রুয়েট অধ্যাপক ইমরানা দম্পতি ও ঠিকাদার আলিফের বাড়িতে আহাজারি

১৩ মার্চ,২০১৮

রুয়েট অধ্যাপক ইমরানা দম্পতি ও ঠিকাদার আলিফের বাড়িতে আহাজারি

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: নেপালে মর্মান্তিক দূর্ঘটনার কবলে পড়া বিমানটির যাত্রী ছিলেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইমরানা কবির হাসি ও তার স্বামী প্রকৌশলী রকিবুল হাসান।

সহকারী অধ্যাপক ইমরানা কবির হাসি নেপালের একটি হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে রুয়েট সূত্রে জানানো হয়েছে।

ইমরানা কবির হাসি রাজশাহী মহানগরীর তালাইমারী এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় একাই থাকতেন। তার স্বামী রকিবুল ঢাকার আসাদ গেটে অবস্থিত একটি সফটওয়ার ফার্মে চাকুরী করেন। ভ্রমন প্রিয় হাসি ১৫ দিনের ছুটিতে স্বামীর সাথে নেপাল ভ্রমনে গিয়েছিলেন বলে জানান তার প্রতিবেশী ও সহকর্মীরা।

এদিকে প্রকৌশলী রকিবুলের গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া গ্রামে। আর হাসির বাড়ি টাঙ্গাইলে। ২০১২ সালে রুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ থেকে পাশ করে ২০১৩ তে সেখানেই শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন ইমরানা কবির হাসি। আর তার স্বামী একই বিভাগের জিরো’ সিক্স সিরিজের শিক্ষার্থী ছিলেন।

আলিফের বাড়িতে কান্নার রোল
নেপালে ইউএস-বাংলার দুর্ঘটনাকবলিত উড়োজাহাজের যাত্রী ছিলেন খুলনার রূপসা উপজেলার আইচগাতী গ্রামের আলিফ উজ্জামান (৩২)। তিনি বেঁচে আছেন, না-কি মারা গেছেন তা নিশ্চিত হতে পারেনি পরিবার। তবে সোমবার সন্ধ্যা থেকেই তার বাড়িতে চলছে কান্নার রোল।

আলিফ আইচগাতি গ্রামের বারোপুন্যির মোড় এলাকার মোল্লা আসাদুজ্জামানের ছেলে। তিনি বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি এবং বিএল কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স পরীক্ষা দিয়েছেন। এছাড়া ঠিকাদারি কাজ করেন।

সোমবার রাতে আলিফের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, তিনতলা বাড়ির দ্বিতীয় থাকে আলিফের পরিবার। আত্মীয় স্বজনকে জড়িয়ে ধরে তার মা মনিকা পারভীন আহাজারি করছেন। বাড়ির বাইরে চেয়ারে বসে অঝোরে কাঁদছেন তার বাবা মোল্লা আসাদুজ্জামান এবং আলিফের বড় ভাই ও ছোট ভাই ইয়াসিন আরাফাতসহ আত্মীয় স্বজনরা।

আলিফের বাবা মোল্লা আসাদুজ্জামান জানান, সোমবার সকাল ৭টায় আলিফ বাড়ি থেকে যশোর যায়। পরে সেখান থেকে বিমানে ঢাকা যায়। এরপর ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সে করে নেপালে যায়। ৪ দিনের জন্য সে বেড়াতে গিয়েছিল। ৩ ভাইয়ের মধ্যে সে মেঝো।

আলিফ ওই উড়োজাহাজের ৫ নম্বর সিটে ছিলেন বলে জানান স্বজনরা।

কিন্তু সর্বশেষ তার কী অবস্থা তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি তার পরিবার।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

শ্রমিক অসন্তোষে উত্তাল ফতুল্লা শিল্পাঞ্চল

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিআরটিএনএননারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একাধিক রফতানিমুখী পোশাক কারখানার কয়েক হাজার শ্রমিক বিভিন্ন . . . বিস্তারিত

নাটোরে বালক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএননাটোর: নাটোর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে। বিদ্যালয়ে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com