আবারো মাঠে নামতে যাচ্ছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা

২৬ জুন,২০১৮

আবারো মাঠে নামতে যাচ্ছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করায় আবারও আন্দোলনের মাঠে নামছে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

এবারের আন্দোলন কোটা পদ্ধতি সংস্কারে সরকার প্রজ্ঞাপন জারি না করা পর্যন্ত চলবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা।

পবিত্র রমজান ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিনের ছুটি থাকায় এ মাসের শেষের দিকে অথবা আগামী জুলাই মাসের প্রথম দিকে শুরু হতে পারে। সেজন্য প্রস্তুতি চলছে।

সংগঠনের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, ‘কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে মন্ত্রী পরিষদ থেকে আমরা এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত পাইনি। আমরা চাই জুন মাসের মধ্যেই কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি হোক। তা না হলে জুলাই মাসে সংবাদ সম্মেলন করে আমরা নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের এ আন্দোলন ছিলো কোটা সংস্কারের, কোটা বাতিলের নয়। এখন রাষ্ট্রের প্রয়োজনে যদি কিছু অংশ রাখা প্রয়োজন মনে করেন, তাহলে সেটা তারা রাখতে পারেন। তবে সেটা অবশ্যই আমাদের পাঁচ দফা দাবির আলোকে হতে হবে। এছাড়া কোটা বাতিলের ঘোষণার পরেও যারা কোটা সংস্কার আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে।’

যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর বলেন, ‘এ মাসটা আমরা দেখবো। যদি এ মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হয়, তবে সামনের মাসে আমরা আবার আন্দোলনে নামবো। প্রজ্ঞাপন না হলে আন্দোলন চলবে।’

রাশেদ খান বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে দ্রুতই কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির আশ্বাস দেয়া হলেও এখন পর্যন্ত কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয় নাই। তাই দাবি আদায়ে আমরা আবার মাঠে নামবো।’

বিদ্যমান কোটার সংস্কার চেয়ে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে আন্দোলন করে আসছেন। ৮ এপ্রিল শাহবাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশের লাঠিপেটা ও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ার কারণে আন্দোলন সহিংস হয়ে ওঠে। এর জের ধরে সারা দেশেই আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে। আন্দোলনকারীরা ঘোষণা দেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ঘোষণা না আসা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। এ অবস্থায় গত বুধবার (১১ জুন) জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের পক্ষে মত দেন। এই ঘোষণার পর প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত করেন আন্দোলনকারী। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোটা বাতিলে প্রজ্ঞাপন জারি বা কমিটি গঠনের বিষয়ে কোনো অগ্রগতি নেই। সবশেষ গত ২৭ এপ্রিল আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকের সঙ্গে বৈঠকে বসেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের ১৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল। তখন আন্দোলনকারীদের আশ্বাস দেয়া হয়েছিল প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরলে সিদ্ধান্ত হবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

প্রধান খবর পাতার আরো খবর

ছয় মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের রুল স্থগিত চেয়ে উপাচার্যের আপিল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ছয় মাসের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন অনুষ্ঠানে পদক্ষেপ . . . বিস্তারিত

সরকারি হলো ৪৪ বিদ্যালয়

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: নতুন করে আরও ৪৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় সরকারি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) শিক্ষা মন্ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com