মুসলিম-বান্ধব ফ্যাশনে আগ্রহ বাড়ছে বিখ্যাত পোশাক ব্র্যান্ডগুলোর

১২ ফেব্রুয়ারি,২০১৮

মুসলিম-বান্ধব ফ্যাশনে আগ্রহ বাড়ছে বিখ্যাত পোশাক ব্র্যান্ডগুলোর

জীবন ডেস্ক
আরটিএনএ
ঢাকা: বিখ্যাত পোশাক ব্রান্ড ‘মেসি’ নারীদের জন্য মুসলিম-বান্ধব ফ্যাশন নিয়ে আসছেন। তাদের নতুন এই ফ্যাশন হচ্ছে-হিজাব ও বিনয়ী পোশাক।

তবে, তাদের এই উদ্যোগকে কথিত নারী অধিকার কর্মীরা সমালোচনা করেছে। তাদের দাবি, এটি নিপীড়ন সংস্কৃতিকে বৃদ্ধি করবে।

সাম্প্রতিক সামাজিক মিডিয়া এবং সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন হতে দেখা গেছে যে, হিজাব পরিধান বাধ্যতামূলক করতে একটি আইন পাসের প্রতিবাদে ইরানি নারীরা প্রকাশ্যে তাদের হিজাব খুলে ফেলছে।

প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, তেহরানে বিক্ষোভের সময় প্রকাশ্য জনসম্মুখে হিজাবকে অপসারণ করার অপরাধে এক নারী ১০ বছর পর্যন্ত কারাবাসের মুখোমুখি হতে পারেন।

ফক্স নিউজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, হিজাব ও বিনয়ী পোশাক ক্রেতাদের হাতে তুলে দিতে বিখ্যাত পোশাক ব্রান্ড ‘মেসি’ আধুনিক ইসলামিক পোশাকের বুটিক ‘ভেরোনা কালেকশন’ এর সঙ্গে কাজ করছেন।

কোম্পানিটি পরিচালনা করছেন লিসা ভোগাল। তিনি ২০১৭ সালে জাতিগত সংখ্যালঘু ও নারীদের জন্য ‘মেসি’র ব্যবসা উন্নয়ন কর্মসূচিতে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

কেন কোম্পানিটির যাত্রা শুরু হয়েছিল?
কোম্পানির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘‘ভেরোনা কালেকশন’ কেবলই একটি ধারণা। ২০১১ সালে ইসলামে ধর্মান্তরিত একজন সিঙ্গেল মায়ের কাছ থেকে ধারণাটি গৃহীত হয়েছে।’

এতে আরো বলা হয়েছে, ‘ইসলাম গ্রহণের পর তার দৃঢ় উপলব্ধি ছিল- বিনয়ী এবং ফ্যাশনেবল পোশাক উভয়ই অর্জন করা এবং সামর্থ্য বহন করা বেশ কঠিন। গবেষণা করার পর তিনি বুঝতে পেরেছিলেন যে অনেক মুসলিম ও অমুসলিম নারীও একই ভাবে এটি অনুভব করেছেন।’

ভেরোনা কালেকশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফিতা কাটছেন লিসা ভোগাল (বামে)

এক সাক্ষাতাকরে ভোগাল বলেন, ‘ভেরোনা একটি ক্লোথিং ব্র্যান্ডের চেয়েও বেশি কিছু।’

তিনি বলেন, ‘এটি সম্প্রদায়ের নারীদের জন্য তাদের ব্যক্তিগত পরিচয় প্রকাশের একটি প্লাটফর্ম এবং বিনয়ী ফ্যাশন যা তাদের ভিতর ও বাইরের আস্থাকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলে।’

অন্য প্রধান ব্রান্ডগুলোও কী এটি করছেন?
হিজাব সংস্কৃতির উন্নয়নে মেসিকেই প্রথম প্রধান ডিপার্টমেন্ট স্টোর বলে মনে হচ্ছে। তবে, খুচরা বিক্রেতারা নাইকি, আমেরিকান ইগল এবং মেটেলের মতো অন্যান্য ব্র্যান্ডগুলোতে যোগদান করছেন। এসব কোম্পানিগুলোও মুসলিমদের জন্য বিনয়ী পোশাক সরবরাহ করছে।

নাইকি হিজাব মডেল হয়েছেন মার্কিন মুসলিম নারী হালিমা অ্যাডেন।

ম্যাটেলের হিজাব বার্বি ডলের মডেল হয়েছেন মুসলিম অলিম্পিক ফেনসার ইবতিহাজ মুহাম্মদ। ম্যাটেল তার বার্বি ডলকে ইয়ং নারীদের ‘ক্ষমতায়ন’ হিসাবে প্রচার করছে।

এছাড়াও, আমেরিকান ইগলও ডিনিম হিজাবের প্রচলন করেছে।

আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি তারিখ থেকে মেসি তার মুসলিম ফ্যাশন বিক্রি শুরু করার পরিকল্পনা করেছে।

দ্য ব্লিজ অবলম্বনে

মন্তব্য

মতামত দিন

জীবন পাতার আরো খবর

পশ্চিমা বিশ্বে অমুসলিম নারীদের হিজাব পরিধানের মর্মস্পর্শী গল্প

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: সাম্প্রতিককালে বিশ্বে ইসলামের পুনর্জাগরণের পাশাপাশি ইসলামবিদ্বেষীদের সক্রিয়তাও বাড়ছে। বিশ . . . বিস্তারিত

ধর্মান্তর যাত্রায় কাতিয়া কোতোভার এক কঠিন সংগ্রামের গল্প

ধর্মান্তর যাত্রায় কাতিয়া কোতোভার এক কঠিন সংগ্রামের গল্পআন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনমস্কো: রুশ তরুণী কাতিয়া কোতোভা এক কঠিন . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com