নয় দিনে দুই বিয়ে করলেন যে বাংলাদেশি যুবক

০৯ জুলাই,২০১৮

নয় দিনে দুই বিয়ে করলেন যে বাংলাদেশি যুবক

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁওয়ে নয় দিনে দুইজনকে বিয়ে করে চরম বিপাকে পড়েছেন এক যুবক। বর্তমানে শ্বশুর বাড়িতে দুই নববধূ অবস্থান করায় বর ও বরের বাবা অনেকটা আত্মগোপনে রয়েছেন।

ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধুকুরঝাড়ী গ্রামের বিপ্লব চন্দ্র সিংহ নামে এক যুবক সাত দিনের ব্যবধানে দুই তরুণীকে বিয়ে করেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ধুকুরঝাড়ী গ্রামের অমূল্য চন্দ্র সিংহের ছেলে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অফিস সহায়ক বিপ্লব চন্দ্র সিংহ পার্শ্ববর্তী ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দেবীপুর গ্রামের অতুল চন্দ্র বর্মনের কন্যা কলেজ পডুয়া দিপিকা রানীর সঙ্গে দীর্ঘদিন চুটিয়ে প্রেম করে আসছিলেন।

গত ১০ জুন বিপ্লব চন্দ্র সিংহ দিপিকা রানীকে ঠাকুরগাঁও নোটারী পাবলিকে এফিডেভিটমূলে বিয়ে করেন। বিপ্লবের এ বিয়ে গোপন রাখার শর্তে দিপিকাকে বিয়ে করেন। শর্ত মোতাবেক বিয়ে করার পর দিপিকা রানী তার পিত্রালয়ে ফিরে যান।

দিপিকা বিপ্লবের মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও বিপ্লব ফোন রিসিভ করেননি। ফোন রিসিভ না করায় দিপিকা রানী ২৫ জুন তার বাড়িতে খোঁজ নিতে আসেন। সেখানেই তিনি জানতে পারেন, তাদের বিয়ের কয়েকদিন পরেই বিপ্লব আরেকটি বিয়ে করেছেন। তখন থেকেই ওই বাড়িতেই বিয়ের স্বীকৃতির দাবী আদায়ের জন্য অবস্থান করছেন।

অন্যদিকে গত ১৮ জুন বিপ্লব চন্দ্র সিংহ সদর উপজেলার চাপাতি গ্রামে জগদীশ চন্দ্র সরকারের কন্যা মৌসুমী রানীকে পারিবারিকভাবে বিয়ে করেন। নববধূ মৌসুমীকে তার বাড়িতে নিয়ে আসেন। বর্তমানে দুই নববধূ একই বাড়িতে অবস্থান করছেন।

এদিকে প্রেমিকার আগমনের সংবাদ জানতে পেরে প্রেমিক বিপ্লব চন্দ্র সিংহ ও তার বাবা গা-ঢাকা দিয়েছেন।

প্রেমিকা দিপিকা রানী জানান, বিপ্লব চন্দ্র সিংহ আমাকে রাষ্ট্রীয় বিধি মোতাবেক বিয়ে করেছে। আমি আজ থেকে ১৩ দিন যাবৎ এখানেই অবস্থান করছি। তাকে না পাওয়া পর্যন্ত এখানেই থাকব। কোন কারণে আমাকে ফিরিয়ে দিলে আমি আত্মহত্যা করে প্রাণ বিসর্জন দেব।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমাকে বিপ্লবের পরিবারের লোকজন মানসিকভাবে নির্যাতন করছে। কিন্তু এ অভিযোগ জানাবার মাধ্যম একমাত্র মোবাইল ফোনটিও তারা কেড়ে নিয়েছে। কোথাও যোগাযোগ কিংবা কথা বলতে দিচ্ছে না।

অন্যদিকে প্রেমিক বিপ্লব চন্দ্র সিংহ জানান, দিপিকা রানী ও তার লোকজন কৌশলে ঠাকুরগাঁও শহরে ডেকে নিয়ে তাকে এফিডেভিটমূলে বিয়ে করতে বাধ্য করেন। তাদের হুমকির কারণে সে ঘটনাটি প্রকাশ করতে পারেনি।

তিনি বলেন, আমি বাসায় না থাকলে কী হবে তারা তো দু’জনেই ভালোই আছেন। রান্নাবান্না হচ্ছে, তারা খাচ্ছেও। তারা দু’জনেই যদি মিলেমিশে থাকতে চায় আমার সংসার করতে আপত্তি নাই।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সমর কুমার চ্যাটার্জি নূপুর প্রেমিকা ও স্ত্রী একই বাড়িতে অবস্থানের কথা স্বীকার করে বলেন, বিভিন্ন কাজে ব্যস্ততার কারণে ওই সমস্যা সমাধান করা সম্ভব হয়ে উঠেনি। তবে খুব শিগগিরই বিষয়টি সুরাহা করা হবে।

বালিয়াডাঙ্গী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সিফাতুল ইসলাম জানান, ওই ঘটনায় কোনো পক্ষ এখন পর্যন্ত থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, বিপ্লব চন্দ্র সিংহ বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অফিস সহায়ক পদে কর্মরত রয়েছেন। ঘটনার পর তিন দিন দিনের ছুটিতে থাকলেও রবিবার চাকুরিস্থলে যোগদান করেন তিনি।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

ইউএস বাংলার কক্সবাজারগামী যাত্রীরা ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেলেন!

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনচট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইট দুর্ঘটনায় পতিত হয় . . . বিস্তারিত

জামায়াত নেতা শামসুল ইসলামের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে প্রেরণ

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনচট্টগ্রাম: জামায়াতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও চট্টগ্রাম-১৫ (লোহাগাড়া-সাতকানিয়া) আসনের সাবেক সংসদ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com