ব্রেকিং সংবাদ: |
  • পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ারকে তারেক রহমানের লিগ্যাল নোটিশ
  • ‘তারেক বর্তমানে বাংলাদেশের নাগরিক নন’
  • কাবুলে ভোটার নিবন্ধনকেন্দ্রে হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৩
  • ২৫ বছরের যুদ্ধে সোয়া কোটি মুসলিম নিহত, যা একটি বিশ্বযুদ্ধের সমান ক্ষয়ক্ষতি
  • খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সপ্তাহব্যাপী বিএনপির নতুন কর্মসূচি ঘোষণা
  • ত্রিভুবন বিমানবন্দরের গাফিলতিই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী: ইউএস-বাংলা
  • যে শর্তে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপিকে ছাড় দিল জামায়াত

প্রশ্নপত্র আর ফাঁস করা সম্ভব হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

০১ ফেব্রুয়ারি,২০১৬

পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে শিক্ষামন্ত্রী-- ছবি আরটিএনএন

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: গৃহীত পদক্ষেপের ফলে প্রশ্নপত্র আর ফাঁস করা সম্ভব হবে না বলে আশা করছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

এ প্রেক্ষাপটে তিনি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানান।

সোমবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর দিনে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকের এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘ফেসবুকে বা অন্য কোনোভাবে এবার প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো সম্ভাবনা নেই। ছেলে-মেয়েরা হাসি মুখে পরীক্ষা দিচ্ছে। কেউ কারো দিকে তাকাচ্ছে না, যে যার মতো করে পরীক্ষা উত্তরপত্র ভরাট করছে।’

নাহিদ বলেন, ‘ফেসবুকে প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে কেউ লিখলে তার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ব্যবস্থা নেবে।’

সোমবার সকাল ১০টায় সারাদেশে ৩,১৪৩টি কেন্দ্রে একযোগে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

প্রথম দিন এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র, সহজ বাংলা প্রথম পত্র এবং বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রথম পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আর মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে কুরআন মাজিদ ও তাজবীদ এবং এসএসসি ভোকেশনালে বাংলা-২ (১৯২১) (সৃজনশীল) ও বাংলা-২ (৮১২১) (সৃজনশীল) ও দাখিল ভোকেশনালে বাংলা-২ (১৭২১) (সৃজনশীল) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এবারের পরীক্ষায় আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডসহ ১০টি বোর্ডে নিয়মিত ও অনিয়মিত মিলে মোট পরীক্ষার্থী ১৬ লাখ ৫১,৫২৩ জন।


পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে অভিভাবকদের সাথে কথা বলছেন শিক্ষামন্ত্রী--- ছবি আরটিএনএন

এবার এসএসসি পরীক্ষায় বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) অংশের পরীক্ষা আগে হচ্ছে। পরে হচ্ছে সৃজনশীল অংশের পরীক্ষা। দুই অংশের পরীক্ষার মাঝে ১০ মিনিট সময়ের ব্যবধান থাকছে। এতদিন সৃজনশীল অংশ আগে হতো, পরে এমসিকিউ অংশ হতো।

ঘোষিত সময়সূচি অনুযায়ী এসএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা আগামী ৮ মার্চ শেষ হবে। আর ব্যবহারিক পরীক্ষা ৯ মার্চ থেকে শুরু হয়ে ১৪ মার্চ শেষ হবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

শিক্ষা পাতার আরো খবর

প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে টিআইবির ৯ সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ৯টি সুপারিশ করেছে। . . . বিস্তারিত

২০১৯ থেকে নতুন পদ্ধতিতে এসএসসি পরীক্ষা, আন্তমন্ত্রণালয়ে সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনঢাকা: ২০১৯ থেকে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষা নতুন প্রশ্নপত্র ও নতুন পদ্ধতিতে নেওয় . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com