সর্বশেষ সংবাদ: |
  • বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর প্রার্থিতা বৈধ করবে বলে জানিয়েছেন আদালত, অ্যাটর্নি জেনারেলের মতামত নেওয়ার পর আদেশ
  • তিন আসনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে দায়ের করা রিটের শুনানি চলছে
  • সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সংবিধান, ভোটার ও রাজনৈতিক নেতাদের কাছে দায়বদ্ধ নির্বাচন কমিশন : সিইসি

এবার ঢাবি ছাত্র সিদ্দিকের চোখে পুলিশের রাবার বুলেট

০৯ এপ্রিল,২০১৮

এবার ঢাবি ছাত্র সিদ্দিকের চোখে পুলিশের রাবার বুলেট

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: শাহবাগে পুলিশের রাবার বুলেটে চোখে আঘাত পেয়েছেন আবুবকর সিদ্দিক নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্র। আবুবকর সিদ্দিক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

রবিবার রাতে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার নিয়ে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। ওই সময় সিদ্দিকের চোখে রাবার বুলেট লাগে।

আহত অবস্থায় সিদ্দিককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সিদ্দিকের চোখ দিয়ে ব্যাপক রক্তক্ষরণ হচ্ছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

সিদ্দিকের একাধিক বন্ধু জানান, সিদ্দিক কোটা সংস্কার আন্দোলনের মিছিলে সামনে ছিলেন। পুলিশ যখন কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে তখনো তিনি সামনে ছিলেন। পরে পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেট লাগে সিদ্দিকের বাঁ চোখে। এ সময় রক্তে তার মুখ ও শরীর ভিজে যায়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সিদ্দিক জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন।

সাত কলেজের সংকট সমাধানের দাবিতে আন্দোলনে যোগ দিতে এসে গত বছরের ২২ জুলাই পুলিশের কাঁদানে গ্যাসের শেলের আঘাতে চোখ হারান তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমান। ওই ঘটনার ঘটনার ১০ মাস না পেরোতেই সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে প্রায় একই এলাকায় আন্দোলনে এসে চোখে রাবার বুলেটের আঘাতে আহত হয়েছেন আরেক শিক্ষার্থী। তার নাম আবুবকর সিদ্দিক।

আরও পড়ুন.....
কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ
শাহবাগে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আন্দোলনকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে গেছে। পুলিশ কয়েকজন আন্দোলনকারীকে আটক করেছে।

রবিরার রাত পৌনে আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ কয়েকজন আন্দোলনকারীকে আটক করেছে। তবে কত জনকে আটক করা হয়েছে তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি।

সরেজমিন ঘটনাস্থলে দেখা গেছে, টিয়ারশেল নিক্ষেপের পর পরই পুলিশ আন্দোলনকারীদের ধাওয়া দেয় ও লাঠিচার্জ করে। এ ঘটনায় মুহূর্তেই আন্দোলনকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এ সময় ছুটে পালানো অবস্থায় কয়েকজন আন্দোলনকারীকে আটক করে পুলিশ।

এর আগে সন্ধ্যা থেকেই বিপুল সংখ্যক পুলিশ শাহবাগের দিকে জড়ো হতে থাকে। পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী এদিন দুপুর ২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীদের পদযাত্রা শুরু হয়। পরে রাজু ভাস্কর্য হয়ে নীলক্ষেত ও কাঁটাবন ঘুরে পদযাত্রাটি শাহবাগ মোড়ে আসে। এরপর বিকাল ৩টা থেকে শাহবাগেই অবস্থান নেয় তারা। এতে শাহবাগের চারদিকের সড়কগুলোতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে পুরো শহরজুড়ে যানজট দেখা দেয়।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র সংরক্ষণ পরিষদ' এর ব্যানারে যে পাঁচটি বিষয়ে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন চলছে সেগুলো হল -

•কোটা-ব্যবস্থা ১০ শতাংশে নামিয়ে আনা (আন্দোলনকারীরা বলছেন ৫৬% কোটার মধ্যে ৩০ শতাংশই মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বরাদ্দ। সেটিকে ১০% এ নামিয়ে আনতে হবে)

•কোটায় যোগ্য প্রার্থী পাওয়া না গেলে মেধাতালিকা থেকে শূন্য পদে নিয়োগ দেওয়া

•সরকারি চাকরিতে সবার জন্য অভিন্ন বয়স-সীমা- ( মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে চাকরীর বয়স-সীমা ৩২ কিন্তু সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য ৩০। সেখানে অভিন্ন বয়স-সীমার দাবি আন্দোলনরতদের।)

•কোটায় কোনও ধরনের বিশেষ পরীক্ষা নেয়া, যাবে না ( কিছু ক্ষেত্রে সাধারণ শিক্ষার্থীরা চাকরি আবেদনই করতে পারেন না কেবল কোটায় অন্তর্ভুক্তরা পারে)

•চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় একাধিকবার কোটার সুবিধা ব্যবহার করা যাবে না।

বাংলাদেশে প্রচলিত কোটা ব্যবস্থা নিয়ে সমালোচনা শুধু শিক্ষার্থী বা চাকরি-প্রার্থীদের মাঝেই রয়েছে তেমনটি নয়, বিশেষজ্ঞদেরও মতামত রয়েছে কোটা সংস্কারের পক্ষে।

মন্তব্য

মতামত দিন

উচ্চ শিক্ষা পাতার আরো খবর

আ.লীগ, বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের কাছে কোটা আন্দোলনের নেতাদের ‘তারুণ্যের ইশতেহার’ প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ‘তারুণ্যের ইশতেহার’ নামে একটি প্রস্তাবন . . . বিস্তারিত

ঢাবির ‘ক’ ইউনিটে ৮৭ শতাংশই ফেল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com