আমরণ অনশনকারীদের চলে যেতে পুলিশের নির্দেশ

০৭ ফেব্রুয়ারি,২০১৮

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান করে আমরণ অনশনকারীদের চলে যেতে নির্দেশ দিয়েছে শাহবাগ থানা পুলিশ। শাহবাগ থানার পেট্রল ইন্সপেক্টর (পিআই) শেখ আবুল বাশার বলেন, আমরা কাউকে প্রেসার করি নাই।

তিনি বলেন, আমরা তাদের নিরাপত্তার জন্য আপাতত সরে যেতে বলেছি। তাদের যদি প্রয়োজন হয় আবার এসে বসবে।
প্রেসক্লাবের সামনে অনশনে রয়েছেন বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ, চাকরির বয়স ৩৫ করার দাবিতে একদল শিক্ষার্থী ও বাংলাদেশ কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার আশঙ্কায় এমনটা বলা হয়েছে। তবে কাউকে চলে যাওয়ার জন্য জোর করা হবে না বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে বুধবার সকাল থেকে কোন সংগঠনকে মাইক ব্যবহার করতে দিচ্ছে না পুলিশ।

জাতীয়করণের একদফা দাবিতে গত ২১ জানুয়ারি থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছেন বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষকরা। এরপর ২৬ জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশন পালন করছেন শিক্ষকগণ। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবেন বলে তারা বলছেন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান বলেন, গত রাতেই আমাদের চলে যাওয়ার কথা বলে পুলিশ। আমরা এখনো সিদ্ধান্ত নেইনি কি করবো?

সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মো. বাদরুল আমিন বলেন, অন্য দুই গ্রুপ অনশন পালন করছেন। তারা চলে গেলে আমরাও যাবো। আমাদের এক গ্রুপ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আছেন। তারা আসার পরে সিদ্ধান্ত নেব কি করবো।

অপরদিকে যে কোন পরিস্থিতিতে প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান করবেন বলে সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছে বাংলাদেশ কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন (সিএইচসিপি)।

সিএইচসিপি'র উপদেষ্টা কামাল হোসাইন সরকার জানান, আমাদের দাবি আদায় না হলে আমরা বাড়ি ফিরব না। যেকোন পরিস্থিতির মধ্যেও আমরা আমরণ অনশন চালিয়ে যাব।

এ সংগঠনের রাজশাহী বিভাগের আহ্ববায়ক আফজাল উদ্দিন লিটন বলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে আমাদের চলে যেতে বলা হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টায় এসে আবার বসতে বলেছে।

কিসের নিরাপত্তার কথা বলা হয়েছে প্রশাসন থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের উপর যদি কোন হামলা হয়। কিংবা কোন হামলাকারী যদি আমাদের এখানে অবস্থান নেয় এর জন্য।

একইভাবে চলে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে চাকরির বয়স ৩৫ বছর করার দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের একটি গ্রুপ। শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ক এম এ আলী বলেন, আমাদের আজ (বুধবার) সকাল ৮টার মধ্যে চলে যেতে বলা হয়েছিল। কিন্তু আমাদের একটা শর্ত ছিল যে, অন্য যারা অনশন করছেন তাদেরকে তুলে দিতে হবে। না হলে আমরা যাব না।

মন্তব্য

মতামত দিন

প্রধান খবর পাতার আরো খবর

দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রি সমমানের স্বীকৃতি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ‘কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রি সমমানের স্বীকৃতি দিয়ে আইনের অ . . . বিস্তারিত

বেসরকারি ২৭১ কলেজকে জাতীয়করণ করা হলো

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: নতুন করে দেশের ২৭১টি কলেজকে সরকারি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি অনুযায় . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com