সর্বশেষ সংবাদ: |
  • জাতীয় নির্বাচনের কারণে এবার থার্টিফার্স্ট নাইট উদযাপন করা যাবে না, আতশবাজিও নিষিদ্ধ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের লুটপাটের সম্পদ গোপন রাখতেই আয়কর রিটার্ন দাখিলের বিধান তুলে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন : রিজভী
  • ২০০২ টি মামলার বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ইসিকে বিএনপির চিঠি
  • ঐক্যফ্রন্টের চমকপদ ইশতেহার আসছে, ফোকাস পয়েন্ট থাকবে সুশাসন কায়েম
  • জরিপের ওপর ভিত্তি করে দল ও জোটের মনোনয়ন দেয়া হবে: ব্রিফিংয়ে কাদের
  • বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার চলছে, প্রথম দিন রাজশাহী ও রংপুর বিভাগ

নিখোঁজের বাইশ দিন পর স্বর্ণ ব্যবসায়ীর পাঁচ টুকরা লাশ উদ্ধার

১০ জুলাই,২০১৮

নিখোঁজের বাইশ দিন পর স্বর্ণ ব্যবসায়ীর পাঁচ টুকরা লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ শহরে নিখোঁজের ২২ দিন পর স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষের (৭০) খণ্ডিত এবং গলিত লাশ উদ্ধার করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

সোমবার (০৯ জুলাই) রাত ১১টায় শহরের আমলপাড়া এলাকার একটি বাড়ির সেপটিক ট্যাংক থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। পাঁচ টুকরা করা লাশটি বস্তায় ভর্তি অবস্থায় ছিল।

নিহত স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর ঘোষ শহরের কালীরবাজারের ভোলানাথ জুয়েলার্সের মালিক।

এই ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- নারায়ণগঞ্জ নগরীর কালিরবাজারের আরেক স্বর্ণ ব্যবসায়ী পিন্টু সরকার (৩৫) ও তার দোকানের কারিগর বাপেন ভৌমিক (২৪)। প্রবীরের লাশ যে বাড়ির সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার করা হয় গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা ওই বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতেন।

এদিকে, পুলিশ জানিয়েছে আর্থিক লেনদেনের বিরোধে এই হত্যাকাণ্ড।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) নুরে আলম বলেন, প্রবীর চন্দ্র নিখোঁজের ঘটনায় পিন্টু সরকার ও বাপেন ভৌমিককে সোমবার সকালে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেন। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে এই দুজনকে নিয়ে নগরীর আমলাপাড়া এলাকার রাশেদুল ইসলাম ঠান্ডুর বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। মোট তিনটি বস্তায় ৫ টুকরো লাশ পাওয়া যায়।

নুরে আলম বলেন, ১৮ জুন রাতে প্রবীর চন্দ্রকে ওই বাড়িতে হত্যা করা হয়। প্রবীর চন্দ্র ঘোষের সঙ্গে পিন্টু সরকারের ব্যবসায়িক লেনদেন ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, টাকা লেনদেনের জের ধরে এ হত্যা। হত্যাকাণ্ডের পর থেকে পিন্টু সরকার ও তার দোকানের কারিগর বাপেন সরকার ওই ভাড়া বাড়িতেই অবস্থান করছিলেন।

প্রসঙ্গত, ১৮ জুন (ঈদের তৃতীয় দিন) নারায়ণগঞ্জ নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কের বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন প্রবীর চন্দ্র ঘোষ। নিখোঁজের তিন দিন পর নিহতের ছোট ভাই বিপ্লব চন্দ্র ঘোষের মুঠোফোনে এক কোটি টাকা চেয়ে মুক্তিপণ দাবি করা হয়।

তার সন্ধান দাবিতে ২২ দিন ধরে বিভিন্ন সময়ে ব্যবসায়ী, নিহতের স্বজন, বিভিন্ন সংগঠন ও পরিবারের লোকজন মানববন্ধন ও সমাবেশ করে আসছিল। এর মধ্যে নিহতের পরিবার প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপিও দিয়েছিলেন।

এছাড়াও নিখোঁজের ঘটনায় নিহতের বাবা ভোলানাথ দাস বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় জিডি করেছিলেন। ওই জিডির তদন্তের দায়িত্বের ভার জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে দেয়া হয়।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

নয়াপল্টনের ঘটনায় আইজিপিকে চিঠি দেয়া হয়েছে: ইসির সচিব

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনচট্টগ্রাম: নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, ১৪ নভেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির ক . . . বিস্তারিত

আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএননরসিংদী: নরসিংদীর চরাঞ্চল বাঁশগাড়িতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com