আগুনে বসতঘর ভস্মীভূত তবুও অক্ষত কোরআন

১৫ মে,২০১৮

আগুনে বসতঘর ভস্মীভূত তবুও অক্ষত কোরআন

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
পটুয়াখালী: পটুয়াখালীর দুমকিতে আগুনে পুড়ে বসতঘর ভস্মীভূত হলেও অক্ষত অবস্থায় পবিত্র কোরআন শরিফ উদ্ধার করা হয়েছে। কোরআন শরিফের সাদা অংশ পুড়ে গেলেও প্রত্যেকটি হরফ অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস।

রোববার মধ্যরাতে উপজেলার আলগী এলাকার আব্দুল খালেক মৃধার বসতঘরে গ্যাসের চুল্লি থেকে আগুন লাগলে ভেতরে থাকা আসবাবপত্র ও নগদ ২ লাখ টাকা আগুনে পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়।

পরে ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আগুন নিয়ন্ত্রণে এলে ছাই ও বসতঘরের ধ্বংসাবশেষের মধ্য থেকে অক্ষত অবস্থায় একটি কোরআন শরিফ উদ্ধার করা হয়েছে। পবিত্র কোরআনের পৃষ্ঠাগুলোর চারপাশের সাদা অংশ পুড়ে গেলেও প্রত্যেকটি হরফ অক্ষত অবস্থায় রয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। দূর-দূরান্ত থেকে পবিত্র কোরআন শরিফটি দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন উৎসুক জনতা।

আরো পড়ুন....
দিনাজপুরে কোরআন অবমাননায় করুণ মৃত্যু!

দিনাজপুর বিরামপুরে পবিত্র কোরআর শরীফ অবমাননা করায় আদিবাসী সাঁওতাল বিশু লাড়কা নামের এক ব্যক্তির করুন মৃত্যু ঘটেছে।

এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। রণগ্রামে কবিরাজি চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিশু লাকড়ার মৃত্যু হয়। দুপুরে বিশুর লাশ নিজ বাড়িতে নিয়ে এলে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

জানা গেছে, বিরামপুর উপজেলার পলিপ্রয়াগপুর ইউনিয়নের জোতজয়রামপুর গ্রামের এতোয়া লাকড়ার ছেলে বিশু লাকড়া (৫৫) গত শুক্রবার (৫ জানুঃ) গ্রাম সংলগ্ন নদীতে মাছ ধরতে যায়। এক পর্যায়ে তার হাতের সাথে একটি কোরআন শরীফ উঠে আসে। আরবীতে মুদ্রিত মুসলমানদের মহা পবিত্র গ্রন্থটিকে সম্মান না দেখিয়ে বিশু সেটিকে পা দিয়ে সরিয়ে রেখে বাড়ি চলে আসে। বাড়ি ফেরার পর বিশুর হাত-পা অবস হতে শুরু করে এবং কিছুক্ষণের মধ্যে তার মুখের কথা ও খাওয়া-দাওয়া বন্ধ হয়ে যায়।

বিশুর বড় ছেলে লক্ষী লাকড়া ও শ্যালক দিলীপ টপ্য জানান, অবচেতন বিশু লাকড়াকে গত তিনদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসা করালেও ক্রমাগত তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হতে থাকে।

বিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ কবীর জানায় , লোকমুখে শুনেছি বিশু লাকড়া পবিত্র গ্রন্থ আল কুরআন অবমাননা করার কারনেই এই অপমৃত্যুর ঘটনা ঘটতে পারে বলে অনেকেই ধারনা করছে ।

বগুড়ায় কোরআন অবমাননার অভিযোগে যুবক আটক

২০১৭ সালের ৩১ অক্টোবর বগুড়ার শেরপুরে পবিত্র কোরআন শরিফ অবমাননার অভিযোগে দয়াল বারী নামে এক যুবককে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন।

তিনি উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের চকপোতা গ্রামের মৃত লুৎফর রহমান পীরের ছেলে।
জানা গেছে, দয়াল বারী রোববার রাতে তার বাড়িতে ওরস মাহফিলে বক্তব্য রাখছিলেন। এক পর্যায়ে সে পবিত্র কোরআন শরিফ মাটিতে ফেলে লাথি মারে।

বিষয়টি সোমবার(২০১৭,৩১ অক্টোবর) সকালে এলাকাবাসী জানতে পেরে দয়ালের কাছে এর কারণ জানতে চান। এসময় তিনি এলাকাবাসীর সঙ্গে মারমুখী আচরণ করলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেন।

থানায় আটক দয়াল বারী দাবি করেন, তিনি পবিত্র কোরআন শরিফের অবমাননা করেননি। কথা বলার সময় টেবিলের ওপর থেকে পবিত্র কোরআন শরিফ তার পায়ের কাছে পড়ে গিয়েছিল। দয়াল বারীর আত্মীয় মো. ফেরদৌস দাবি করেছেন, দায়াল বারী মানসিক ভারসাম্যহীন।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

মানবাধিকার নেত্রী রৌশনারা খাতুন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনশেরপুর: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় বাংলাদেশ মানবাধিকার ফাউন্ডেশন শেরপুরের ঝিনাইগাতী শাখার মহ . . . বিস্তারিত

কিশোরগঞ্জে জোড়া খুনের দায়ে বাবা-ছেলেসহ চারজনের ফাঁসি

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনকিশোরগঞ্জ: কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলায় জোড়া খুনের দায়ে বাবা-ছেলেসহ চারজনের ফাঁসির রায় দিয়েছেন আ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com