রুপা হত্যার রায় কার্যকরের দাবিতে দৌড়াবেন শাহজাহান

১৩ ফেব্রুয়ারি,২০১৮

 দৌড়াবেন শাহজাহান

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: বহুজাতিক কোম্পানির কর্মী রূপা খাতুনকে চলন্ত বাসে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রাখার এবং রায় দ্রুত কার্যকরের দাবিতে এবার প্রতি বুধবার টাঙ্গাইল আদালত এলাকায় দৌড়াবেন মির্জা শাহজাহান। এ ছাড়া আসামিরা দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করলে মাসে এক দিন হাইকোর্ট এলাকায় দৌড়াবেন তিনি।

টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল গতকাল সোমবার এই হত্যা মামলার রায় ঘোষণার পর মির্জা শাহজাহান প্রথম আলোকে এ কথা জানান। তিনি বলেন, রায় হয়েছে। এই রায় যেন দ্রুত কার্যকর হয়, সে জন্য প্রতি বুধবার টাঙ্গাইল আদালত এলাকায় তার দৌড় অব্যাহত থাকবে। তা ছাড়া আসামিরা যখন হাইকোর্টে আপিল করবেন, তখন তিনি প্রতি মাসে এক দিন হাইকোর্ট এলাকায় দৌড়ানোর মাধ্যমে আসামিদের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখার দাবি জানাবেন।

আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে প্ল্যাকার্ড হাতে গতকালও আদালত এলাকায় দৌড়িয়েছেন মির্জা শাহজাহান। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।

এর আগে দেশের চাঞ্চল্যকর রুপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলার রায়ে বাসের চালক এবং সহকারীসহ চারজনের ফাঁসির আদেশ দিলেও এ মামলায় একজনের সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

এ মামলায় একজনের সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত এ ব্যাপারে কৌতুহল ও ধোয়াসা রয়ে গেছে।

গত বছর যে বাসে ঐ ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছিল, সেই বাসটি জব্দ করে রুপার পরিবারকে দিয়ে দেবার আদেশ দিয়েছে টাঙ্গাইলের নারী ও শিশুবিষয়ক ট্রাইব্যুনাল।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৫শে অগাস্ট বগুড়ায় পরীক্ষা দিয়ে বাসে কর্মস্থল ময়মনসিংহে যাবার পথে বাসের চালক, সহকারী এবং সুপারভাইজার জাকিয়া সুলতানা রুপাকে ধর্ষণের পর হত্যা করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়।

ঘটনার পরে রুপার লাশ উদ্ধার করে, ময়নাতদন্ত শেষে বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে টাঙ্গাইলে দাফন করা হয়।

পরে ২৮শে অগাস্ট রুপার ভাই মধুপুর থানায় এসে লাশের ছবি দেখে বোনকে শনাক্ত করেন।

অরণখোলা পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। এ মামলায় অভিযোগ গঠন, সাক্ষী ও যুক্তিতর্কের জন্য মাত্র ১৪ দিন সময় নেওয়া হয়।

এ ঘটনার পর রাস্তাঘাট ও গণপরিবহনে নারীর নিরাপত্তা হীনতার বিষয়টি নতুন করে সামনে আসে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা হয় এবং মানুষের দৃষ্টি চলে যায় ২০১২ সালে নয়াদিল্লীতে মেডিকেল ছাত্রীর ধর্ষণ ও হত্যাসংক্রান্ত বর্বরোচিত কন্মকাণ্ডে। ২০১২ সালের ঐ ছাত্রীর ঘটনার এ জাতীয় বাসে ধর্ষণ ঐ ঘটনার ক্ষুদ্র সংস্করণ বলেই মনে হয়। কিন্তু ‘এর সমাধান কোথায়?’ এ প্রশ্ন সচেতন অভিভাবকসহ শান্তিপ্রিয় সকল মানুষের।

টাঙ্গাইলে গ্যাস লাইনে ফাটল, মহাসড়কে যানজট
টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে সঞ্চালন লাইন ফেটে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক উন্নিতকরণ কাজ করার সময় মির্জাপুর উপজেলা শহরের বাইবাস বাসস্ট্যান্ড এলাকায় তিতাস গ্যাসের সঞ্চালন লাইনটি ফেটে যায়। পরে বাস স্ট্যান্ডের পুরো এলাকায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে মির্জাপুর ফায়ার সর্ভিসের সদস্যরা আগুন নেভায়।

এদিকে এ ঘটনার পর মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। যানজট এক পর্যায় মহাসড়কের উভয় পাশে প্রায় ৬ কিলোমিটার বিস্তৃত হয়।

জানা গেছে, বাইপাস এলাকায় মহাসড়ক উন্নিতকরণের কাজ চলছে। এক পর্যায় মাটি কাটার মেশিনে ওই এলাকার গ্যাসের সঞ্চালন লাইনটি ফেটে যায়। এতে মুহূর্তের মধ্যে ওই এলাকায় আগুন লাগে। খবর পেয়ে মির্জাপুর ফায়ার স্টেশনের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে টাঙ্গাইল তিতাস অফিসের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে সংযোগটি বন্ধ করে দেন। ফলে ওই এলাকার বাসা বাড়িতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।

টাঙ্গাইল তিতাস অফিসের ম্যানেজার মামুন জানান, লাইনটি বন্ধ করে সংস্কার কাজ করা হচ্ছে।

এর আগে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে রাতের আধারে কবর থেকে কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে।

রবিবার রাতে উপজেলার বানিয়ারা গ্রামের গ্রাম্য কবরস্থানে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

স্থানীয়রা জানান, একই গ্রামের আব্দুল গফর মিয়া সোমবার সকালে কবরস্থানের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকটি কবর খুঁড়া দেখতে পান। পরে বিষয়টি গ্রামবাসীকে জানালে গ্রামের লোকজন সেখানে গিয়ে কঙ্কাল চুরির ঘটনা দেখতে পান।

তারা আরো জানান, রাতের আধারে কবরস্থানের ৯টি কবর খুঁড়ে ৫টি কবর থেকে কঙ্কাল চুরি করে নিয়ে যায় চোরেরা।

চুরি হওয়া কঙ্কালের মধ্যে তিনজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন,ওই গ্রামের মীর ওয়াহেদ, তছলিম উদ্দিন ও কবীরের স্ত্রীর কঙ্কাল।

এদিকে, কবর থেকে কঙ্কাল চুরির ঘটনায় ওই গ্রামবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানায় যোগাযোগ করা হলে অফিসার্স ইনচার্জ মিজানুল হক বলেন, কঙ্কাল চুরির সংবাদ পেয়ে একজন অফিসারকে বিষয়টি তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছি।

এর আগে ফরিদপুরের একটি গ্রামের কবরস্থান থেকে কয়েকটি কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে। সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের ফুসরা গ্রামের কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় চোরেরা পাঁচটি কবর খুঁড়ে কঙ্কাল চুরি করে নিয়ে যায়।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

দুই জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনটাঙ্গাইল: ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইলে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর . . . বিস্তারিত

চট্টগ্রামে পাহাড় ও দেয়াল ধসে নিহত ৪

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনচট্টগ্রাম: ভারী বর্ষণে চট্টগ্রাম নগরের পৃথক দু’টি স্থানে পাহাড় ধস ও দেয়াল ধসে চার জন নিহত . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com