জাতীয় পার্টির শামীম হায়দার পাটোয়ারী গাইবান্ধা-১ আসনে বিজয়ী

১৩ মার্চ,২০১৮

জাতীয় পার্টির শামীম হায়দার পাটোয়ারী গাইবান্ধা-১ আসনে নির্বাচিত

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
গাইবান্ধা: গাইবান্ধা-১ আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির শামীম হায়দার পাটোয়ারী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার ভোট গণনা শেষে নির্বাচন কমিশন এ ফলাফল ঘোষণা করেন। এতে জাতীয় পার্টির শামীম হায়দার পাটোয়ারীকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়।

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। লাঙল প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ৭৮ হাজার ৯২৬ ভোট।

শামীম হায়দার পাটোয়ারীর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী আফরুজা বারী পেয়েছেন ৬৮ হাজার ৯১৩ ভোট। নির্বাচনে গণফ্রন্টের শরিফুল ইসলাম মাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭১১ ভোট এবং ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) জিয়া জামান খান আম প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪১৭ ভোট।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন আজ মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।মঙ্গলবার সকালের দিকে ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি কিছুটা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ে ভোটারের উপস্থিতি।

ভোটগ্রহণের সময় ভোটকেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা চেষ্টার অভিযোগে চারজনকে আটক করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রত্যেকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। দুপুর সোয়া ১২টার দিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের গোপালচরণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র থেকে তাঁদের আটক করা হয়।

আটক ব্যক্তিরা হলেন গোপালচরণ এলাকার রেজা, জিকু ও ইউনুস মাস্টার। অপরজনের নাম জানা যায়নি।

ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মো. ওবায়দুল হক বলেন, ভোটপ্রদান শেষে ওই চারজন ভোটকেন্দ্রে অবস্থান এবং বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করছিলেন। এ সময় তাঁদের আটক করা হয়।

২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনজুরুল ইসলাম লিটন দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হলে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনটি শূন্য হয়। পরে ২০১৭ সালের ২২ মার্চ উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে জয়লাভ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহমেদ। তিনিও সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে এক মাস ঢাকায় চিকিৎসাধীন থাকার পর গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর মারা যান। ফলে আসনটি আবারও শূন্য হয়।

‘দেশের কল্যাণের জন্য জাতীয় পার্টিকে আগামীতে ক্ষমতায় আসতে হবে’

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, দেশের কল্যাণের জন্য আগামীতে জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আসতে হবে। এজন্য জাতীয় পার্টির প্রত্যেক নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

রোববার মিঠাপুকুরে এসএ এ্যাগ্রোফিড লিমিটেডের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন শেষে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় এলে বাংলাদশকে ৭টি প্রদেশে ভাগ করা হবে। রংপুর হবে প্রাদেশিক রাজধানী। মিঠাপুকুর তথা রংপুরে শিল্প-কারখানা স্থাপন করার জন্য উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা আপনাদের যে কোনো ধরনের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত আছি।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এসএ গ্রুপের চেয়ারম্যান সালাহ্উদ্দিন। এ সময় বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। এর আগে মিঠাপুকুর উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে।

আমাদের মন্ত্রীরা শিগগিরই পদত্যাগ করবেন: এরশাদ
জাতীয় পার্টির মন্ত্রীরা খুব শিগগিরই পদত্যাগ করবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ।

শুক্রবার সকালে রংপুর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এই কথা বলেন।

এরশাদ বলেন, বর্তমান মন্ত্রিসভায় আমিসহ জাতীয় পার্টির তিনজন মন্ত্রী আছেন। আমরা কিছুদিনের মধ্যেই মন্ত্রিসভা থেকে একযোগে পদত্যাগ করবো। এ ব্যাপারে আমরা ইতোমধ্যেই আলোচনা করেছি। পদত্যাগ করার বিষয়টি এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

তিনি বলেন, মন্ত্রিসভায় আমাদের দলের লোক থাকায় দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে এবং এটা বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ সংসদে বলেছেনও। সুতরাং আমি বলব, আমাদের কাউকেই মন্ত্রিসভায় নেওয়া ঠিক হয়নি।

তিনি আরো বলেন, আমরা অনেক সমালোচিত হয়েছি। তবে সরকারি দলের সঙ্গে মন্ত্রিসভায় যোগদান করার বিষয়টি ছিল রাজনৈতিক কৌশল। জার্মানিসহ অনেক দেশে এ নজির আছে। তবে আমরা আর মন্ত্রিসভায় থাকতে চাই না।

বিএনপির সঙ্গে জাতীয় পার্টির জোট করার কোনই সম্ভাবনা নেই জানিয়ে এরশাদ বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি আসবে কিনা সে ব্যাপারে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে। তারপরও সরকার চেষ্টা করছে। আমরাও মনে করি তাদের নির্বাচনে অংশ নেওয়া উচিত। তবে বিএনপি এখন নেতৃত্বহীন হয়ে পড়েছে। তাদের দলে নেতৃত্ব দেওয়ার মতো কোনও নেতা নেই। কে নেতৃত্ব দেবে কার নেতৃত্বে নির্বাচন হবে এসব সমস্যা আছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে এরশাদ বলেন, বিএনপি নির্বাচনে না গেলে তো নির্বাচন বন্ধ হবে না। তাদের না যাওয়ায় কিছুই যায় আসে না। জাতীয় পার্টি আর আওয়ামী লীগ যদি নির্বাচনে যায়, বিএনপি না গেলেও সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে।

খালেদা জিয়ার জামিন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি ৬ বছর ২ মাস কারাগারে ছিলাম। আমার বিরুদ্ধে সব মামলাই ছিল জামিনযোগ্য। তার পরেও আমি জামিন পাইনি। হাইকোর্ট আদেশ দেওয়ার পরেও আমাকে সংসদে আসতে দেওয়া হয়নি। পৃথিবীর কোনও দেশে কোনও নেতাই আমার মতো নির্যাতন ভোগ করেনি। আমার প্রতি যে অবিচার করা হয়েছে তার কোনও নজির নেই।

এরশাদ বলেন, আমরা আগামী ২৪ মার্চ ঢাকায় মহাসমাবেশের তারিখ ঘোষণা করেছি। আশা করছি সেখানে পাঁচ লাখ মানুষের সমাবেশ হবে। আমরা দেখাতে চাই জাতীয় পার্টি কতটা শক্তি সঞ্চয় করেছে। আগামীতে আমরা জনগণের রায় নিয়ে এককভাবে ক্ষমতায় যেতে চাই। আমাদের মূল লক্ষ্য হবে মহাসমাবেশের মাধ্যমে দেশের মানুষকে দেখানো আমরা নির্বাচন করে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য প্রস্তুত। বাকিটা সমাবেশেই বলবো।

এর আগে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করার পর সরাসরি রংপুর সার্কিট হাউজে এসে পৌঁছালে দলের নেতাকর্মীরা তাকে স্বাগত জানান। এ সময় দলের মহাসবিচ রুহুল আমিন হাওলাদার, কোচেয়ারম্যান জিএম কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহাম্মেদ বাবলু, রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ দলের নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে ছিলেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

শ্রমিক অসন্তোষে উত্তাল ফতুল্লা শিল্পাঞ্চল

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিআরটিএনএননারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একাধিক রফতানিমুখী পোশাক কারখানার কয়েক হাজার শ্রমিক বিভিন্ন . . . বিস্তারিত

নাটোরে বালক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএননাটোর: নাটোর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে। বিদ্যালয়ে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com