৩৮ বছর পর চার নম্বরে বাংলাদেশ

১৯ মার্চ,২০১৭

খেলা ডেস্ক

আরটিএনএন

ঢাকা: মেহেদী হাসান মিরাজের সুইপ যখন ফিল্ডার ধরতে ব্যর্থ হলেন তখন অন্যপ্রান্তে উৎসব শুরু করে দিয়েছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ব্যাটসম্যান নিজেও মেতেছিলেন জয়ের আনন্দে; এর মাঝেও প্রয়োজনীয় দুটি রান নিলেন দু’জনই, সীমানা থেকে ছুটে এল উচ্ছ্বসিত সতীর্থরা। শ্রীলঙ্কাকে প্রথমবারের মতো টেস্টে হারাল বাংলাদেশ, নিজেদের শততম টেস্টে। আর এই জয়ে বাংলাদেশও ঢুকে গেলো ইতিহাসের পাতায়। দীর্ঘ ৩৮ বছর পর চতুর্থ দল হিসেবে শততম টেস্ট ম্যাচে জয় পেলো বাংলাদেশ।


৩৮ বছর আগে সর্বশেষ শততম টেস্ট ম্যাচে জয় পেয়েছিল পাকিস্তান। ১৯৭৯ সালে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াকে ৭১ রানে হারিয়েছিল পাকিস্তান। মজিদ খানের সেঞ্চুরি ও সরফরাজ নেওয়াজের অসাধারণ বোলিংয়ে জয় পায় পাকিস্তান। মজিদ খান করেছিলেন ১০৮ রান। অন্যদিকে সরফরাজ নেওয়ায় বল হাতে নিয়েছিলেন ৯ উইকেট। অবশিষ্ট ১ উইকেট কাটা পরেছিল রান আউটে।


এর আগে ১৯৬৫ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছিল নিজেদের মাটিতে। জ্যামাইকার সাবিনা পার্কে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অস্ট্রেলিয়াকে হারায় ১৭৯ রানের বড় ব্যবধানে। ম্যাচে দুই ইনিংসে ৯ উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জিতিয়েছিলেন স্যার ওয়েস হল।


সবার আগে শততম টেস্ট ম্যাচে জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। ১৯১২ সালে ম্যানচেস্টারে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হেসেখেলে জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ইনিংস ও ৮৮ রানে জয় পায় অসিরা। ব্যাট ও বল হাতে দূর্দান্ত ছিলেন চার্লস কেলেওয়ে। প্রথমে ব্যাট হাতে ১১৪ রান এবং পরবর্তীতে বল হাতে ৫ উইকেট নেন কেলেওয়ে।

মন্তব্য

মতামত দিন

ক্রিকেট পাতার আরো খবর

অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের নতুন কোচ রাইট

খেলা ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: গত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের আগে পরামর্শক হিসেবে এসেছিলেন স্টুয়ার্ট ল। আসছে যুব বিশ্বকাপেও বাংলাদেশ . . . বিস্তারিত

কিউইদের হারিয়ে র‌্যাংকিংয়ে ছয় নম্বর নিশ্চিত করতে চায় টাইগাররা

খেলা ডেস্কআরটিএনএনডাবলিন: রোববার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড জিতে যাওয়ায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আশা শেষ হয়ে গেছে বাংলাদ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com