সর্বশেষ সংবাদ: |
  • বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর প্রার্থিতা বৈধ করবে বলে জানিয়েছেন আদালত, অ্যাটর্নি জেনারেলের মতামত নেওয়ার পর আদেশ
  • তিন আসনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে দায়ের করা রিটের শুনানি চলছে
  • সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সংবিধান, ভোটার ও রাজনৈতিক নেতাদের কাছে দায়বদ্ধ নির্বাচন কমিশন : সিইসি

কুমিল্লার আদালতে খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর

১৬ এপ্রিল,২০১৮

কুমিল্লার আদালতে খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
কুমিল্লা: বাসে পেট্রোল বোমা হামলায় ৮ জন নিহতের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অন্তর্বর্তীকালিন জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাজী নাজমুস সাদাত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সোমবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা অন্তর্বর্তীকালিন জামিন আবেদন করেন। জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক জেসমিন আরা বেগম জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে ২৩ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন।

এর আগে ১০ এপ্রিল পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা কুমিল্লার ৫ নং আমলি আদালতে জামিন আবেদন করলে শুনানি শেষে বিচারক সিনিয়ির জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাইন বিল্লাহ জামিন নামঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য- গত ১২ মার্চ খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা হাজিরা পরোয়ানা (প্রোটেকশন ওয়ারেন্ট) প্রত্যাহার ও জামিন আবেদন করেছিল। আদালত রাষ্ট্রপক্ষকে খালেদা জিয়াকে কেন হাজির করা হয়নি জানতে চাইলে রাষ্ট্রপক্ষ জানায়, খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কারণে তাকে আদালতে হাজির করা সম্ভব হয়নি।

১২ মার্চ গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কুমিল্লার ৫নং আমলি আদালতের বিচারক মুস্তাইন বিল্লাহ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে ২৮ মার্চ হাজিরের নির্দেশ দেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার অসুস্থতাসহ বিভিন্ন কারণে মামলার পরবর্তী তারিখ ২৮ মার্চ, ৮ ও ১০ এপ্রিল তাকে আমলি আদালতে হাজির করা সম্ভব হয়নি। নির্ধারিত তারিখগুলোতে খালেদা জিয়ার পক্ষে তার আইনজীবীরা জামিন শুনানি করেন। আমলি আদালতে জামিন নামঞ্জুর হওয়ার পর খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আজ (১৬ এপ্রিল) জেলা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন শুনানি করেন এবং এখানেও তার জামিন নামঞ্জুর হয়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে ২০ দলীয় জোটের অবরোধের সময় চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে একটি বাসে পেট্রোল বোমা ছুঁড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। এতে আট যাত্রী দগ্ধ হয়ে মারা যান, আহত হন ২০ জন। এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান বাদী হয়ে ৭৭জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় খালেদা জিয়াসহ বিএনপির শীর্ষ স্থানীয় ছয়জন নেতাকে হুকুমের আসামি করা হয়। ৭৭ জন আসামির মধ্যে তিন জন মারা যান, পাঁচ জনকে চার্জশিটকে থেকে বাদ দেওয়া হয়। খালেদা জিয়াসহ অপর ৬৯ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লা আদালতে তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন চার্জশিট দাখিল করেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

নওগাঁর পত্নীতলা আ.লীগের সভাপতিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএননওগাঁ: নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ইসাহাক হোসেনকে (৭০) সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে . . . বিস্তারিত

ক্ষমতা হারালে কারো রেহাই নেই: আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনআখাউড়া: আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, যে যেখানেই আছেন প্রত্যেকে নিজেকে একটি দুর্গ হিসেবে গড়ে তুলু . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com