সর্বশেষ সংবাদ: |
  • ভৈরবে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে তিন পুলিশসহ আহত ১২, দোকানপাট ভাঙচুর
  • তারেক রহমানের ভিডিও কনফারেন্স বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয়
  • বিএনপির মনোনয়ন বোর্ডে তারেক রহমানের অংশগ্রহণের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ আওয়ামী লীগের, তারেক রহমানের অংশগ্রহণ নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন : কর্নেল (অব.) ফারুক খান
  • জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আপিল
  • জাতীয় নির্বাচনের কারণে এবার থার্টিফার্স্ট নাইট উদযাপন করা যাবে না, আতশবাজিও নিষিদ্ধ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • ২০০২ টি মামলার বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ইসিকে বিএনপির চিঠি
  • ঐক্যফ্রন্টের চমকপদ ইশতেহার আসছে, ফোকাস পয়েন্ট থাকবে সুশাসন কায়েম
  • জরিপের ওপর ভিত্তি করে দল ও জোটের মনোনয়ন দেয়া হবে: ব্রিফিংয়ে কাদের

ঢাবি থেকে ২২৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কারের প্রক্রিয়া শুরু

১২ জুন,২০১৮

ঢাবি থেকে ২২৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কারের প্রক্রিয়া শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: পরীক্ষায় নকল করা, হলে মোবাইল রাখা, বাইরে থেকে খাতা নেওয়াসহ শৃঙ্খলা ভঙ্গের বিভিন্ন অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়া সরকারি সাত কলেজের ২২৯ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কারের সুপারিশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে শৃঙ্খলা পরিষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এসব শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে সর্বনিম্ন ছয় মাস থেকে সর্বোচ্চ দুই বছরের জন্য বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে। বহিষ্কার হতে যাওয়া শিক্ষার্থীরা সবাই স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থী।

পরীক্ষার হলে অসদাচরণ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলাবিরোধী কাজে জড়িত থাকায় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে।

শৃঙ্খলা পরিষদের একটি সূ্ত্র জানায়, অধিভুক্ত কলেজগুলোর দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় নকলের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া বাকিদের কেউ পরীক্ষার হলে মুঠোফোন নিয়ে এসেছিলেন, কেউ বাইরে থেকে খাতা আনার চেষ্টা করেছিলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিখা চিরন্তনে মারামারি, লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও মনোবিজ্ঞান বিভাগে এক শিক্ষকের সঙ্গে পরীক্ষার হলে অসদাচরণ করার পৃথক তিনটি ঘটনায় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কারের সুপারিশ করেছে শৃঙ্খলা পরিষদ। তবে এই সংখ্যাটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শৃ্ঙ্খলা কমিটির সদস্য সচিব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর এ কে এম গোলাম রব্বানী জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন করায় এই বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থীর শাস্তির সুপারিশ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় এদের সম্পর্কে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আরো পড়ুন….

ছাত্রলীগ নেত্রী এশাকে ‘হেনস্তাকারী’ ২৫ ছাত্রীকে নোটিশ
কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালীন সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি সুফিয়া হলে ছাত্রলীগ সভাপতি ইফফাত জাহান এশাকে ‘হেনস্তার’ ঘটনায় ওই হলের ২৫ ছাত্রীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোনো জবাব না পাওয়া গেলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে একতরফাভাবে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও নোটিশে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রাব্বানী সাংবাদিকদের বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি মোতাবেক তাদের আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ করে দিয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

ছাত্রীদের দেয়া ওই কারণ দর্শানোর নোটিশে বলা হয়েছে, বিগত ১০ এপ্রিল মঙ্গলবার মধ্যরাতে আপনি কবি সুফিয়া কামাল হলের আবাসিক ছাত্রীদের মধ্যে পরিকল্পিতভাবে মিথ্যা অসত্য রটনা ও গুজব ছড়িয়েছেন যে, উক্ত হলের আবাসিক ছাত্রী ইফফাত জাহান ইশা, মোর্শেদা আক্তার নামক একজন আবাসিক ছাত্রীর রগ কেটে দিয়েছে এবং তাকে মারধর করেছে।

আপনি অন্যান্য আবাসিক ছাত্রীদের মধ্যে বিভ্রান্তিকর সংবাদ পরিবেশন করেছেন ও তার আলোকচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছেন। আপনার এ ধরনের পূর্বপরিকল্পনা, ষড়যন্ত্র ও প্রচারণা হলের ছাত্রীদের ভীষণভাবে উত্তেজিত ও আতঙ্কিত করে। তাছাড়া আপনি পূর্ব পরিকল্পনা অনুসারে সংঘবদ্ধ হয়ে ইফফাত জাহান ইশাকে মারধর ও লাঞ্ছিত করেন এবং জোরপূর্বক ইফফাত জাহান ইশার গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেন এবং তার বস্ত্র হরণ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলে সংঘটিত উক্ত অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটি ঘটনার সাথে আপনার জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে। একজন শিক্ষার্থী কর্তৃক এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত কার্যকলাপ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা ও মর্যাদাকে ভীষণভাবে ক্ষুণ্ণ করেছে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা ও আইনের সুস্পষ্ট পরিপন্থী।

গত ১৮ এপ্রিল শৃঙ্খলা পরিষদের সুপারিশ ও ৩০ এপ্রিলের সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ ঘটনায় ওই ছাত্রীদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হবে না তার কারণ চিঠি পাওয়ার দুই সপ্তাহের মধ্যে প্রক্টরের কাছে জমা দিতে বলা হয়েছে।

কারণ দর্শানোর ওই নোটিশ ছাত্রীদের হলের ঠিকানা, বিভাগের ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে বলে সুফিয়া কামাল হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা রহমান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বুধবার দুপুরে কারণ দর্শানোর ওই নোটিশগুলো এসেছে। হাউজ টিউটরদের মাধ্যমে চিঠিগুলো ছাত্রীদের দেয়া হয়েছে। পুরো বিষয়টিই এখন প্রক্টর অফিস দেখছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

শিক্ষাঙ্গন পাতার আরো খবর

‘কোটা নিয়ে তৈরি সকল সমস্যার দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের ফলে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে, তার দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে বলে . . . বিস্তারিত

‘কমিটির প্রতিবেদন মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী, কোটা বাতিল হলেই আন্দোলন’

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রতিবেদনকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বলে উল্লেখ করে, সরকারি চাকরিত . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com