গুগলের চাকরি ছেড়ে সিঙ্গাড়া বেচেই কোটিপতি!

১৬ জুলাই,২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আরটিএনএন

মুম্বাই: গুগলের আকর্ষণীয় বেতনের চাকরি ছেড়ে দেশে ফিরে সিঙ্গারা বেচেই কোটি টাকা উপার্জনের চিন্তা ছিল। বিষয়টা শুনে অনেকেই বলেছেন পাগলাটে চিন্তা। আরাম আয়েশের চাকরি বিশেষ করে গুগলের মতো প্রতিষ্ঠানের চাকরি ছেড়ে কি কেউ সিঙ্গারা বেচবেন?


তবে এ ঘটনাকেই সত্যি করেছেন মুম্বাইয়ের বাসিন্দা মুনাফ কাপাডিয়া। তবে তার পাগলাটে চিন্তা কিন্তু ফ্লপ করেনি। ভালোই জমেছে তার সিঙ্গারা বিক্রির ব্যবসা। বর্তমানে তার রেস্তোরাঁর সিঙ্গারা বিক্রির আয়ই অর্ধকোটি রূপি।


কিন্তু কেন এই পাগলাটে চিন্তা ও তার বাস্তবায়ন? এমন প্রশ্নের জবাবে মুনাফ জানান, মুম্বাইয়ের নার্সি মনজি থেকে এমবিএ করে বছরখানেক দেশেই চাকরি করেছিলেন তিনি। এর পর ডাক পান গুগল থেকে। আমেরিকায় কয়েক বছর লেগে রইলেন মুনাফ। কিন্তু সাহেবদের দেশে তার মন বসেনি। সব রকম প্রলোভন ছাপিয়ে মায়ের হাতের রান্না করা খাবারের জন্য মুনাফের জিভ আনচান করত। সঙ্গে স্মৃতিতে ভর করে আসত বন্ধুদের আড্ডা। বন্ধুদের সঙ্গে দোকানে বসে চা-সিঙ্গাড়া খাওয়ার সময়টার কথা ভেবে বুকের ভেতরটা মোচড় দিয়ে উঠত। অগত্যা বাক্স-প্যাঁটরা গুছিয়ে ঘরের ছেলে ফিরলেন ঘরে।


২০১৫ সালে তিনি ‘দ্য বোহরি কিচেন’ নামে একটি রেস্তোরাঁ খুলেন। মাত্র দু’বছরের মধ্যে মুনাফের ‘দ্য বোহরি কিচেন’ হয়ে উঠল মুম্বাইয়ের অন্যতম আলোচিত ফুড ডেস্টিনেশন। এই রেস্তোরাঁর সবচেয়ে জনপ্রিয় ফুড আইটেমটির নাম ‘স্মোকড মাটন কিমা সমোসা’। আর এই বিশেষ সিঙ্গারা বিক্রি করেই তার এখন আয় অর্ধকোটি রূপি।


মুনাফের মতে, স্বপ্নের নগরী মুম্বাইয়ে বহু মানুষ আসেন কাজের সন্ধানে। তারা সবাই নিজের ঘর আর প্রিয়জনের হাতের রান্না মিস করেন। তাদের জন্যই রেস্তোরাঁর ট্যাগলাইন তিনি দিয়েছেন ‘ঘর কা খানা’ (ঘরের খাবার) স্লোগান। ঘরের খাবারের স্বাদ দেয়ার চেষ্টাই থাকে তার খাবারে।


তবে শুধুমাত্র সিঙ্গারাই নয়। মা-ছেলে মিলে আরও বেশ কিছু খাবার যোগ করেছেন মেনুতে। দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মুনাফের রেস্তোরাঁর সামনে লেগে থাকে ভোজনরসিকদের লাইন।

মন্তব্য

মতামত দিন

জীবন পাতার আরো খবর

আত্মঘাতী বাবা-মা'র অবুঝ শিশুটির এখন কি হবে?

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনমসুল: বাবা-মা আইএসে যোগ দিয়েছেন। একবারও ছোট্ট শিশুটির কথা ভাবেননি। ক্ষুধা-তৃষ্ণায় ধ্বংসস্তুপের . . . বিস্তারিত

বিধি নিষেধের ঘেরাটোপে চরম দুঃসময়ে চীনের উইঘুর মুসলিমরা

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনবেইজিং: চীনের সুদূর পশ্চিমের নগরী কাশগারের কেন্দ্রীয় মসজিদের প্রবেশ পথে মেটাল ডিক্টেটর বসানো হয় . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com