ধর্ষকদের সাবধান করতে হত্যা!

০১ ফেব্রুয়ারি,২০১৯

ধর্ষকদের সাবধান করতে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঝালকাঠি: মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ পর এবার ধর্ষকদের হত্যার করার মতো অভিনব ঘটনা ঘটেছে। পিরোজপুরের ধর্ষন মামলার আসামী রাকিবকে হত্যার পরে তার গলায় চিরকুট লেখে অন্য ধর্ষকদের সাবধান করা হয়েছে। এর আগে একই ধরনের চিরকুট লিখে ধর্ষন মামলার আরেক আসামীকে গ্রেফতার করা হয়।

যদিও হত্যাকারী সম্পর্ক পুলিশ এখনো কোনো তথ্য পায়নি। কে বা কারা করেছে সে ব্যাপারেও কোনো নেই। এমনকি ঘটনার জন্য কেউ দায় স্বীকারও করেনি।

তবে নিহতের পরিবারের দাবি রাকিব মোল্যা গত ২৫ জানুয়ারি নিখোঁজ রয়েছে। রাজধানীর সাভার থেকে দুটি মাইক্রোবাস নিয়ে তাকে তুলে নেওয়া হয়। রাকিব মোল্লার বাড়ি পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার ভিটাবাড়িয়া গ্রামে। তিনি বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন।

পুলিশ জানায়, আজ শুক্রবার দুপুরে পরিত্যক্ত ইটভাটার পাশে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার মাদ্রাসাছাত্রী (১৩) ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি রাকিব মোল্লার (২০) লাশ উদ্ধার করে। লাশের গলায় সুতা দিয়ে ঝোলানো সাদা কাগজে লেখা একটি চিরকুট পাওয়া গেছে। চিরকুটে লেখা রয়েছে, আমি পিরোজপুর ভান্ডারিয়ার (মাদ্রাসা ছাত্রী নাম) ধর্ষক রাকিব। ধর্ষকের পরিণতি ইহাই। ধর্ষকেরা সাবধান হারকিউলিস।

রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, এলাকাবাসী গলায় চিরকুট ঝোলানো রাকিবের লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। নিহত রাকিবের মাথায় তিনটি জখমের চিহ্ন রয়েছে।

এদিকে গত শনিবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে মামলার আরেক আসামি সজল জমাদ্দারের (৩০) চিরকুট লেখা গুলিবিদ্ধ লাশ ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার বলতলা গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। চিরকুটে লেখা ছিল ‘আমার নাম সজল। আমি অমুকের ধর্ষক। ইহাই আমার পরিণতি।

এ ঘটনায় সজলের বাবা বাদী হয়ে কাঁঠালিয়া থানায় গত সোমবার রাতে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার এজাহারে রাকিব, তাঁর বাবা, ধর্ষণের শিকার মেয়েটির বাবা, ফুপা, ফুপু ও মাদ্রাসার এক শিক্ষককে সন্দেহভাজন হত্যাকারী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

জানাগেছে, বিগত ১৪ জানুয়ারি পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার মাদ্রাসাছাত্রী (১৩) বাড়ি থেকে তার নানাবাড়ি যাচ্ছিল। রাকিব মোল্লা ও সজল জমাদ্দার মেয়েটির মুখ চেপে ধরে জোর করে পাশের একটি পানের বরজে নিয়ে পালাক্রমে মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন।

রাকিব মেয়েটিকে ধর্ষণ করার সময় সজল ভিডিও করেন।

ঘটনার তিনদিন পর মেয়ের বাবা বাদী হয়ে রাকিব মোল্লা ও সজল জমাদ্দারকে আসামি করে থানায় মামলা করেন। মামলার পর রাকিব মোল্লা ও সজল জমাদ্দার গা ঢাকা দেন।

নিহত রাকিব মোল্লার বাবার ভাষ্য, ধর্ষণের অভিযোগ ওঠার পর রাকিব ঢাকার সাভারের নবীনগর এলাকায় এক বন্ধুর কাছে গিয়ে থাকেন। গত শুক্রবার (২৫ জানুয়ারি) নবীনগরের গণস্বাস্থ্য বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় একটি চায়ের দোকানে রাকিব মোল্লা ও তাঁর বন্ধু চা পান করছিলেন। সন্ধ্যা ছয়টার দিকে একটি সাদা ও একটি কালো রঙের মাইক্রোবাস এসে রাকিব মোল্লা ও তাঁর বন্ধুকে তুলে নিয়ে যায়।

পরে রাকিবের বন্ধুকে ছেড়ে দেওয়া হলেও রাকিব নিখোঁজ ছিলেন। নিখাঁজের পরের দিন গত শনিবার রাকিবের মা আশুলিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে যান। তবে পুলিশ জিডি নেয়নি। রাকিবের বাবার সন্দেহ তাঁর ছেলেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তুলে নিয়ে গুলি করে মেরে ফেলেছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ভান্ডারিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তারিকুল ইসলাম ধর্ষণ ও ধর্ষকের হত্যার বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারছেন না।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

বাংলাদেশে গ্যাসের মজুদ আর কতদিন থাকবে?

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: বাংলাদেশে গ্যাসের সংকট দিনকে দিন প্রবল আকার ধারণ করছে। বিশেষ করে শহরাঞ্চলের অনেক বাড়িতে এখন রান . . . বিস্তারিত

বরিশাল মেডিকেলের ডাস্টবিন থেকে ২২ নবজাতক শিশুর মরদেহ উদ্ধার, দেশজুড়ে তোলপাড়

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনবরিশাল: বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেলের ডাস্টবিন থেকে ২২ অপরিণত শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয় . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com