির মাঠেই ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া এবং ফ্রান্স মুখোমুখি হবে। বুধবার রাতে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অতিরিক্ত সময়ে ২-১ ইংল্যান্ডকে হারিয়ে স্বপ্নের ফাইনালে জায়গা পেল ডেবর সুকরের দল ক্রোয়েশিয়া।

নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে শেষ হয়। ৩০ মিনিটের অতিরিক্তি সময়ের দ্বিতীয় পর্বে মারিও মানজুকিকের বা পায়েল গোল ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তুলে দেয়। বিদায় করে দেয় ইংল্যান্ড ফুটবল দলকে।

লুজনিকির মাঠে খুব সংখ্যক ক্রোয়েটরা ছিলেন। তারাই ছিলেন দলের সবচেয়ে বড় শক্তি। গোল হজম করেও তারা রাকিটিচ, মডরিকদের পাশে ছিলেন। অপেক্ষায় ছিলেন ভালো কিছু হবেই। মর্ডিকরা তাদের সমর্থকদের হাতে ফাইনালে আসার আমন্ত্রণ পত্র দিয়েছে। আবার আসো ফাইনালে আমরা খেলব।

৬৬ বিশ্বকাপ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর আর কখনো ফাইনালের ধারে কাছেও যেতে পারেনি ইংল্যান্ড। ৬৬র পর আবার ফাইনালে উঠার সুযোগ পেয়েছিল। অর্ধ শতাব্দী কেটে গেলেও বার বার এই ইংল্যান্ডকে খালি হাতে ফিরতে হয়েছিল বিশ্বকাপ হতে। ইংলিশদের ভাবনা ছিল এবার বোধহয় ঈশ্বর তাদের দিকে ফিরে তাকিয়েছে।
নতুন প্রজন্মের ইংলিশরা দেখবে ওয়েন রুনি, বেকহামদের ব্যর্থতা ঢেকে দিতে জানবাজি রেখে লড়াই করছে হানডারসন, স্টারলিং, হ্যারি কেইনরা ফাইনালে মঞ্চে নিয়ে যাবেন। ইংলিশ ফুটবলের আকাশে নতুন সূর্য্যের আলোর দেখা মিলবে। সব কিছু ধুলোয় মিলিয়ে গেছে। স্বপ্নের ফাইনালে ওঠা হয়নি ইংলিশদের।

শুরুতেই গোল করেও ইংল্যান্ড সেটা রাখতে পারেনি। ক্রোয়েশিয়ান ফুটবলের কাছে ইংল্যান্ডকে গোল হজম করতেই হয়েছে। তার্কিশ রেফারী কুনিয়েত কাকির ৯০ মিনিটের খেলা শেষ করলেন। ৩০ মিনিট খেলতে বললেন। ইংল্যান্ড যে এই ৩০ মিনিটেও ক্রোয়েশিয়ার কাছে হার মানতে বাধ্য হবো সেটা বোধহয় বুঝতে পারছিলেন ইংলিশ দর্শক। গ্যারি লিনেকার, টেরিবুচার, ববি চার্লটনদের ফুটবল আরো একবার মুখ থুবড়ে পড়ল। ক্রোয়েশিয়ান সাবেক তারকা ফুটবলার অধিনায়ক বর্তামান ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি ডেবর সুকারের স্বপ্ন পুরণ করে দিয়েছেন নতুন প্রজন্মের ফুটবলাররা।

খেলা শুরুতে গোল পেয়ে ইংলিশ দর্শকরা লুজনিকির মাঠে যা করল তা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার চেয়েও বেশি কিছু হয়েছে। ইংলিশ দর্শকরা যেন উন্মাতাল হয়ে গিয়েছিল। গ্যালারি জুড়ে বিয়ার ঢেলে দিয়েছে। হাতে হাতে বিয়ারের গ্লাস। এক চুমুক দিয়েই আকাশে মারছে। খেলা ৬ মিনিটে কেইরান ট্রিপারের গোলে (১-০) এগিয়ে যাওয়ার পর থেকে তাদের উত্তেজনা যেন গড়িয়ে গড়িয়ে পড়ছিল।

ইংলিশদের ঠেলাঠেলি আরেক জনের গায়ে গিয়ে পড়ছিল। আর বার বার তারা সরি সরি বলে যাচ্ছিল। লুজনিকির এই মাঠেই ফাইনাল। ইংলিশরা বলছিলেন উই আর ফেভারিট। উই আর এগেইন ওয়ার্ল্ডকাপ উইনার। ক্রোয়েশিয়ার সমর্থকদের সঙ্গে বার বার ঝগড়া বাধিয়েছেন ইংলিশ সমর্থকরা। বেচারা ক্রোয়েটরা যেন ভেজা বিড়ালের মতো হয়ে গিয়েছিলেন। কোনো দিকে না তাকিয়ে চোখ রেখেছিলেন মাঠে। কিন্তু গোল হজমটা ক্রোয়েটরা মেনে নিতে পারছিলেন না।
ইংলিশ ডিফেন্ডার কেইল ওয়াকার, জন স্টোন, হ্যারি মিগুয়েররা জানতেন কিভাবে ক্রোয়েশিয়ার বল সাপ্লাইটা বন্ধ করে দিতে হয়। প্রথমার্ধ পর্যন্ত ইংলিশরা সফল হলেও ৬৮ মিনিটে কিন্তু ক্রোয়েশিয়ানরা ঠিকই ইংলিশদের জাল ফুটো করে দিয়েছেন। অবিশ্বাস্য গোল করেছেন ইতালিয়ান ফুটবলে খেলা ইভান পেরিসিক। ইংলিশ ডিফেন্ডার কেলি ওয়াকার মাথা লাগিয়ে ক্লিয়ার করার আগেই ইভান পেরিসিক মাথার উপর দিয়ে পা বাড়িয়ে গোল করেন ১-১। খেলা গড়াল অতিরিক্তি সময়ে। ৩০ মিনিটে লড়াই যেন শেষ হলো কয়েক মিনিটে। ১০৮ মিনিটে মারিও মানজুকিচের গোল ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তুলে দিল ২-১।

এতো উত্তেজনা প্রথম সেমিফাইনালে দেখা যায়নি, সেন্ট পিটারবার্গের মাঠের প্রথম সেমিফাইনালে ফ্রান্স এবং বেলজিয়ামের লড়াইয়ে। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে তার চেয়ে বেশি উত্তেজনা দেখেছেন ফুটবল দর্শক। টান টান উত্তেজনায় ক্রোয়েশিয়া দুর্দান্ত ফুটবল খেলল। ৯৮ ফ্রান্স বিশ্বকাপ ফুটবলের সেমিফাইনাল খেলা ক্রোয়েশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে উঠে ফুটবলে নতুন ইতিহাস গড়ল। ইংলিশ যেসব সমর্থক বিয়ার ছুঁড়েছেন তারা হেরে গিয়ে মুখ বন্ধ করে লুজনিকির মাঠ ছেড়ে গেছেন। স্টেডিয়ামের আর সব দর্শক দাঁড়িয়ে ক্রোয়েশিয়াকে সম্মান জানিয়েছে। ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক লুকা মডরিক ফাইনাল দেখার আমন্ত্রণ জানিয়ে দিলেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

ফুটবল পাতার আরো খবর

মেসিকে অবসরে না যাওয়ার অনুরোধ জানালেন তেভেজ

খেলা ডেস্কআরটিএনএনবুয়েন্স আয়ার্স: সদ্য সমাপ্ত রাশিয়া বিশ্বকাপটা দুঃস্বপ্নের মতো কেটেছে আর্জেন্টিনার। দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে . . . বিস্তারিত

নিজেকে একজন ফিলিস্তিনি মনে করেন ম্যারাডোনা

খেলা ডেস্কআরটিএনএনমস্কো: আর্জেন্টাইন ফুটবল লিজেন্ড ডিয়েগো ম্যারাডোনা ফিলিস্তিনিদের ন্যায়সঙ্গত অধিকারের প্রতি তার দৃঢ় স . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com