রাশেদের বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

১৬ এপ্রিল,২০১৮

রাশেদের বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
ঝিনাইদহ: কোটা সংস্কার আন্দোলনের সংগঠন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক মো. রাশেদ খানের বাবা নবাই বিশ্বাসকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দিয়েছে ঝিনাইদহ সদর থানায় পুলিশ।

সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার চরমুরাড়ীদহ গ্রাম থেকে তাকে থানায় আনা হয়। ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এমদাদুল হক শেখ পরিবর্তন ডটকমকে জানান, নাম-ঠিকানা জানার জন্য তাকে থানায় আনা হয়েছিল। এরপরই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এর বেশি কিছু নয়।

এর আগে দুপুর পৌনে ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকা থেকে রাশেদসহ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আরো দুই যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুরু ও ফারুক আহমদকে মাইক্রোবাসে করে তুলে নিয়ে যাওয়া বলে জানান পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন।

পরে জানা গেছে, মিন্টু রোডে অবস্থিত মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ-কমিশনারের কার্যালয়ে তাদের নিয়ে যাওয়া হয়। মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, ‘কথা বলার জন্য কোটা সংস্কার আন্দোলনের তিন নেতাকে ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়েছিল। পরে তারা চলে গেছেন।’

ঝিনাইদহে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অবস্থান
অমর প্রেম কাহিনী লাইলু-মজনু, শিরি-, ফ্যারহাদ, রোমিও- জুলিয়েট এর মত যুগে যুগে প্রেমিক-প্রেমিকাদের সাহস আর অনুপ্রেরণা যুগিয়ে যাবে। ভবিষ্যতে এ নিয়ে হলিউড, বলিউড, টালিউড এমনকি ঢালিউডেও সিনেমা বানাতে হবে। তবুও ঝিনাইদহে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অবস্থানের ঘটনার মতো কান্ড অনেক কিছুকে ছাপিয়ে যাবে বলেই মনে করেন মহেশপুরের মানুষজন।

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার এক কলেজ ছাত্রী দীর্ঘ দেড় বছর ধরে চলা সর্ম্পকের পর বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিকের বাড়ীতে ৫ দিন অবস্থান করছেন । বাড়ীতে প্রেমিকার অবস্থানের খবর পেয়ে প্রেমিক সাজন (২১) গা ঢাকা দিয়েছে। সাজনের বাড়ীতে প্রেমিকা ইসমোতারা অবস্থান করলেও খুব যত্নে রেখেছেন প্রেমিক সাজনের মা।

সাজন জলুলী স্কুল পাড়ার আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালুর ছেলে ও ইসমোতারা একই গ্রামের মৃত বদর উদ্দিনের মেয়ে। প্রেমিকা ইসমোতারা জানান, দীর্ঘ দেড় বছর ধরে জলুলী গ্রামের আবুল কালাম আজাদের ছেলে সাজনের সাথে তার সর্ম্পক। সাজন বিভিন্ন সময় বিয়ের কথা বলে শারীরিক সর্ম্পক করে আসছে। বিয়ের কথা বললেই বিভিন্ন তাল বাহানা শুরু করে আসছে।

ইসমোতারা আরো জানান, গত বুধবার দুপুরে যাদবপুর কলেজ থেকে আসার সময় সাজন আমাকে তার এক আত্নীয়ের বাড়ী মকরধ্বজপুর গ্রামে নিয়ে যায়। সেখানে এলাকার লোকজন বিষয়টি জেনে গেলে সাজন আমাকে ফেলে পালিয়ে আসে। পরে রাতে আমি বাড়ীতে গেলে আমাকে বাড়ীতে উঠতে দেয়নি আমার পরিবারের সদস্যরা । তাই আমি বুধবার রাত ২টার পর থেকে সাজনের বাড়ীতে চলে এসেছি।

মেয়েটি আরো বলেন গত তিনদিন ধরে সাজনের পরিবারের লোকজন বিয়ে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন স্থানে আমাকে নিয়ে বেড়াচ্ছে। যাদবপুর ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমান ঘটনার সত্যাতা স্বীকার করে জানান বিয়ে দেওয়ার জন্য কাজী অফিসে গেলে ছেলের বয়স ৪মাস কম হওয়ায় কাজী সাহেব বিয়ে পড়াতে রাজী হননি। তবে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে।

সাজনের পিতা আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালু জানান, দুপুরের মধ্যে সমঝোতা শেষ পর্যায়ে রয়েছে। সোমবার অথবা মঙ্গলবার বিয়ে হবে।

এর আগে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার দক্ষিণ খালিয়া গ্রামে বিয়ের দাবিতে গত শনিবার থেকে প্রেমিকা (১৬) প্রেমিক অনুপ মন্ডল (২৬) এর বাড়িতে অবস্থান করে অনশন করে।

প্রেমিকা রাজৈর উপজেলার আমগ্রাম ইউনিয়নের লাউসার গ্রামের বাড়ৈ বাড়ির মেয়ে এবং চৌয়ারীবাড়ী ভেন্নাবাড়ী মতিলাল উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী। প্রেমিক অনুপ মন্ডল একই উপজেলার খালিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ খালিয়া গ্রামের অরুণ মন্ডলের ছেলে।

জানা গেছে, ওই মেয়ের সঙ্গে অনুপ মন্ডলের গত ৪ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক। এক পর্যায়ে তিনি বিয়ের প্রলোভনে প্রেমিকাকে সাথে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে বেড়াতে গিয়ে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। সম্প্রতি প্রেমিকা বিয়ের জন্য চাপ দিলে প্রেমিক অনুপ মন্ডল অসম্মতি জানায়। ফলে বিয়ের দাবিতে ওই প্রেমিকা তার প্রেমিক অনুপের বাড়িতে শনিবার থেকে অবস্থান নিয়ে অনশন করেছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

জামায়াত নেতা শামসুল ইসলামের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে প্রেরণ

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনচট্টগ্রাম: জামায়াতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও চট্টগ্রাম-১৫ (লোহাগাড়া-সাতকানিয়া) আসনের সাবেক সংসদ . . . বিস্তারিত

কক্সবাজারের অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান, ১১ অস্ত্রসহ আটক ১

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনকক্সবাজার: কক্সবাজারের মহেশখালীতে অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান পাওয়া গেছে, এসময় ১১টি অস্ত্রসহ এক . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com